Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড মৌ-নোবেলের হাইওয়ে

মৌ-নোবেলের হাইওয়ে

SHARE

দীর্ঘ চার বছর পর গত রোজার ঈদের একটি নাটকে অভিনয় করেছিলেন মৌ-নোবেল।  দর্শকপ্রিয় এই জুটিকে এরপর আর কোন নাটকে দেখা না গেলেও আবারো তারা দু’জন একসঙ্গে ‘হাইওয়ে’ নামে একটি নাটকে অভিনয় করেছেন।  নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন মেহেদী হাসান জনি।  নাটকটিতে নোবেলকে (ধ্রুব) ও মৌকে দেখা যাবে (মেঘলা) চরিত্রে।  ধ্রুব শিল্পপতী বাবার একমাত্র ছেলে।  আর মেঘলাও শিল্পপতী বাবার একমাত্র মেয়ে।  দুজনের বাবা শিল্পপতী হওয়া সত্ত্বেও তারা বাসা থেকে পালিয়েছে।  তবে কেউ কারো জন্য নয়।  ঘটনাচক্রে দু’জনের সাথে দেখা হয়ে যায়।  তারপর ঘটতে থাকে নানা নাটকীয় ঘটনা।  নোবেল বলেন, ‘কাজের ব্যস্ততার কারণে নিয়মিত অভিনয় করার সুযোগ হয়ে ওঠেনা।  তবে গল্প ভালো হলে হাত ছাড়া করি না।  তবে এক কথায় বলবো অসম্ভব ভালো একটি কাজ করেছি। ’ অন্যদিকে মৌ বলেন, ‘অনেক দিন পর সম্পূর্ণ ভিন্ন একটি গল্পে কাজ করলাম।  আমি ব্যক্তিগতভাবে ‘দ্য হাইওয়ে’ নাটকটিতে অভিনয় করে বেশ তৃপ্তি পেয়েছি।  অনেক পরিশ্রম করে এবং রোদেপুড়ে সারাদিন আমরা শুটিং করেছি। ’ শিগগিরই যে কোনো একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে নাটকটি প্রচার হবে।

চলচ্চিত্র নির্মাণের প্রস্তুতি নিচ্ছি

তরুণ বিজ্ঞাপন ও নাট্য নির্মাতা হাসান মোরশেদ।  ক্যারিয়ারের শুরু থেকে আলোচিত সব বিজ্ঞাপন ও নাটক নির্মাণ করে শোবিজে সকলের নজরে আসেন।  সম্প্রতি বাংলাদেশের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞাপন ‘ল্যাঙ্গুয়েজ ম্যাটার’ দেশ-বিদেশে বেশ সাড়া ফেলেছে।  যেটি এ বছর কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শন করার পাশাপাশি ইউটিউিবেও বিজ্ঞাপনটি বেশ সাড়া ফেলেছে।  সমসাময়িক ব্যস্ততা নিয়ে আনন্দ আলো’র সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি-

আনন্দ আলো: বর্তমান ব্যস্ততা কী নিয়ে?

Hasan-Morshed-Picture-(2)হাসান মোরশেদ: সম্প্রতি বান্দারবানে নতুন একটি বিজ্ঞাপনের শুট শেষ করে আসলাম।  পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ করেছি মুম্বাইতে।  এছাড়াও আমার পরিচালনায় এসএ টিভিতে প্রচার হচ্ছে আদর্শ লিপি ধারাবাহিক।  এটির অবশ্য শেষ লটের শুটিং করেছি।

আনন্দ আলো: আপনার নির্মিত একটি বিজ্ঞাপন কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শন করা হয়…

হাসান মোরশেদ: এটি আসলে সত্যিই আমার জন্য বিরাট পাওয়া।  বাংলাদেশের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞাপন ‘ল্যাঙ্গুয়েজ ম্যাটার’।  এটি ইউটিউবে দেশ-বিদেশে বেশ সাড়া ফেলেছে।  এ বছর কান চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হওয়ার পাশাপাশি বেশ প্রশংসিতও হয় বিজ্ঞাপনটি।

আনন্দ আলো: আর কোন কোন বিজ্ঞাপন আপনি নির্মাণ করেছেন?

হাসান মোরশেদ: আমি এ পর্যন্ত প্রায় চল্লিশটি বিজ্ঞাপন নির্মাণ করেছি।  টেলিটক-এর জামাই যখন আসবেন তখুনি আদর, আকিজ গ্রুপ, বসুন্ধরা গ্রুপ, ইউএসএইড, আসিসি, প্রাণ আরএফএল, সানোয়ারা গ্রুপ, বাটারফ্লাই, মাই ওয়ান, স্বপ্নধরা আবাসন প্রতিষ্ঠানসহ বেশকিছু বিজ্ঞাপন নির্মাণ করি।  ২০১৪ সালের টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ উপলক্ষে বাংলাদেশে প্রথম যে ‘ফ্ল্যাশ মব’ নির্মাণ করা হয়, তা আমার নির্মিত।  আইসিসি’র হয়ে বাংলাদেশের সব বিশ্ববিদ্যালয় এবং একই সাথে বেশিরভাগ স্কুলের শিক্ষার্থীরাও এই ফ্ল্যাশ মব নির্মাণ করেন।  ইউএসএইড-এর ‘আপনজন’ নামে একটি জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন নির্মাণ করেছি।

আনন্দ আলো: নিজের ভবিষ্যত পরিকল্পনা বলবেন-

হাসান মোরশেদ: প্রত্যেক নির্মাতারই স্বপ্ন থাকে চলচ্চিত্র নির্মাণ করা।  আমারও এই স্বপ্ন আছে।  সেইভাবে এগুচ্ছিও আমি।  এখন চলছে চলচ্চিত্রের চিত্রনাট্যের কাজ।  খুব শিগগিরই চলচ্চিত্রের ঘোষণা দিবো।  শুধুমাত্র প্রযুক্তি দিয়ে চলচ্চিত্র হয় না, প্রযুক্তির পাশাপাশি অবশ্যই ভালো গল্প এবং ভিন্ন কিছু চিন্তা করতে হবে।  তাহলেই ভালো চলচ্চিত্র সম্ভব।  তাই তো এমন একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করবো যেটি দেখে মানুষ সারাজীবন মনে রাখবেন।  আমার আরেকটি ইচ্ছা হচ্ছে-সরকার যেভাবে প্রাইমারী স্কুলকে উন্নত করার জন্য নিরলস শ্রম দিয়ে যাচ্ছে, তেমনি আমাদের দেশের প্রেক্ষাগৃহগুলোর উন্নতিকল্পে সেই শ্রম দিলে মানুষ অবশ্যই হলে গিয়ে সিনেমা দেখবেন।

আসছে দীপ্ত টিভি

ব্যতিক্রমী বিনোদন অনুষ্ঠানের বার্তা নিয়ে আসছে নতুন টিভি চ্যানেল দীপ্ত।  চলতি মাস থেকে দর্শকরা দেখতে পারবেন নতুন এ চ্যানেলটির সম্প্রচার।  চ্যানেল কর্তৃপক্ষ জানান, তাদের সব অনুষ্ঠান নিজেদের প্রযোজনায় নির্মাণ করা হচ্ছে।  ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি ধারাবাহিক ও অনুষ্ঠানের কাজ শেষ।  এছাড়াও প্রতিটি অনুষ্ঠানের মান বিশ্লেষণ গুরুত্ব দিয়ে করা হচ্ছে।  জানা গেছে, দীপ্ত টিভি নিয়ে আসছে একাধিক দীর্ঘ ধারাবাহিক।  যা সপ্তাহে ৬ দিন প্রচার হবে।  শিশুদের জন্য থাকছে কার্টুন, থাকছে কৃষিবিষয়ক বিভিন্ন ধারাবাহিক অনুষ্ঠান।  এছাড়াও থাকছে সংগীতানুষ্ঠান, মর্নিং শোসহ আরো অনেক কিছু।  থাকবে দেশ বিদেশের সর্বশেষ খবরও।

জুটি হলেন তানভীর-তিশা

tanveer-tanjin-tisha-(1)হাসপাতালের বেড-এ শুয়ে আছেন তানভীর।  তার সেবা সহিষ্ণুতায় ব্যস্ত নার্স তানজিন তিশা।  কয়েকদিনের চেনাজানায় দু’জনের মধ্যে এক ভালো লাগার সৃষ্টি হয়।  তবে সেটা ভালোবাসায় রূপ নিতে পারতো।  কিন্তু কোনো এক কারণে সেই সম্পর্ক ভালোবাসায় রূপ নেয় না।  তানভীর ক্রমেই তানজিন তিশার প্রতি দুর্বল হলেও সে কেনো জানি নিজেকে গুটিয়ে রাখতে চায়।  এমনি গল্পের নাটক ‘মহিয়ষী’।  আতাউর রহমানের রচনা ও এসএম সোহেল খানের পরিচালনায় এতে তানভীর ও তানজিন তিশা ছাড়াও আরো অভিনয় করেছেন সাবেরী আলম।  তানভীর বলেন, ‘নাটকটার গল্পে মানবধর্ম ও মানুষের দায়িত্বতার কথা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।  এমন চরিত্রে এই প্রথম অভিনয় করলাম।  সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে গল্পে একটা টুইস্ট আছে যা দর্শকরা শেষে দেখতে পাবেন। ’ তানজিন তিশা বলেন, ‘নার্সের চরিত্রে এই প্রথম অভিনয় করেছি।  আমি এই নাটকে নার্স হয়ে মানুষের সেবা করে থাকি।  তবে এটার পেছনেও একটা কারণ রয়েছে।  যা নাটকের শেষে দেখতে পারবেন দর্শক।  বেশ মজা আছে নাটকটিতে। ’