Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড মীরাক্কেল আমাকে দিন বদলের গান শুনিয়েছে

মীরাক্কেল আমাকে দিন বদলের গান শুনিয়েছে

SHARE
Arman

ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলায় জনপ্রিয় কমেডি শো ‘মীরাক্কেল আক্কেল চ্যালেঞ্জার-৯’র গ্র্যান্ড ফিনালেতে ছিলেন বাংলাদেশের তিন প্রতিযোগী। তাদের অন্যতম একজন কমর উদ্দিন আরমান। তিনি বাংলাদেশের প্রতিযোগী সাইদুর রহমান পাভেলের সঙ্গে যৌথভাবে দ্বিতীয় রানারআপ হয়েছেন। এই সাফল্যের পর অখ্যাত আরমান হয়ে উঠেছেন বিখ্যাত। সারা দেশের মানুষ তাকে এখন চেনে, জানে। শুধু তাই নয়, জনপ্রিয়তার ঢেউ লেগেছে ওপার বাংলার দর্শকদের কাছেও।

সব অর্জন সঙ্গে নিয়ে যখন ফিরে আসলেন, পা রাখলেন নিজের প্রিয় আঙিনায়; অবাক হয়ে দেখলেন অনেক কিছুই বদলে গেছে। অবশ্য এমনটি হবারই কথা। আগে তিনি ছিলেন কক্সবাজারের চকোরিয়ার আরমান, এখন সারা বাংলাদেশের। সাধারণ আরমান নিজের এলাকার মানুষের কাছে অনেকটাই অসাধারণ হয়ে গেছেন। সবাই নিজে থেকে এগিয়ে আসছেন। কথা বলছেন। অভিনন্দিত করছেন। বুকে টেনে নিচ্ছেন। এই ভালোবাসার আবেগ দৃশ্যে নিজের অজান্তেই চোখ মুছেছেন আরমান। কে ভাবতে পেরেছিল, হুট করে নেয়া একটি সিদ্ধান্ত এভাবে বদলে দেবে চারপাশ! কৌতুক তিনি বলতে ভালোবাসেন। তবে মীরাক্কেলের মতো আসর থেকে পুরস্কার আর স্বীকৃতি নিয়ে আসবেন তা ভাবেননি কখনো।

তবে আরমান চেষ্টা করেন স্বাভাবিক জীবন যাপন করতেই। তিনি বলেন, ‘মীরাক্কেল আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে। তবে নিজের পরিবার ও বন্ধুদের কাছে আমি এখনো সেই আরমানই আছি।’ মজা করে বললেন, ‘একটু বিড়ম্বনার মুখে পড়তে হয় বাইরে গেলে।

আরমান জানালেন, সম্প্রতি তিনি যুক্ত হতে যাচ্ছেন দেশের বৃহত্তম শিল্প প্রতিষ্ঠান প্রাণ-আরএফএল’র সঙ্গে। এখানে তিনি নতুন কিছু কাজ করতে যাচ্ছেন। আরো করছেন নাটক ও স্টেজ শো। কিছুদিন আগে দীপ্ত টিভিতে একটি ছয় পর্বের ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেন তিনি। তুহিন হোসেনের পরিচালনায় ‘প্রেম কাঁঠালের আঠা’ নাটকটিতে তাকে একটি ভিন্ন চরিত্রে দেখা যায়। এছাড়াও আরমান বর্তমানে ব্যস্ত থাকছেন নানা স্টেজ শো নিয়ে।

আরমান জানান, বিভিন্ন অনুষ্ঠানে কৌতুক পরিবেশনার পাশাপাশি টিভি চ্যানেলেও তিনি হাজির হচ্ছেন আজকাল।

হাফ ডজন ধারাবাহিকে শশী

ছোটপর্দার প্রিয়মুখ শারমিন জোহা শশী বর্তমানে হাফ ডজন ধারাবাহিক নাটক নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এর মধ্যে রয়েছে শাহীন সরকারের ‘জ্ঞানী গঞ্জের পÐিতেরা’, কায়সার আহমেদের ‘আয়না’ ও ‘মহাগুরু’, সোহেল আরমানের ‘জলরং’, দেবাশীষ বড়ুয়া দ্বীপের ‘ভালোবাসা প্রেম নয়’, এবং সালাহউদ্দিনের ‘মায়া মসনদ’। প্রতিটি ধারাবাহিকে তাকে ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে রূপদান করছেন তিনি। ধারাবাহিকের পাশাপাশি খÐ নাটকেও অভিনয় করছেন শশী। স¤প্রতি হিমেল আফির ‘জবের ব্যাপার’ ও শামিমের ‘ভুল’ শিরোনামের দুটি খÐ নাটকের কাজ শেষ করেছেন। এ প্রসঙ্গে শশী বলেন, ‘কাহিনীর বৈচিত্র্য ও চরিত্রের ভিন্নতার কারণেই ধারাবাহিকগুলোতে অভিনয় করেছি। আগে আরও বেশি ধারাবাহিকে কাজ করেছি। এখন বেছে বেছে কাজ করছি। তবে যে নাটকে সামাজিক সমস্যা ও সমাধানের কথা তুলে ধরা হয় সেসব নাটকে কাজ করতে বেশি ভালো লাগে আমার।’ কেমন চরিত্রে নিজেকে উপস্থাপন করতে আগ্রহী- এমন প্রশ্নের জবাবে শশী বলেন, ‘সব শিল্পীই তার চরিত্রে নতুনত্ব খোঁজেন। নির্মাতারাই একজন শিল্পীকে নতুন নতুন চরিত্রে উপস্থাপন করতে পারেন। কিন্তু সেটি এখন কম হয়। সেই কারণে বাধ্য হয়ে অনেকে একই ধরনের চরিত্রে বারবার কাজ করছেন। এখানে পরিচালকদেরও তেমন কিছু করার নেই। কারণ গল্পে ভিন্নতা না এলে তারাইবা কীভাবে কাজটিকে আলাদা করবেন। মোটকথা আমাদের নাটকের ক্ষেত্রে সব জায়গাতেই সমস্যা রয়েছে।’

‘হাজার বছর ধরে’ চলচ্চিত্রে সাবলীল অভিনয় করে দারুণ প্রশংসিত হয়েছিলেন শশী। কিন্তু এরপর তাকে আর নতুন কোনো চলচ্চিত্রে দেখা যায়নি। এ প্রসঙ্গে শশী বলেন, ‘প্রথম চলচ্চিত্র দিয়েই আমি আজকের শশী হয়ে উঠেছি। এরপর অনেক ছবির প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছি। আমার সঙ্গে যায় না এমন কোনো চলচ্চিত্রে কাজ করে অর্জিত সুনাম নষ্ট করতে চাই না। ছবির গল্প, পরিচালক, সহশিল্পী সবকিছু মনের মতো হলেই নতুন চলচ্চিত্রে কাজ করব।’

তার প্রেমের বয়স এক বছর!

তার প্রেমের বয়স নাকি মাত্র এক বছর। ঢাকা টু কলকাতা দৌড়ঝাঁপের মধ্যেই ঘটেছে ঘটনা। প্রেমিকা নুসরাত ফারিয়া অকপটে বললেন, সত্যিই আমি প্রেম করেছি। আই অ্যাম ইন লাভ! এখনই সব কথা বলব না। মায়ের বারণ আছে। তবে একটা ক্লু দেই-প্রেমে পড়ে গেছি!

সূত্র জানায়, এক বছর আগে প্রেমিকের সাথে পরিচয় হয় ফারিয়ার। ফেসবুকের চ্যাট, ফোনে তার সাথে নাকি চুটিয়ে প্রেম চলছে। মায়ের কড়া নিষেধ আছে। তাই এখনই প্রেমের গল্প বলতে রাজি নন ফারিয়া।