Home আরোও বিভাগ সংরক্ষনের অভাবে অনেক গান হারিয়ে যাচ্ছে

সংরক্ষনের অভাবে অনেক গান হারিয়ে যাচ্ছে

SHARE

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী বেবী নাজনীন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্র থেকে তিনি দেশে ফিরেছেন। দেশে এসেই ব্যসত্ম হয়ে পড়েছেন নিজের নতুন একক অ্যালবামের কাজ নিয়ে। নতুন অ্যালবাম ও অন্যান্য কথা বলেছেন তিনি।

আনন্দ আলো: অনেক দিন পর দেশে এসেছেন। কেমন লাগছে?

বেবী নাজনীন: দেশে ফেরা সব সময়ই আনন্দের। এবার দেশে ফিরেছি ছোট বোনের বিয়ে উপলক্ষে। সেজন্য আনন্দের পরিমাণটা আগের চেয়ে অনেক বেশি। খুব ঘটা করে ছোটবোনের বিয়ে দিয়েছি। পাত্র মুকুল জামিলও একজন সঙ্গীতশিল্পী।

আনন্দ আলো: আপনার নতুন অ্যালবামের কী খবর।

বেবী নাজনীন: বর্তমানে আমি ৫১তম একক অ্যালবামের কাজ করছি। গানের কথা, সুরে এবার একটু ভিন্নতা নিয়ে আসতে চাই। সে কারণে একটু সময় নিয়ে কাজটা করছি। সঙ্গীতায়োজনে এবারও নতুনদের প্রাধান্য দিচ্ছি। শুধু এটুকু বলি, ভার্সেটাইল একটি অ্যালবাম হবে এটি। আশা করছি ভিন্নস্বাদের একটি অ্যালবাম শ্রোতাদের হাতে তুলে দিতে পারব।

আনন্দ আলো: আপনার কোনো গানের মিউজিক ভিডিও করার ইচ্ছা আছে কী?

বেবী নাজনীন: ‘দ্যা ব্ল্যাক ডায়মন্ড বেবী নাজনীন’ অ্যালবামের কিছু গানের মিউজিক ভিডিও নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে।

আনন্দ আলো: আপনার জনপ্রিয় গানগুলো ভিন্ন ধাঁচের সঙ্গীতায়োজনে নতুন করে রেকর্ড করার কথা বলেছিলেন, সে কাজটা কতটুকু এগুলো?

বেবী নাজনীন: গত কয়েক বছর স্টেজ শোর জন্য দেশ-বিদেশে এত বেশি ছোটাছুটি করতে হয়েছে যে পুরনো গানগুলো নিয়ে আলাদা করে কিছু করা হয়ে ওঠেনি। সংরক্ষণের অভাবে আমার অনেক গানই হারিয়ে যেতে বসেছে। সে কারণে যত দ্রুত এ কাজটি শুরু করার প্রয়োজন।

ইমরানের স্বপ্ন পূরণ

IMRAN-(18)২০০৮ সালের সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে সঙ্গীতজগতে পরিচিত পান ইমরান। সে প্রতিযোগিতায় প্রথম বিচারক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন কিংবদনত্মী কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা ও সাবিনা ইয়াসমীন। প্রতিযোগিতার পর পরই মোহাম্মদ হোসেন জেমীর ‘ভালোবাসার লাল গোলাপ’ ছবিতে সাবিনা ইয়াসমীনের সঙ্গে প্লেব্যাক করার সুযোগ পান ইমরান। তবে এতদিন ইমরানের স্বপ্ন ছিল রুনা লায়লার সঙ্গে প্লেব্যাক করার। এবার তার সে স্বপ্নও পূরণ হয়েছে। আব্দুল মান্নান পরিচালিত ‘পাংকু জামাই’ ছবিতে রুনা লায়লার সঙ্গে একটি দ্বৈত গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ইমরান। ‘মনটা কেড়ে নিলে’ শিরোনামের এ গানটির কথা লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ। সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন আলী আকরাম শুভ।

পড়শীর চমক

জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী পড়শী এখন ‘মেন্টাল’ ছবির কাজ নিয়ে ব্যসত্ম সময় পার করছেন। এ ছবিতে নায়ক শাকিব খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন তিনি। গত একটি মাস এ ছবির কাজ নিয়ে ব্যসত্ম ছিলেন পড়শী। সে সঙ্গে দেশ, বিদেশে শো করছেন নিয়মিত। এদিকে গত বছর বেশ কিছু ছবিতে প্লেব্যাক করেছেন এ গায়িকা। কিন্তু নিজ উদ্যোগে একটি গান তৈরি করেছেন। ইমরানের সঙ্গে ‘জয় হবেই হবে’ গানটির মাধ্যমে বেশ প্রশংসিতও হয়েছেন পড়শী। সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত হলো পড়শীর রবীন্দ্রসঙ্গীতের প্রথম মিউজিক ভিডিও। তার গাওয়া কবিগুরুর ‘আমারও পরানে যাহা চায়’ শিরোনামের এ গানটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন সন্ধি। মিউজিক ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন রম্য খান। গানটি প্রসঙ্গে পড়শী বলেন, শৈশবে ক্ল্যাসিকাল সঙ্গীতের মাধ্যমে আমার হাতেখড়ি হয়েছিল। তখন রবীন্দ্রসঙ্গীতের কথা ও সুরে যে কি সুধা মিশে আছে তা বুঝতে পারিনি। এখন তা কিছুটা হলেও উপলব্ধি করতে পারি। সে কারণে কবিগুরুর অসংখ্য প্রিয় গান থেকে ‘আমারও পরানো যাহা চায়’ নতুন আঙ্গিকে রেকর্ড করে মিউজিক ভিডিও নির্মাণে আগ্রহী হয়েছি। আশা করছি এটি সবার ভালো লাগবে। এদিকে চলতি বছরে নতুন একক অ্যালবাম প্রকাশ করতে যাচ্ছেন পড়শী।

গানের জগতেই সারাজীবন থাকতে চাই

KUNAL-(10)এ সময়ের জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী কোনাল। বর্তমানে তিনি ব্যসত্ম রয়েছেন নতুন অ্যালবামের গান নিয়ে। পাশাপাশি প্লেব্যাকের কাজটি করছেন নিয়মিত। মাঝে মধ্যে উপস্থাপনায়ও দেখা যায় তাকে। এছাড়া দেশ, বিদেশে স্টেজ প্রোগ্রামে ব্যসত্ম রয়েছেন। সাম্প্রতিক সময়ে তার ব্যসত্মতার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো আনন্দ আলোর পাঠকদের জন্য।

আনন্দ আলো: বর্তমানে আপনার ব্যসত্মতা কী নিয়ে?

কোনাল: বর্তমানে আমার ব্যসত্মতা শুধু গান নিয়ে। বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে সঙ্গীতবিষয়ক অনুষ্ঠানে লাইভ শো করছি। অডিও অ্যালবামের কাজ করছি। দেশ, বিদেশে স্টেজ প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যসত্ম আছি। এছাড়া নিয়মিত চলচ্চিত্রে প্লেব্যাকও করছি।

আনন্দ আলো: আপনার নতুন একক অ্যালবামের কী খবর?

কোনাল: তিন বছর পর একক অ্যালবামের কাজে হাত দিয়েছি। এরই মধ্যে চারটি গানের কাজ শেষ করেছি। গানগুলো হলো ‘সুখ থামে না’, ‘লাল চশমা’, ‘আজ না বলি’ ও ‘দে দুল’। গানগুলোর সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন বাপ্পা মজুমদার, ফুয়াদ আল মুক্তাদির, মুন ও ফুয়াদ নাসের বাবু। বিভিন্ন ধরনের গান দিয়ে সাজানো হচ্ছে এ অ্যালবামটি। অ্যালবামের জন্য পথ শিশুদের নিয়ে একটি গানের কথা ও সুর আমার নিজের করা। গানটির সঙ্গীতায়োজন করছেন সাব্বির।

আনন্দ আলো: প্লেব্যাকের কী খবর?

কোনাল: আমি বেছে বেছে প্লেব্যাক করার চেষ্টা করছি। সম্প্রতি বেশ কয়েকটি ছবির গানে কণ্ঠ দিলাম। এরই মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে  ‘আপন মানুষ’, ‘মেঘকন্যা’, ‘রাজনীতি’, ‘ময়না পাখির সংসার’ এবং ‘কত স্বপ্ন কত আশা’ ইত্যাদি। এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি ছবিতে গান করার কথা চলছে।

আনন্দ আলো: আপনাকে মাঝে মধ্যে উপস্থাপনায়ও দেখা যায়। এ মাধ্যমে কী নিয়মিত হওয়ার ইচ্ছে আছে?

কোনাল: শখের বসেই আমি উপস্থাপনা করে থাকি। এটা নিয়ে কোনো ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা নেই। উপস্থাপনা আমার পেশা এবং নেশা কোনোটিই নয়। যখন শখ থাকবে না তখন আর উপস্থাপনাতে আমাকে দেখা যাবে না।

আনন্দ আলো: নতুন বছরে আপনার পরিকল্পনা কী?

কোনাল: কালজয়ী কিছু গান করে যাওয়ার স্বপ্ন দেখি। যেগুলো যুগেযুগে বিখ্যাত গানের তালিকায় আমার প্রতিনিধিত্ব করবে। গানের জগতেই সারা জীবন থাকতে চাই।