বীচ ফুটবলে তারকার মেলা

বীচ ফুটবলে তারকার মেলা

327
SHARE
Beach-Football

আনন্দ আলো প্রতিবেদন
পায়ের জাদুতে বল নিয়ে ছুটছেন আরিফ খান জয়। এক সময়ের তুখোড় ফুটবলার। এখন ক্রীড়া উপমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করছেন। মন্ত্রীর পায়ে পায়ে বল ছুটছে। তাকে আটকে দিতে চেষ্টা করছেন প্রতিপক্ষ দলের খেলোয়াড়রা। কিন্তু কাজটা সহজ হচ্ছে না। কথায় আছে পুরনো চাল ভাতে বাড়ে। পুরনো ফুটবলার আরিফ খান জয় এখনো যেন আগের মতোই বিদ্যুৎগতিসম্পন্ন। খেলা ভোলেননি। তাই পায়ের জাদুতে দুইবার প্রতিপক্ষের জালে ঢুকিয়ে দিলেন বল। কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে বীচ ফুটবলের উৎসবে একজন উপমন্ত্রীর ক্রীড়া নৈপুণ্যে সকলে অবাক। শুধু ক্রীড়া উপমন্ত্রী নয় ৮০ দশকের সাবেক ফুটবলারদের ক্রীড়া নৈপুণ্যও অবাক করেছে সকলকে। সেই ৮০-র দশকে এই দেশে যারা ফুটবলের ক্ষেত্রে মাঠ মাতিয়েছেন, হয়ে উঠেছিলেন ফুটবল তারকা তারাই এবারও যোগ দিয়েছিলেন রানার চ্যানেল আই বীচ ফুটবলের ৫ম আসরে। খেলোয়াড়দের অনেকের সঙ্গে তাদের পরিবারের সদস্যরাও ছিলেন। ঢাকা থেকে সবার সঙ্গে কক্সবাজারে উড়ে গিয়েছিলেন কয়েকজন মন্ত্রী, স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা এবং চ্যানেল আই পরিবারের সদস্যরা। সঙ্গে আরো ছিলেন রবীন্দ্র সঙ্গীত কন্যা রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা ও নাট্যব্যক্তিত্ব, চিত্রশিল্পী আফজাল হোসেনসহ আরো অনেকে। সব মিলিয়ে কক্সবাজার শহর ও সমুদ্র সৈকত জুড়ে সাজ সাজ রব পড়েছিল। ফুটবল আর সঙ্গীত আনন্দে জেগে উঠেছিল দেশের গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন শহর কক্সবাজার। চ্যানেল আই-এর এই অনিন্দ্য সুন্দর আয়োজনের মূল উদ্দেশ্য ছিল দেশের ঝিমিয়ে পড়া ফুটবল অঙ্গনকে একটু চাঙ্গা করা। সেই সঙ্গে পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজারকে পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে বিশে^র কাছে জনপ্রিয় করা। বাংলা ভাষার প্রথম ডিজিটাল টেলিভিশন মাধ্যম চ্যানেল আই দুইদিনব্যাপী এই ফুটবল উৎসবের সকল কার্যক্রম বিশেষভাবে ৬টি দলের ১৩টি খেলা, পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান, সকালের গানের অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করার ফলে শুধু দেশে নয়, গোটা বিশ্বে বীচ ফুটবলের ক্ষেত্রে বাংলাদেশ ব্যাপক আলোচিত হয়ে উঠেছে।
বর্ণাঢ্য উদ্বোধনী অনুষ্ঠান
৬ ফেব্রæয়ারি সকাল ১১টা। তার আগেই কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে ফুটবলপ্রেমী পর্যটকদের ভিড় দেখা দিয়েছে। ফুটবল প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী ৬ দল যথাক্রমেÑ মোহামেডান মাস্টার্স, আবাহনী মাস্টার্স, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ মাস্টার্স, ব্রাদার্স মাস্টার্স, ওয়াফ মাস্টার্স এবং চট্টগ্রাম মাস্টার্সের খেলোয়াড়রা হাজির হয়েছেন।
আনন্দমুখর পরিবেশে ফুটবল উৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন প্রধান অতিথি যুব ও ক্রীড়া উপমন্ত্রী আরিফ খান জয়। চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, টাইটেল স্পন্সর প্রতিষ্ঠান রানার এর ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ আলী হোসেন, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ কে এম ইকবাল হোসেন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্নেল (অব) ফোরকান আহমেদ, পপুলার লাইফ ইন্সুরেন্স লি.-এর এডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর শওকত আলী প্রমুখ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন।

সারাদিন শুধুই ফুটবল আনন্দ

Beach-Football-2 Beach-Football-1রানার চ্যানেল আই বীচ ফুটবল প্রতিযোগিতা উপলক্ষে কক্সবাজার শহর ফুটবল আনন্দে মেতে উঠেছিল। বিশেষ করে বিকেলে ৮০-এর দশকের তারকা ফুটবলারদের ক্রীড়া নৈপুণ্য দেখতে বিপুল সংখ্যক দর্শকের সমাগম হয়। সন্ধ্যার পর এলাকাটি রীতিমতো ফুটবল উৎসবে মাতোয়ারা হয়ে ওঠে। প্রতিযোগিতার দ্বিতীয় দিনে সকাল থেকেই দর্শক সংখ্যা বাড়তে থাকে।
চমক জাগানো ফাইনাল পর্ব
উপরে নীলাকাশ। সামনে ঝাউবন। পিছনে সীমাহীন জলরাশির ঢেউ তোলা সমুদ্র। মাঝখানে বালুর মাঠে ৭ ফেব্রæয়ারি সন্ধ্যায় শুরু হয় বীচ ফুটবলের ফাইনাল খেলা। প্রতিদ্ব›দ্বী মোহামেডান মাস্টার্স ও ব্রাদার্স মাস্টার্স। ফ্লাড লাইটের আলোতে শুরু হয় রুদ্ধশ্বাসপূর্ণ ফাইনাল প্রতিযোগিতা। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, রানার গ্রæপের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমানসহ অন্যন অতিথিরা ইতোমধ্যে ঢাকা থেকে উড়ে এসেছেন। দর্শকসারীতে বসে তারা খেলা দেখছেন। ফাইনালে মোহামেডান মাস্টার্সকে ২-১ গোলে হারিয়ে শিরোপা জিতে নেয় মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার্স। চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে ট্রফি তুলে দেন প্রধান অতিথি বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, রানার গ্রæপের চেয়ারম্যান হাফিজুর রহমান, চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজসহ আমন্ত্রিত অতিথিরা। ট্রফির পাশাপাশি চ্যাম্পিয়ন দল পেয়েছে ১ লাখ ও রানারআপ দল পেয়েছে ৫০ হাজার টাকা। আতশবাজির ঝলকানিতে ৫ম বীচ ফুটবল উৎসবের পর্দা নামে।
মনোমুগ্ধকর গালা নাইট
রানার চ্যানেল আই বীচ ফুটবল প্রতিযোগিতার আনন্দকে আরো উজ্জ্বল ও বর্ণিল করার লক্ষ্যে ৭ ফেব্রæয়ারি রাতে কক্সবাজারের একটি হোটেলে জমজমাট গালা নাইটের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে বিশিষ্ট ক্রীড়া সংগঠক হারুনুর রশীদকে ক্রীড়া ভাষ্যকার আব্দুল হামিদ সম্মাননা পদক প্রদান করা হয়। একই অনুষ্ঠানে বীচ ফুটবল প্রতিযোগিতার সেরা খেলোয়াড়, সর্বোচ্চ গোলদাতাকেও পুরস্কৃত করা হয়। বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ফুটবল প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী প্রতিটি খেলোয়াড় তাদের পরিবারের সদস্যরা, ঢাকা থেকে আগত আমন্ত্রিত অতিথিরা, মূল স্পন্সর রানারসহ অন্যান্য স্পন্সর প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা, স্থানীয় প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা এবং চ্যানেল আই পরিবারের সদস্যরা মনোমুগ্ধকর এই গালা নাইট উপভোগ করেন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন বিশিষ্ট উপস্থাপক ফারজানা ব্রাউনিয়া।