মিউজিক ভিডিও নিয়ে কুমার বিশ্বজিৎ

মিউজিক ভিডিও নিয়ে কুমার বিশ্বজিৎ

2176
SHARE

নতুন চারটি মিউজিক ভিডিও নিয়ে শ্রোতাদের সামনে হাজির হচ্ছেন চিরসবুজ গায়ক কুমার বিশ্বজিৎ। সম্প্রতি চারটি গানের মিউজিক ভিডিওর কাজ শেষ করেছেন তিনি। মিউজিক ভিডিও গুলোর শুটিং করেছেন নিউইয়র্ক, ওয়াশিংটন ও টেক্সাসের বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে। কিছুদিন আগে কুমার বিশ্বজিৎ স্ত্রী-সন্তানসহ আমেরিকায় গিয়েছিলেন। ওখানে থাকাকালীন ভিডিও গুলো নির্মাণ করেন তিনি। গান গুলো হচ্ছে আসিফ ইকবালের কথা ও লাকী আখন্দের সুরে ‘বলো না তুমি ছাড়া’, লিটন অধিকারী রিন্টুর কথা আর কুমার বিশ্বজিৎ এর সুরে ‘কিছুই নাকি দেইনি তোমায়’, আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের কথা ও সুরে ‘আমার তুমি ছাড়া কেউ নেই আর’, আহমেদ রিজভির কথা ও কুমার বিশ্বজিৎ এর সুরে ‘ভালোবাসি ভালোবাসি তোমাকেই ভালোবাসি তুমি এলে হৃদয় জমিনে ফুল ফোটে রাশি রাশি’। এ প্রসঙ্গে কুমার বিশ্বজিৎ বলেন, মূলত আসছে ঈদে একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে গান গুলো প্রচারের লক্ষ্যে মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করেছি। নিউইয়র্কে টিভিএন নিউজ ক্যামেরাসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক সার্পোট দিয়েছে আমাকে। পাশাপাশি নির্মাণে সহযোগিতা করেছেন এক সময়ের ঢাকার সাংবাদিক তারিফ। খুব ভালো হয়েছে চারটি মিউজিক ভিডিও। আমার বিশ্বাস, গানে গানে মিউজিক ভিডিও গুলো দর্শকের ভালো লাগবে।

 সাদাকালো

আসছে ঈদে শ্রোতাদের হাতে নতুন একক অ্যালবাম তুলে দিচ্ছেন জনপ্রিয় সংগীত শিল্পী ফাহমিদা নবী। অ্যালবামের নাম ‘সাদা কালো’। অ্যালবামটিতে গান রয়েছে মোট সাতটি। সবক’টি গানের সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন শান। অ্যালবামের গান গুলো লিখেছেন জাহিদ আকবর, ইবনে সুমন, হাসনাত মোহসীন, নাজির ও ফারহানা হক। ‘সাদাকালো’ গানে ফাহমিদা নবীর সঙ্গে দ্বৈতকণ্ঠ দিয়েছেন শান। নতুন অ্যালবামটি প্রসঙ্গে ফাহমিদা বলেন, সত্যি বলতে কি এখন বয়স এবং অবস্থানগত দিক দিয়ে এমন একটা জায়গায় চলে এসেছি যেখানে নিজের ভাবনায় সব সময় ভালো কিছুই লালন করার চেষ্টা করি। একটি ভালোগীতি কবিতা, ভালো সুর খোঁজার চেষ্টা করি। সেই ভাবনা এবং দায়িত্ব থেকে আমার নতুন অ্যালবামের গান গুলো করা। শান খুব ভালো সুর করে। তার কাজে আমি মুগ্ধ।

 এই প্রথম চাচা-ভাতিজা এক সঙ্গে কাজ করেছি -আরফিন রুমি

AREFIN-RUMI-(4)এ প্রজন্মের কণ্ঠশিল্পী ও কম্পোজার আরফিন রুমি। বর্তমানে ব্যস্ত রয়েছেন অডিও অ্যালবাম নিয়ে। পাশাপাশি প্লেব্যাকও করছেন। এছাড়া স্টেজ প্রোগ্রাম করে যাচ্ছেন নিয়মিত। সাম্প্রতিক সময়ে তার ব্যস্ততার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো আনন্দ আলো পাঠকদের জন্য।

আনন্দ আলো: বর্তমানে আপনার ব্যস্ততা কি নিয়ে?

আরফিন রুমি: গান নিয়ে শুধু ব্যস্ততা। বর্তমানে আমি নিজের নতুন একক অ্যালবামের কাজ নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছি। তাছাড়া আমার ভাতিজা শাদ শাহর কথা ও সুরে একটি মিক্সড অ্যালবামে কণ্ঠ দিয়েছি। আশা করছি কাজটি অনেক ভালো হবে। এবরাই প্রথম কোনো অ্যালবামে আমরা চাচা-ভাতিজা একসাথে কাজ করলাম।

আনন্দ আলো: ‘কিছু কথা আকাশে পাঠাও’ অ্যালবামটি সর্ম্পকে কিছু বলুন।

আরফিন রুমি: এটি একটি মিক্সড অ্যালবাম। এখানে আমার গাওয়া তিনটি গান রয়েছে। কিছু কথা আকাশে পাঠাও অ্যালবামটি নিয়ে যতটুকু আশা করেছি, তার চেয়েও বেশি সাড়া পেয়েছি। ইন্টারনেটে এ অ্যালবামের ভিডিও গান গুলো গড়ে প্রায় দুই লাখের উপরে দেখা হয়েছে, শিল্পী হিসাবে আমার প্রাপ্তির জায়গাটি এখানেই।

আনন্দ আলো: কোরবানী ঈদের জন্য কোনো কাজ করছেন কী?

আরফিন রুমি: এখন নিজের একক অ্যালবামের কাজ নিয়ে ব্যস্ত আছি। অন্য কোনোকিছু নিয়ে আপাতত চিন্তা করছিনা। যদি সম্ভব হয় তবে অবশ্যই শ্রোতাদের জন্য ঈদে কিছু একটা উপহার থাকবে।

আনন্দ আলো: প্লেব্যাকের কী কবর?

আরফিন রুমি: নতুন একটি ছবির দুটি গানে কণ্ঠ দিয়েছি। এছাড়াও বেশ কয়েকটি ছবিতে গান করার কথা রয়েছে।  প্রেমকাব্য  আসছে কোরবানির ঈদে ঈগল মিউজিকের ব্যানারে প্রকাশ পাচ্ছে এ প্রজন্মের তিন জনপ্রিয় সংগীত তারকার একটি ভিন্ন ধর্মী অ্যালবাম। অ্যালবামের নাম ‘প্রেমকাব্য’। অ্যালবামের শিল্পীরা হলেন শফিক তুহিন, ইমরান ও বেলাল খান। প্রথম বারের মতো এই তিনসংগীত তারকাকে নিয়ে কোনো অ্যালবাম তৈরি হচ্ছে। এর আগে বিচ্ছিন্নভাবে বিভিন্ন অ্যালবামে কাজ করলেও কেবল এই তিন তারকাকে নিয়ে কোনো অ্যালবাম প্রকাশ পায়নি। আসছে ঈদের অন্যতম বড় অ্যালবাম হিসেবে এটি প্রকাশ পাবে। এরই মধ্যে অ্যালবামের কাজ শুরু হয়েছে। শফিক তুহিন, ইমরান, বেলাল তিনটি করে গান গাইবেন অ্যালবামে। এর মধ্যে দুটি করে একক ও একটি করে দ্বৈত গান  রয়েছে তাদের। ‘প্রেমকাব্য’ অ্যালবামের সব গুলো গানের কথা লিখেছেন ফয়সাল রাব্বিকীন। এই তিন তারকা ছাড়াও সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন সজীব দাস, ফাজবীর তাজ, রাফি, মারশাল প্রমুখ। অ্যালবামটি প্রসেঙ্গ শফিক তুহিন বলেন, তিনজন শিল্পী নিয়ে অ্যালবাম করার ট্রেন্ড অনেক দিন থেকেই নেই। এ অ্যালবামের মাধ্যমে এ ট্রেন্ডটা আবার শুরু হলো।

বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫

Khuda-gun-Raz১১ সেপ্টেম্বর গ্র্যান্ড ফিনালে বর্তমানে শেষ পর্যায়ে আছে বুষ্টার এনার্জি বিস্কুট চ্যানেল আই ক্ষুদে গানরাজ ২০১৫ এর পঞ্চম আসর। দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রাথমিক বাছাই পর্বে অংশ নেয় ৬৫ হাজার প্রতিযোগী। সেখান থেকে ঢাকায় আসার ইয়েস কার্ড পায় ১০২ জন। তাদেরকে নিয়ে ঢাকায় শুরু হয় অডিশনের দ্বিতীয় রাউন্ড। প্রাথমিক অডিশন এবং গ্র্যান্ড অডিশনের মাধ্যমে সেখান থেকে ক্যাম্পের জন্য বাছাই করা হয় সেরা ২৫ জন প্রতিযোগীকে। তাদের মধ্য থেকে সেরা ১০ জন প্রতিযোগী নিয়ে শুরু হয় বিষয় ভিত্তিক পর্ব। সেখান থেকে মেধার লড়াই পেরিয়ে উঠে আসে সেরা ৭ জন। তারা হলেন- পুস্পিতা, রাফতি, মাহিন, মহারাজা, পায়েল, বিজলী ও অর্পিতা। এই সাতজন প্রতিযোগীকে নিয়ে ১১ সেপ্টেম্বর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হবে গ্র্যান্ড ফিনালে। প্রধান দুই বিচারক বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী ফেরদৌস আরা ও এস আই টুটুল। অনুষ্ঠানটির উপস্থাপনা করছেন সিজিল মির্জা ও আনিকা। প্রতিযোগিতাটি পরিকল্পনা ও পরিচালনা করছেন ইজাজ খান স্বপন।