Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড নবাগত অভিনেত্রী চরিত্রে তারিন

নবাগত অভিনেত্রী চরিত্রে তারিন

SHARE
Tarin

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই বহুমাত্রিক চরিত্রে অভিনয় করে দর্শকদের মুগ্ধ করেছেন নন্দিত অভিনেত্রী তারিন আহমেদ। তিনি তার অভিনীত প্রতিটি নাটকেই নিজের চরিত্রের মাধ্যমে দর্শকদের ভিন্ন কিছু উপহার দিতে চেষ্টা করেন। গল্পের প্রয়োজনে কখনো প্রেমিকা, কখনো গৃহিণী, কখনো প্রতিবন্ধী তরুণীর ভূমিকায় নিজেকে সাবলীলভাবে মেলে ধরতে সক্ষম হয়েছেন। এ কারণে দর্শকও তার অভিনীত নাটক কিংবা টেলিছবি সাদরে গ্রহণ করেন। তারই ধারাবাহিকতায় এবার তারিন একেবারেই ভিন্ন ধরনের একটি গল্পের নাটকে অভিনয় করেছেন। শুধু তাই নয়, নাটকে তিনি এই প্রজন্মের একজন নবাগত অভিনেত্রীর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নাটকের নাম ‘আমার একলা আকাশ’। সম্প্রতি নগরীর উত্তরায় কৌশিক শংকর দাশ পরিচালিত নাটকটির শুটিং হয়। তারিন বলেন, ‘নাটকটির মূল ভাবনা কৌশিক দার কাছে শুনেই আমি কাজটি করতে আগ্রহী হয়েছি। অনেকেই মনে করতে পারেন, এই প্রজন্মের একজন অভিনেত্রীর মা চরিত্রে কেন অভিনয় করেছি। কিন্তু আমার কাছে সবসময়ই একটি বিষয় খুব স্পষ্ট, নাটকের গল্প এবং চরিত্র ভালো হলে আমি সব ধরনের চরিত্রে কাজ করতে প্রসৱুত।’

নভেম্বর মাসজুড়ে হুমায়ূন আহমেদের পাঁচ চলচ্চিত্র

নন্দিত লেখক-নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিন উপলক্ষে চ্যানেল আই মাসব্যাপী প্রচার করছে হুমায়ূন আহমেদ নির্মিত পাঁচটি চলচ্চিত্র। নভেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে প্রচার শুরু হয় ছবিগুলোর। দুই দুয়ারী, আমার আছে জল, ৯ নম্বর বিপদ সংকেত ও চন্দ্রকথা ছবিগুলো ইতোমধ্যে প্রচার হয়েছে। আগামী ১৯ নভেম্বর বেলা ১.০৫ মিনিটে প্রচার হবে শ্রাবণ মেঘের দিন ছবিটি। এছাড়াও হুমায়ূন আহমেদ স্মরণে মাসব্যাপি চ্যানেল আই-এর পর্দায় রয়েছে নানান আয়োজন। আর ১৩ নভেম্বর রাত ৭.৫০ মিনিটে  প্রচার হয় হুমায়ূন আহমেদ নির্মিত একটি বিশেষ নাটক।

টেলিভিশন শিল্পের স্বার্থরক্ষায় মিডিয়া ইউনিটি

দেশের টেলিভিশন চ্যানেল বিনিয়োগকারী ও টিভি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের সদস্যরা মিলে গঠন করেছেন ‘মিডিয়া ইউনিটি’ নামের বৃহত্তম ঐক্য প্ল্যাটফর্ম। একাত্তর টিভির প্রধান সম্পাদক মোজাম্মেল বাবুকে আহ্বায়ক ও দেশ টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরিফ হাসানকে সদস্য সচিব করে সংগঠনটির আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়েছে।

সম্প্রতি ঢাকা ক্লাবের স্কয়ার লাউঞ্জে এক সংবাদ সম্মেলনে মিডিয়া ইউনিটির আহ্বায়ক জানান, দেশের ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনা এবং প্রয়োজনে আন্দোলনের ঘোষণা দেবে এই সংগঠন। শিগগিরই লিখিত বক্তব্যের মাধ্যমে সব স্টেক হোল্ডারের সঙ্গে বসে আমরা সবার জন্য বান্ধব একটি পরিস্থিতি তৈরির জন্য কাজ করবো।’ সংবাদ সম্মেলনে আরও বলা হয়েছে, এ সংগঠনে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সঙ্গে যুক্ত বিনিয়োগকারী, নাট্যকর্মী, অভিনয়শিল্পী, নির্মাতা, বিজ্ঞাপন নির্মাতা, সাংবাদিক, চিত্রগ্রাহক, ব্রডকাস্টারসহ সবাই সদস্য থাকবেন। শিগগিরই সংগঠনের একটি পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হবে। টিভি চ্যানেল বিনিয়োগকারী ও সংশ্লিষ্টরা অভিন্নভাবে নিজেদের ন্যায্য হিস্যা পেতে কাজ করার অঙ্গীকার করেন অনুষ্ঠানে। বিজ্ঞাপনদাতারা তাদের বাজেটের অনেকাংশ ভারতীয় চ্যানেলে দেয়ার পরিকল্পনা করেছে বলে জানান বক্তারা। তাই বাংলাদেশ ব্যাংক, অর্থ মন্ত্রণালয়, রাজস্ব বোর্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলা হয়, অর্থ পাচারের সুযোগ বন্ধে পদক্ষেপ নিতে হবে। আশানুরূপ সহযোগিতা না পেলে টিভি মালিক ও সংশ্লিষ্টরা বিচার বিভাগের কাছে  যেতে বাধ্য হবেন বলেও বক্তারা উল্লেখ করেছেন। এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘যারা দেশের বিজ্ঞাপন ভারতীয় চ্যানেলে নিয়ে যাওয়ার পেছনে সক্রিয় ভূমিকা রাখছে, তারা সাংস্কৃতিক রাজাকার।’ পাশাপাশি কিছুদিনের জন্য সব বিদেশি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেয়ার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। এ প্রসঙ্গে তার ভাষ্য, ‘সাংস্কৃতিক বিনিময় কখনও একতরফা হতে পারে না। ভারতীয় চ্যানেল যদি এখানে দেখানো হয়, তাহলে ভারতকে আমাদের চ্যানেলও দেখাতে হবে। এক্ষেত্রে সরকারি পদক্ষেপ জরুরি।’ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন অভিনয়শিল্পী শহীদুজ্জামান সেলিম, অভিনেত্রী রোকেয়া প্রাচী, নাট্যকার মাসুম রেজা, নাট্যনির্মাতা চয়নিকা চৌধুরী, ডিরেক্টরস গিল্ডের সভাপতি গাজী রাকায়েত, অভিনয়শিল্পী সংঘের আহসান হাবিব নাসিম, গানবাংলা টিভির ব্যবস্থাপনা পরিচালক কৌশিক হোসেন তাপস ও বিভিন্ন টিভি চ্যানেলের বিনিয়োগকারী ও কর্তাব্যক্তিরা।