স্বামীর উদাস ভাব আমাকে খুউব কষ্ট দেয়!-শাহানাজ খুশী

স্বামীর উদাস ভাব আমাকে খুউব কষ্ট দেয়!-শাহানাজ খুশী

3696
0
SHARE
Shahnaz-Khoshi

মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: আপনি কী খুশী?

শাহানাজ : হ্যাঁ। আমি খুশী। শাহানাজ খুশী।

আনন্দ আলো: এ নামের অর্থ কী?

শাহানাজ: শাহানাজ খুশী নামের অর্থ হচ্ছে বেহেস্তের রোসনাই।

আনন্দ আলো: এ নাম নিয়ে আপনি কতটা খুশী?

শাহানাজ খুশী: আমি সর্বদাই খুশী। যতদিন বেঁচে থাকব ততদিন খুশী হয়েই থাকব।

আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

শাহানাজ  খুশী: আমি অভিনয়ে যে সময়ে এসেছি সেটা আমার জীবনের জন্য খুবই কঠিন একটা সময় ছিল। তারপরে অভিনয়ের প্রতি ভীষণ রকমের ভালোবাসা ছিল বলেই অভিনয় করছি।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ অর্থাৎ নাটকটি…

শাহানাজ খুশী: আমার অভিনীত প্রথম নাটক বৃন্দাবন দাসের লেখা, সালাউদ্দিন লাভলুর পরিচালনায় ধারাবাহিক নাটক ‘ঘর কুটুম’ এবং ‘সার্ভিস হোল্ডার’। নাটক দুটির চরিত্রই আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?

শাহানাজ খুশী: অভিনয় ছাড়া আমি ভালো রান্না করতে পারি। সংসার গোছানো ও শপিং করতে পারি।

আনন্দ আলো: বেশির ভাগ নাটকে আপনাকে ঝগড়াটে চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় কেন?

শাহানাজ খুশী: সালাউদ্দিন লাভলুর ‘ঘর কুটুম’ ধারাবাহিক নাটকে প্রথম অভিনয় করি। সেখানে আমার চরিত্রে রাগের বিষয়টি ছিল। খুব চমৎকার ভাবে সেই রাগের সঙ্গে আমার অভিনয়টা মানিয়ে গিয়েছিল। তারপর থেকেই পরিচালকরাই আমাকে রাগী চরিত্রে কাষ্টিং করতে থাকে। আমি ব্যক্তিগতভাবে সব ধরনের অভিনয় করতে পছন্দ করি।

আনন্দ আলো: একদিন সকালে ঘুম থেকে জেগে দেখলেন আপনার বিছানায় ১ কোটি টাকা পড়ে আছে। টাকাটা দিয়ে কী করবেন?

শাহানাজ খুশী: আমি ছুঁয়েও দেখব না। কারণ যেটা আমার না, সেটা আমি ধরি না। আমার স্বপ্ন খুবই সামান্য। আজকে আমি সুস্থ আছি, কাল সুস্থ থেকে পরিশ্রম করে সুন্দর ভাবে পথ চলতে পারি। সেটা আমার বিশাল পাওয়া।

আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার কণ্ঠে পুরুষালি কথা বের হতে লাগল। তখন আপনি কী করবেন?

শাহানাজ খুশী: খুউব কষ্ট পাবো। কারণ ক্যামেরা লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আমি চরিত্রটি যেভাবে ফিল করেছি। বলার সময়ে যদি আমি দেখি নারীর কণ্ঠে সেই আবেগটা অথবা সেই উত্তেজনাটা আমার আসছে না। তখন আমার বুকের মধ্যে হুঁ হুঁ করতে থাকবে। আমি এত কষ্ট পাবো যে, ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়।

আনন্দ আলো: আবার যদি কিশোরী বয়স ফিরে পান তখন কী করবেন?

শাহানাজ খুশী: বাবা-মার কাছ থেকে আর কোথাও যাব না।

আনন্দ আলো: যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত…

শাহানাজ খুশী: আপনি কী ঘরেও ঝগড়া করেন।

আনন্দ আলো: আপনার অভিনয় দেখে অনেকে আনন্দ পান। আপনার আনন্দ কিসে?

Shahnaz-Khoshi-1শাহানাজ খুশী: আমার আনন্দ ভালো চরিত্র পেলে। আর সন্তানদের মুখে হাসি দেখলে।

আনন্দ আলো: আপনি কখনো কী বৃন্দাবনে গিয়েছিলেন

শাহানাজ খুশী: ভাইরে, বৃন্দাবন থেকে বের হতেই পারিনি। সর্বক্ষণ বৃন্দাবনেই বসবাস।

আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে কেঁদেছি…

শাহানাজ খুশী: ‘সার্ভিস হোল্ডার’ নাটকটি যতবার দেখেছি ততবার কেঁদেছি। নাটকটি এখনো হৃদয়ে গেঁথে আছে।

আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্বামীর কাছে বলেন না?

শাহানাজ খুশী: স্বামীর উদাসভাব আমাকে খুব কষ্ট দেয়। কিন্তু কখনোই তাকে বলি না।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি ভালো গুণের কথা বলুন?

শাহানাজ খুশী: পরিবারকে ভীষণ ভালোবাসি। সেজন্য সব কষ্ট সহ্য করতে পারি। মানুষকে খুব সহজেই বিশ্বাস করি। মানুষের কাছ থেকে যখন আঘাত পাই তখন তাকে কিছু বলতে পারি না। আমি মানুষকে ভীষণ ভালোবাসি। সহজেই কারোর সাথে বিবাদে জড়াইনা নাটক এবং যে কোনো কাজের প্রতি প্রচণ্ড রকম শ্রদ্ধাবোধ ভক্তি আছে।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি খারাপ গুণের কথা বলুন?

শাহানাজ খুশী: আমার ধৈর্যচ্যুতি ঘটলে পরে সেটা সহজে কন্ট্রোল করতে পারি না। আমি মানুষকে অতিমাত্রায় বিশ্বাস করি। এটা করা ঠিক না। কাউকে ঘৃণা করতে পারি না। আমি ভীষণ স্মৃতি কাতর। আজ থেকে ২০ বছর আগের একটি ঘটনা আমি সহজে ভুলতে পারি না। অপ্রিয় সত্য কথা মুখের ওপর বলে ফেলি।

আনন্দ আলো: হাড় ভাঙলে জোড়ালাগে মন ভাঙলে জোড়া লাগে না কেন?

শাহানাজ খুশী: মনের হাড় নেই সেইজন্য জোড়া লাগে না।

আনন্দ আলো: প্রথম কোন মানবের প্রেমে পড়েছিলেন। বুকে হাত দিয়ে বলবেন…

শাহানাজ খুশী: বুকে হাত দিয়ে বলছি, অবশ্যই বৃন্দাবনের প্রেমে পড়েছিলাম। প্রেমে পড়েই তো বৃন্দাবনের ঘর সংসার করছি।

আনন্দ আলো: আপনার প্রেমের কথা দুই লাইনে বলুন…

শাহানাজ খুশী: বৃন্দাবনের সঙ্গে আমার যখন প্রেম হয় তখন আমি অনেক ছোট ছিলাম। আমি ক্লাশ সেভেনে পড়ি। ও ইন্টারমিডিয়েট পরীক্ষা দিয়ে ফেলেছে। ওকে দেখলে আমার কথা বন্ধ হয়ে যেত। ভীষণ ভয় পেতাম।