মানুষের ভালোবাসাই বড় উপহার-ফকির আলমগীর

মানুষের ভালোবাসাই বড় উপহার-ফকির আলমগীর

948
SHARE
Fokir-Alomgir-1

মহান অমর ২১ ফেব্রুয়ারি বিশিষ্ট গণসঙ্গীতশিল্পী ফকির আলমগীরের জন্মদিন।
কথা হলো এ গুণী শিল্পীর সঙ্গে।
আনন্দ আলো: ২১ ফেব্রুয়ারি একাধারে বাঙালির জাতীয় শোক দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস। মহান এই দিনে নিজের জন্মদিন ভাবতে কেমন লাগে?
ফকির আলমগীর: অনেক গর্ববোধ করি। একুশের রক্তাক্ত দলিল বুকে নিয়ে এই জনপদে গণসঙ্গীতের সৃষ্টি হয়েছে। আমি আমার অস্থিমজ্জাতে ধারণ করে আছি সেই গণসঙ্গীত। ২১ ফেব্রæয়ারির মতো একটি ঐতিহাসিক দিনে আমার জন্ম ভাবলেই আবেগতাড়িত হই, গভীরভাবে আন্দোলিত হই। এছাড়া একুশ আমার জীবনে একটি লাকী নম্বর।
আনন্দ আলো: একুশ যে কারণে লাকী নম্বর
ফকির আলমগীর: আমার জীবনের বিভিন্ন ধাপে একুশ আষ্টেপৃষ্ঠে জড়িয়ে আছে। এই নম্বরটি আমাকে সব সময় প্রত্যয়ী করে তোলে। একুশ বিভিন্ন কারণে আমার জীবনে সৌভাগ্য বহন করে এনেছে। আমি একুশে পদক পেয়েছি। ২১ বছর বয়সে যুদ্ধে গিয়েছিলাম। উত্তরায় আমি যে বাড়িটি করেছি তার নাম রেখেছি একুশে বাড়ি।
আনন্দ আলো: এবারের জন্মদিনটা কী ভাবে পালন করবেন?
ফকির আলমগীর: এবার বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর নিজেরাই এক বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মাধ্যমে আমার জন্মদিন পালন করবে। এটা শুধু আমার জন্মদিন না, এটা গণসঙ্গীতের জন্মদিন। ২৪ ফেব্রæয়ারি শুক্রবার সন্ধ্যায় জাদুঘরের মিলনায়তনে পালিত হবে জন্মদিনের অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে বিশিষ্টজনেরা উপস্থিত থাকবেন। ২১ ফেব্রæয়ারি সকালে ঋষিজ শিল্পীগোষ্ঠী বাসায় পারিবারিকভাবে আমার জন্মদিন পালন করবে। সব সময়ই আমি যে কাজটা করি সেটা হচ্ছে পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাই। গণসঙ্গীতের বিভিন্ন সংগঠন বাড়িতে শুভেচ্ছা জানাতে আসে। জন্মদিনের শুরুটা এভাবেই হয়। এবারের শুরুটা হয়তো এমনই হবে। প্রতিবছর এই দিনে বাংলা একাডেমির মঞ্চে একুশে ফেব্রæয়ারি নিয়ে গান পরিবেশন করি। এবারেও এর ব্যত্যয় ঘটবে না। আমি সেখানে উপস্থিত থাকব একুশের গান নিয়ে।
আনন্দ আলো: সবার আগে কে আপনাকে জন্মদিনের উইশ করে?
ফকির আলমগীর: আমার স্ত্রী, তিন ছেলে, ছেলের বউরা, আমার নাতিরা সবার আগে জন্মদিনে উইশ করে। তারপর আমার ভাইবোনরা, আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধব, কাছের মানুষ এবং ভক্ত শুভানুধ্যায়ীরা শুভেচ্ছা জানায়। অনেকেই আবার ফোন করে মোবাইলে ম্যাসেজ পাঠিয়ে শুভেচ্ছা জানায়।
আনন্দ আলো: জন্মদিনে কী উপহার পেতে ভালো লাগে।
ফকির আলমগীর: আমাকে ভালোবেসে সবাই যখন জন্মদিনে উইশ করে তখন খুবই ভালো লাগে। এর চেয়ে ভালো উপহার কী হতে পারে? মানুষের ভালোবাসাই আমার কাছে বড় উপহার। তবে ফুল উপহার পেতে ভীষণ ভালো লাগে।