স্যার প্লিজ আমার বইয়ে অটোগ্রাফ দিন

স্যার প্লিজ আমার বইয়ে অটোগ্রাফ দিন

440
SHARE
IMG_4966

মোহাম্মদ তারেক
এবারের বইমেলায় দৃশ্যটি একেবারেই নতুন। তিনি এলেন আর মুহূর্তেই তাকে ঘিরে ধরলেন সবাই। মেলার সাতদিন পর হাতের কাছে প্রিয় লেখককে পেয়ে যেনো আনন্দের বান ডেকে যায় সবার মনে। কেউ তার পাশে বসে মুঠোফোনে সেলফি তুলছে, কেউ বই কিনে এনে অটোগ্রাফ চাইছে। আবার কেউবা চাইছে একটু তার হাত ধরতে। গতকাল বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রিয় লেখককে কাছে পেয়ে ভক্তরা এমনই আনন্দ উল্লাসে মেতে উওঠে।
গতকালই প্রথম বইমেলায় এসেছিলেন বিশিষ্ট লেখক মুহাম্মদ জাফর ইকবাল। স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে তিনি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে প্রবেশের সঙ্গে সঙ্গেই ঘিরে ধরেন ভক্ত, পাঠক, শিশু, কিশোররা। তা¤্রলিপির স্টলের পাশের ছোট্ট একটি গাছের তলায় চেয়ার টেনে নিয়ে বসেছিলেন এই জনপ্রিয় লেখক। চেয়ারে বসার সঙ্গে সঙ্গেই তার লেখা বই হাতে নিয়ে ভক্তরা অটোগ্রাফ আর ছবি তোলার জন্য ঘিরে ধরেন। স্যার প্লিজ আমার বইয়ে অটোগ্রাফ দিন, ‘স্যার একটু তাকান, একটা সেলফি নেই’, ‘স্যার আপনার পাশে একটু বসবো’। এমন কথোপকথন শোনা গেল তার চার পাশে। আর তো রয়েছেই গণমাধ্যমের সাক্ষাৎকার পর্ব। কিশোর-কিশোরীরা বই হাতে নিয়ে অটোগ্রাফের জন্য দাঁড়িয়ে। তিনি সবার উদ্দেশ্যে বললেন, তোমরা শান্ত ভাবে দাঁড়াও, আমি সবাইকে অটোগ্রাফ দেব। কাউকে আমি অটোগ্রাফ না দিয়ে যাব না। তার কথা শেষ হতেই সাউথ ইষ্ট ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী উপমা লেখকের হাতে একটি বই দিয়ে বললÑ স্যার একটা অটোগ্রাফ প্লিজ। তিনি বইটিতে অটোগ্রাফ দিলেন। মেয়েটি হেসে এবার বললÑ স্যার একটা সেলফি তুলবো।
এবারের বইমেলায় মুহাম্মদ জাফর ইকবালের বেশ কয়েকটি বই বের হয়েছে। বইগুলো হলো: ‘রিটিন’, ‘সহজ ক্যালকুলাস’, ‘ই”ছাপূরণ’, ‘ভ‚তের বাঁ”চা সোলায়মান’ ইত্যাদি।