লম্বায় আমিই বড় অভিনেতা : তারিক আনাম খান

লম্বায় আমিই বড় অভিনেতা : তারিক আনাম খান

2440
SHARE

তারিক আনাম খান দেশের একজন বিশিষ্ট অভিনেতা। একজন দক্ষ সংগঠকও বটে। এবার টি-২০ বিভাগে খেলেছেন তিনি।
আনন্দ আলো: সকালে উঠিয়া আমি মনে মনে বলি… কি বলেন?
তারিক আনাম খান: আজকেই আমি যেন হলিউডে চলি।
আনন্দ আলো: দাঁড়ি বিহীন তারিক আনাম খানকে কল্পনা করলে কেমন লাগে?
তারিক আনাম খান: ছোটবেলায় তো দাঁড়ি ছিল না, তাই আবার ছোট হয়ে যাব নাতো…।
আনন্দ আলো: আপনি কি সব কিছু আনামই খান, ভাগ করে খান না?
তারিক আনাম খান: পাশে সুন্দরী রমনী থাকলে অর্ধেক খাই।
আনন্দ আলো: বাস্তব জীবনে আপনি কি খান?
তারিক আনাম খান: যা কিছু বাস্তব সবই তো খাই।
আনন্দ আলো: অবসরে কি করতে ভাল লাগে?
তারিক আনাম খান: …মুখে বলা যাবে না।
আনন্দ আলো: প্রথম অডিশনের স্মৃতি কেমন ছিল।
তারিক আনাম খান: যখন দিয়েছি তখন গলা শুকিয়ে কাঠ কিন্তু যখন নিয়েছি তখন দাপটে…।
আনন্দ আলো: কথায় আছে দিল­ীকা লাড্ডু যে খায় সেও পস্তায়। আপনি কি কোনদিন এই অবস্থায় পড়েছিলেন?
তারিক আনাম খান: খেয়ে পস্তানোই ভাল। কমপক্ষে লাড্ডু খাওয়াতো হবে।
আনন্দ আলো: বাস্তবে ঘেটুপুত্র কমলার আগমন ঘটুক সেটা কি চান?
তারিক আনাম খান: অশ্লীলতা আর যৌন হয়রানি ছাড়া তাদের শিল্পীস্বত্তাকে সালাম।
আনন্দ আলো: বাস্তব জীবনে দারোগা বিবি যদি ঘরে থাকতো, কি করতেন?
তারিক আনাম খান: কখনো কনস্টেবল আবার কখনো এসপি হয়ে যেতাম।
আনন্দ আলো: আপনার সাইজের পোশাক, জুতা কোথায় থেকে কেনেন?
তারিক আনাম খান: বঙ্গবাজার, ঢাকা কলেজ, গুলশান, বনানী, বোম্বে, কলকাতা, ব্যাংকক, লন্ডনÐ সব জায়গায়।
আনন্দ আলো: ঘুম থেকে উঠে দেখলেন আপনি ঢাকার মেয়র হয়েছেন। প্রথমে কোন কাজটি করবেন।
তারিক আনাম খান: ফোন করবো- কি অবস্থা আনিস ভাই, মালপানি পাব?
আনন্দ আলো: পৃথিবীতে আরেকবার আসার সুযোগ পেলে এখনকার কোন বিষয়টি বদলে ফেলবেন?
তারিক আনাম খান: বাংলাদেশ যাবে আমেরিকার জায়গায় আর আমেরিকা আসবে বাংলাদেশের জায়গায়।
আনন্দ আলো: এই পথ যদি না শেষ হয়… গানে সুচিত্রার সাথে আপনি। কল্পনা করুন তো?
T-20-1-2তারিক আনাম খান: রমা… আরো জড়িয়ে ধরে বসো… পড়ে যাবে।
আনন্দ আলো: নাটকের সাথে ফাটক শব্দটির কি কোন সামঞ্জস্যতা আছে?
তারিক আনাম খান: খারাপ মানুষের বিরুদ্ধে নাটক, খারাপ মানুষের জন্যে ফাটক।
আনন্দ আলো: টিভি নাটকের ভবিষ্যত কেমন দেখেন? পাঁচ লাইনে উত্তর দিন।
তারিক আনাম খান: ভবিষ্যতের কথা বলা মুশকিল। তবে আমি চাই একক নাটকের কমপক্ষে মূল্য হওয়া উচিৎ ৫০ লাখ টাকা। ধারাবাহিক প্রতি পর্ব ৩০ লাখ টাকা। টিভি নাটকে সাব টাইটেল থাকবে। বিশ্বের সব দেশ তা কিনবে ও দেখাবে। সবাই বলবে- আহ! বাংলাদেশের মত নাটক আমরা কবে বানাবো!
আনন্দ আলো: আপনার কাছে সিনেমার সংজ্ঞা কি? পাঁচ লাইনে লিখুন।
তারিক আনাম খান: সংজ্ঞাহীন। যা আমাদের সঙ্গে যায়। যেখানে সঙের মত জিনিস যেন না থাকে। সঙ্গীত ও নৃত্য দেখে সংজ্ঞা যেন লোপ না পায়। সংকেত থাকবে ভালবাসা ভরা জীবনের।
আনন্দ আলো: আপনার চোখে এ সময়ের সবচেয়ে বড় অভিনেতা কে?
তারিক আনাম খান: লম্বায় আমি বড় অভিনেতা।
আনন্দ আলো: আপনার ওপর যদি দায়িত্ব দেয়া হয় মাত্র একজনকে অভিনয় শেখানোর, কাকে শেখাবেন?
তারিক আনাম খান: নিজেকে আবার নতুন করে অভিনয় শেখাবো।
আনন্দ আলো: আপনাকে মঙ্গল গ্রহে এক বছরের জন্য পাঠিয়ে দেয়া হল। একজনকে সাথে নেয়ার অপশন আছে। কাকে নেবেন?
তারিক আনাম খান: ফরিদুর রেজা সাগরকে। কোন সমস্যাই থাকবে না। ভেরি ক্যারিশম্যাটিক ম্যান।
আনন্দ আলো: আপনার চেহারায় জমিদারী একটা ভাব আছে। ধরুণ আপনি জমিদার- পাঁচ লাইনে অনুভূতি জানতে চাই।
তারিক আনাম খান: ধরব কেন! আমি তো জমিদারই। রাস্তায় সবাই সালাম দেয়, রাস্তা করে দেয়। চেহারা দেখে লোকজন (প্রযোজক/ চ্যানেল) পয়সা দেয়। জুড়ি গাড়ি আছে, মহল আছে, জমিদার গিন্নীও আছে। কাজেই আমি তো জমিদারই।