সংসার সে তো সারাজীবনের সঙ্গী

সংসার সে তো সারাজীবনের সঙ্গী

1291
SHARE

বেশকিছু ধারাবাহিকের শুটিং নিয়ে ব্যসত্ম রয়েছেন অভিনেত্রী নওশীন। এছাড়া চলচ্চিত্রেও কাজ করছেন তিনি। কথা হলো নওশীনের সঙ্গে-

আনন্দ আলো: ছোট পর্দায় ব্যসত্মতা কেমন-

নওশীন: বর্তমানে বেশকিছু ধারাবাহিকের শুটিং নিয়ে ব্যসত্ম আছি। এরমধ্যে রয়েছে ‘নির্বিকার মানুষ’, ‘একদিন ছুটি হবে’, ‘নীলাম্বরী’, ‘উড়ামন’, ‘দলছুট প্রজাপতি’, ‘ভালোবাসার সাত রং’ ও ‘দহন’সহ আরো বেশকিছু ধারাবাহিক। এছাড়াও আসছে ঈদ উপলক্ষে কয়েকটি খন্ড নাটকে কাজ করার কথা রয়েছে।

আনন্দ আলো: বর্তমান সময়ে টিভি নাটক নিয়ে আপনার অভিমত কী?

নওশীন: ভালো ভালো নাটক নির্মিত হচ্ছে। অনেক নতুন নির্মাতা ভিন্ন ভিন্ন কনসেপ্ট নিয়ে কাজ করছেন।

আনন্দ আলো: চলচ্চিত্রের কী খবর?

নওশীন: দুই পর্দাতেই সমানতালে কাজ করছি। সম্প্রতি ‘ফেক’ নামের একটি ছবির কাজ শেষ করেছি। একজন নারীর প্রতারিত হওয়ার গল্প নিয়ে এ ছবির পটভূমি গড়ে উঠেছে। এতে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন হিলেহ্মাল ও কল্যাণ। বর্তমানে ছবিটির পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ চলছে। ভালো গল্প ও চরিত্রে কাজ করাই আমার মূল ভাবনা। এক কথায় বলতে গেলে, স্বল্পসংখ্যক কাজ করলেও যেন মানসম্মত কাজ করতে পারি।

আনন্দ আলো: ক্যারিয়ার আর সংসার একসাথে, সমস্যা হচ্ছে না?

নওশীন: ক্যারিয়ার এবং সংসার দুটোই আমার কাছে সমান গুরুত্বপূর্ণ। নিজের পরিচয়ের জন্য ক্যারিয়ার গড়ছি। আর সংসার তো আমার সারা জীবনের সঙ্গী। তাই তাকে অবহেলা করার কোনো প্রশ্নই আসে না।

জাহিদ হাসানের সঙ্গে নোভা

Zahid-Hasan_Novaপ্রয়াত কথাসাহিত্যিক ও নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদের পরিচালনায় ২০০৬ সালে ‘প্রেম ও ঘামের গল্প’ নামের একটি নাটকে জাহিদ হাসানের বিপরীতে কাজ করেছিলেন নোভা। তারপর এক দশক কেটে গেছে। কিন্তু কখনো একসঙ্গে কাজ করার সুযোগ হয়নি আর। অবশেষে দশ বছর পর আবারো দু’জন এক সাথে অভিনয় করলেন নতুন নাটকের নাম ‘প্রিন্টিং মিসটেক’। এটি পরিচালনা করেছেন অরণ্য আনোয়ার। আসছে রোজার ঈদ উপলক্ষে নির্মিত হয়েছে নাটকটি। এই নাটকে অভিনয় করা নিয়ে নোভা বলেন, ‘আমি আজকাল অভিনয় কমই করছি। সংসারে সময় দিতে হয়। তবে ভালো পরিচালকের সঙ্গে ভালো গল্প ও চরিত্রে কাজের সুযোগ হলে করার চেষ্টা করি। প্রিন্টিং মিসটেক’ নাটকটির গল্প খুব সুন্দর। ভালো লাগবে দর্শকদের। তবে আমার ভালো লাগছে দীর্ঘদিন পর জাহিদ ভাইয়ের সাথে কাজ করার সুযোগ পেলাম।’

কাচি মার্কা এবং ফুলমতি!

Momo‘অটিস্টিক শিশুদের নিয়ে কাজ হচ্ছে বাংলাদেশে। বয়সী অটিস্টিক মানুষদের কথাও ভাবতে হবে। এমন মানুষদের জন্য নির্বাচনী মাঠে নামে একজন নারী। আমার গল্পে যেটা সব সময় ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করি তা হলো নারীর সংগ্রাম। এই টেলিফিল্মেও তা থাকছে’- নতুন একটি টেলিছবি নিয়ে কথাগুলো বলেছেন নির্মাতা সুমন আনোয়ার। যেখানে সংগ্রামী নারী তথা নাটকের নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন জাকিয়া বারী মম। নাটকে তার নাম ফুলমতি। চেয়ারম্যান পদে লড়বেন তিনি। তার প্রতীক কাঁচি। নির্বাচনী মাঠে মমর প্রতিদ্বন্দিরা হলেন- শহীদুল আলম সাচ্চু (আনারস) ও রওনক হাসান (ছাতা)। ‘ফুলমতি’ নামের টেলিছবিটির গল্প এমনই। আর এর জন্য সাচ্চু, মম ও রওনকের ছবি দিয়ে পোস্টারও তৈরি করা হয়েছে। টেলিছবিটিতে গুরুত্বপূর্ণ আরেকটি চরিত্রে অভিনয় করেছেন আফরান নিশো। নির্মাতা জানান, এখানে নিশোকে দেখা যাবে অটিস্টিকের ভূমিকায়। ‘ফুলমতি’র দৃশ্যধারণ করা হয় মানিকগঞ্জের নবগ্রামে। আগামী ঈদুল ফিতর উপলক্ষে এটি প্রচার হবে বাংলাভিশনে।