Home আরোও বিভাগ গানবাজনা সিটিসেল গানবাজনা

সিটিসেল গানবাজনা

SHARE

ইমরানের সুরে গাইলেন তাহসান

এ সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় গায়কদের দু’জন তাহসান ও ইমরান। গান গাওয়ার পাশাপাশি দু’জনেই সুর-সঙ্গীত করে যাচ্ছে নিয়মিত। এবার প্রথমবারের মতো ইমরানের সুর ও সঙ্গীতে কণ্ঠ দিলেন তাহসান। ভালোবাসা দিবসকে সামনে রেখে রবিউল ইসলাম জীবনের কথায়, নিজের সুর-সঙ্গীতে একটি মিক্সড অ্যালবাম প্রকাশ করবেন ইমরান। সেই অ্যালবামেরই দু’টি গানে কণ্ঠ দিলেন তাহসান। সম্প্রতি ইমরানের মিউজিক ল্যাব স্টুডিওতে গান দু’টির রেকর্ডিং হয়েছে। গান দু’টির শিরোনাম ‘কেউ না জানুক’ এবং ‘ধ্রুবতারা’। লিখেছেন রবিউল ইসলাম জীবন।

এ প্রসঙ্গে তাহসান বলেন, ‘গাওয়ার পাশাপাশি ইমরানের সুর-সঙ্গীতও আমার খুব পছন্দ। এ গান দু’টিও সে দারুণ বানিয়েছে। কথাও অসাধারণ। ভক্ত-শ্রোতারা গান দু’টি পছন্দ করবেন বলেই আমার বিশ্বাস।’ অ্যালবামটি প্রকাশ করবে সিডি চয়েস। অ্যালবামটি প্রযোজনাও করছে প্রতিষ্ঠানটি।

নতুন একক অ্যালবাম নিয়ে ডলি সায়ন্তনী

DOLYসাত বছর পর নতুন গানে ফিরলেন দেশের জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী ডলি সায়নত্মনী। প্লেব্যাক ও অ্যালবামের মাধ্যমে নব্বই দশক থেকে ২০০৮ সাল পর্যনত্ম অনেক জনপ্রিয় গান উপহার দিয়েছেন তিনি। এ পর্যনত্ম বাজারে প্রকাশিত হয়েছে তাঁর দেড় ডজন অ্যালবাম। কিন্তু হঠাৎ করেই নতুন গান প্রকাশ বন্ধ করে দিয়েছিলেন ডলি সায়নত্মনী। মূলত হিন্দি গানের হিড়িক ও অডিও অঙ্গনের অস্থিরতার জন্যই ছিল তাঁর এ বিরতি। তবে তার ভক্তদের জন্য সুখবর হলো আবারও অ্যালবামে প্রত্যাবর্তন ঘটেছে ডলির। সাত বছর পর নিজের নতুন একক অ্যালবামের কাজ করছেন তিনি। আর এ অ্যালবামের নাম রেখেছেন প্রজেক্ট ডলি সায়নত্মনী। অ্যালবামে থাকবে মোট ৬টি গান। সব গানের সুর ও সঙ্গীতায়োজন করছেন কলকাতার সুরকার ও সঙ্গীত পরিচালক শ্রী প্রীতম। এ অ্যালবামে থাকবে ডলির দু’টি একক ও চারটি দ্বৈত গান। দ্বৈত গানে ডলির সঙ্গে কণ্ঠ দেবেন জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী আসিফ আকবর। এরই মধ্যে ছয়টি গানের কাজ শেষ হয়েছে। খুব শিগগিরই অ্যালবামটি প্রকাশ পাবে। নতুন অ্যালবামটি প্রসঙ্গে ডলি সায়নত্মনী বলেন, আসলে অডিও ইন্ডাস্ট্রির খারাপ অবস্থার কারণেই এতোদিন দূরে ছিলাম নতুন গান ও অ্যালবাম থেকে। পাইরেসি আমাদের ইন্ডাস্ট্রিকে ধ্বংস করে দিয়েছিল। পাশাপাশি হিন্দি গানের একটা হিড়িক ছিল। এখন আমার মনে হয় শ্রোতাদের রুচির পরিবর্তন হয়েছে। সে কারণেই নতুন অ্যালবাম করছি। এটি সাউন্টডটেক থেকে প্রকাশ হচ্ছে। নিজের মনের মতো কিছু গান এখানে করেছি। গানগুলোর সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন কলকাতার সঙ্গীত পরিচালক শ্রী প্রীতম। দ্বৈত গানগুলোয় আসিফ গাইছে আমার সঙ্গে। সব মিলিয়ে আমি আশাবাদী এ অ্যালবাম নিয়ে। এদিকে এ অ্যালবামের বাইরেও নতুন কয়েকটি প্লেব্যাকও করেছেন তিনি। এখন থেকে নিয়মিত গান করবেন বলেও জানিয়েছেন এ সঙ্গীত তারকা।

ভালোবাসা দিবসে কুমার বিশ্বজিৎ-এর বসন্তের বন্যা

Kumar-Bijjow-jit-3-4ভালোবাসা দিবসে আসছে জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী কুমার বিশ্বজিৎ- এর দ্বৈত গানের অ্যালবাম ‘বসনেত্মর বন্যা’। অ্যালবামের তিনটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন কলকাতার শুভমিতা। কলকাতার ‘ওয়ান জিরোফোর’ স্টুডিওতে শুভমিতার সঙ্গে সুযোগ পেলে, উড়ে যায় মন’ ও ‘কোন কথাতে বাঁচি’ শিরোনামের তিনটি গানের রেকর্ডিং শেষ করেছেন। কুমার বিশ্বজিৎ জানান, শুভমিতা সম্পর্কে নতুন করে বলার কিছু নেই। রেকর্ডিংয়ের সময় আমি যেভাবে চেয়েছি ঠিক সেভাবেই দিতে পেরেছে। এই প্রথম কুমার বিশ্বজিৎ ও শুভমিতা একসঙ্গে গান করলেন। আটটি গান নিয়ে সাজানো হয়েছে অ্যালবামটি। বাকী পাঁচটি গানের মধ্যে তিনটি গান থাকছে ন্যান্সীর কণ্ঠে। আর অন্য দুটি গাইবেন সামিনা চৌধুরী। ‘বসনেত্ম বন্যা’ অ্যালবামের সব গানের সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করছেন কুমার বিশ্বজিৎ নিজেই। গানের কথা লিখেছেন কবির বকুল, শহীদুল্লাহ ফরাজি, পাঞ্চ ভট্টাচার্য, হেনা ইসলাম, ইব্রাহিম ফাতমী, জুলফিকার রাসেল ও শফিক তুহিন।

জয়ের সুরে ফাহমিদা নবী

FAHAMEDA-NOBI-(305)জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ফাহমিদা নবী গাইলেন ব্রাদারহুড খ্যাত সঙ্গীতায়োজন জয় শাহরিয়ারের সুরে। এর আগে জয় একাধিক মিক্সড অ্যালবামের সমন্বয় করলেও এবারই প্রথম তার সংকলনের জন্য গাইলেন ফাহমিদা নবী। গানের শিরোনাম ‘কখনওতো’। এর কথা লিখেছেন সুরকার নিজেই। সম্প্রতি আজব রেকর্ডসের স্টুডিওতে গানটি রেকর্ড করা হয়েছে। গানটি প্রসঙ্গে ফাহমিদা নবী বলেন, জয় ভিন্ন ধাঁচের গান করেন। এটি অনেকের মনোযোগ কাড়বে। এমনটাই আমার ধারণা। জয় বলেন, ফাহমিদা নবীর মতো বড় মাপের শিল্পীর জন্য গান তৈরি করতে পারাটা সত্যিই আনন্দের। গানটি শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যাবে বলে আমি মনে করি। ‘কখনওতো’ গানটি জয়ের সঙ্গীতায়োজনের তৃতীয় মিক্সড অ্যালবাম স্থান পাবে। নাম চূড়ানত্ম না হওয়া এই অ্যালবামটি ভালোবাসা দিবসে প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

নতুন অ্যালবাম নিয়ে আসছে ব্ল্যাক

Bendপাঁচ বছর পর নতুন অ্যালবাম নিয়ে আসছে অল্টারনেটিভ ফিউশন ঘরানার জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘ব্ল্যাক’। এরই মধ্যে অ্যালবামটির কয়েকটি গানের রেকর্ডিং শেষ হয়েছে। সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে শিগগিরই জি সিরিজ থেকে রিলিজ পাবে অ্যালবামটি। তবে মুক্তির আগেই অ্যালবামের একটি গান শোনার সুযোগ পাচ্ছেন ব্ল্যাক ভক্তরা। সম্প্রতি কারওয়ান বাজারের টিসিবি অডিটোরিয়ামে ‘অপেক্ষা’ শিরোনামের একটি গান প্রকাশ করে দলটি। ব্যান্ডের নিজস্ব সুর ও সঙ্গীতায়োজনের এই গানটির কথা লিখেছেন চার্লস। এরই মধ্যে এর মিউজিক ভিডিওর কাজ শেষ হয়েছে বলে জানান ব্ল্যাকের সদস্যরা। জানুয়ারি থেকে রেডিও জি-বিডি ডট কমে শ্রোতারা ‘অপেক্ষা’ শিরোনামের গানটি শুনতে পাচ্ছেন। পাশাপাশি বিভিন্ন টিভি চ্যানেলেও এর মিউজিক ভিডিও দেখা যাচ্ছে। একই দিন একটি কনসার্টে ব্ল্যাক অংশ নেয়।

পুতুল কাব্য

ক্লোজআপ ওয়ান তারকা পুতুল। বর্তমানে ব্যসত্ম রয়েছেন নতুন অ্যালবামের কাজ নিয়ে। পাশাপাশি লেখালেখির কাজটাও করছেন নিয়মিত। এ ছাড়া দেশ-বিদেশে স্টেজ প্রোগ্রামে ব্যসত্ম রয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে তার ব্যসত্মতার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো আনন্দ আলোর পাঠকদের জন্য।

আনন্দ আলো: বর্তমানে আপনার ব্যসত্মতা কী নিয়ে?

Putulপুতুল: বর্তমানে ব্যসত্মতা শুধু গান নিয়ে। বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সঙ্গীতবিষয়ক অনুষ্ঠানে লাইভ শো করছি। অডিও অ্যালবামের কাজ করছি। দেশ-বিদেশে স্টেজ প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যসত্ম আছি।

আনন্দ আলো: আপনার অ্যালবামের কী খবর?

পুতুল: আমার নজরুল সঙ্গীতের পঞ্চম একক অ্যালবামটির কাজ অনেকটা গুছিয়ে এনেছি। অ্যালবামটিতে মোট ১০টি গান থাকবে। সব ক’টি গানের সঙ্গীত পরিচালনা করছেন ওয়ারফেইজ ব্যান্ডের সামস। খুব শিগ্‌গিরই অ্যালবামটি প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

আনন্দ আলো: লেখালেখি কেমন চলছে?

পুতুল: গান গাওয়ার পাশাপাশি আমি বই প্রকাশের কাজ নিয়ে ব্যসত্ম রয়েছি। এবারের বইমেলায় একটি কাব্যগ্রন্থ প্রকাশ করতে যাচ্ছি। ইতোমধ্যে এর কাজ সম্পন্ন করেছি। বইটি ‘পুতুল কাব্য উপক্রমণিকা’ শিরোনামে প্রকাশ হবে। এতে ১২০-১৩০টি কবিতা রয়েছে। আশা করছি বইটি পাঠক মহলে মুগ্ধতা ছড়াবে।

আনন্দ আলো: গান নিয়ে আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

পুতুল: আমি ইউডা থেকে সঙ্গীত নিয়ে পড়াশোনা করেছি। তাই আমার সব ধ্যানজ্ঞান সঙ্গীত নিয়েই। এজন্য এখন থেকে গান গাওয়ার পাশাপাশি কথা, সুর ও নিয়মিত সঙ্গীতায়োজন করব। তাছাড়া সঙ্গীতে পিএইচডি করার লক্ষও আছে।