বাস্তবে রোমান্টিক হাস্যরস পছন্দ করি!

বাস্তবে রোমান্টিক হাস্যরস পছন্দ করি!

455
SHARE
Suroz

হাফিজুর রহমান সুরুজ

মোহাম্মদ তারেক: আনন্দ আলো: আপনি কি সুরুজ?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: হ্যাঁ, আমি সুরুজ। হাফিজুর রহমান সুরুজ।

আনন্দ আলো: সুরুজ নামের অর্থ কী?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: সুরুজ নামের অর্থ হচ্ছে সূর্য।

আনন্দ আলো: এযাবৎ কতজন সুরুজের সঙ্গে আপনার দেখা হয়েছে?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: সূর্য, তুর্য, রবি মিলে হাজার দশেক হবে।

আনন্দ আলো: এতো কিছু থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: একসময় ফুটবলার সালাউদ্দিনের ভক্ত ছিলাম। স্টেডিয়ামে গিয়ে তার খেলা দেখতাম। ইচ্ছা ছিল তার মতো খেলোয়াড় হওয়ার। কিন্তু হতে পারি নাই। পায়ের রগের সমস্যার কারণে সেনাবাহিনীতেও যাওয়া হলো না। তারপর নায়করাজ রাজ্জাক এর প্রেমে পড়ে যাই। তার প্রেমে পড়েই অভিনয় জগতে আসা।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ অর্থাৎ নাটকটি…

হাফিজুর রহমান সুরুজ: মুসা আহমেদের প্রযোজনায় ধারাবাহিক নাটক ‘হীরামন’ এর যুবরাজ চরিত্রটি আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

আনন্দ আলো: প্রতিদিন নিশ্চয়ই ফেসবুকে ঢু মারেন। প্রথমে কী খোঁজেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: প্রথমে খুঁজি আমার সম্পর্কে কোনো সংবাদ বা ছবি আছে কিনা? নিজের ছবিটা দেখতে ভালোই লাগে। হাঃ হাঃ হাঃ

আনন্দ আলো: শোবিজে নাটকের সঙ্গে ফাটক বলে একটা কথা চালু আছে। এই ফাটক মানে আসলে কী?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: একবার কেউ নাটকে ঢুকে গেলে সহজে বের হতে পারে না বলে ফাটক বলে। অভিনয়টা একধরনের নেশা।

আনন্দ আলো: প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে মনে মনে কী বলেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: ঘুম থেকে উঠে মনে মনে বলি সারাটাদিন আমি যেন ভালোভাবে চলি। মানুষের সঙ্গে ভালো ব্যবহার করি। আর মানুষকে যেন ভালোবাসি।

আনন্দ আলো: দেশের টিভি দেখেন?

Suroz-1হাফিজুর রহমান সুরুজ: এইডা কি কন? দেশের টিভি দেখুম মানে? অবশ্যই দেখি। প্রথমে দেখা শুরু করি বিটিভি দিয়ে। তারপর বিভিন্ন চ্যানেলের নাটক, সংবাদ দেখি।

আনন্দ আলো: ধরা যাক কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে একটি বাঘ এসে হাজির হয়ে গেল। তখন আপনি কী করবেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: বাঘ মামা আমার অভিনয় দেখতে এসেছেন প্লিজ একটু অপেক্ষা করতে হবে যে। আগে অভিনয়টা শেষ করি তারপর আপনাকে অটোগ্রাফ দেব।

আনন্দ আলো: বেশির ভাগ নাটকে আপনাকে মন্দ মানুষের চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যায় বাস্তবে আপনি কতটা মন্দ?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: বাস্তবে আমি অনেক রোমান্টিক একজন মানুষ। হাস্যরস করতে পছন্দ করি।

আনন্দ আলো: কার কথা আপনার সব সময় মনে হয়?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: অভিনয়ের গুরু হিসেবে নাট্যগুরু প্রয়াত আব্দুল্লাহ আল মামুনের কথা। তিনি এদেশের একজন খ্যাতিমান নাট্যকার, নির্দেশক ও অভিনেতা ছিলেন।

আনন্দ আলো: অভিনয় শিল্পী সংঘ থেকে আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গলগ্রহে পাঠানো হলে কাকে সঙ্গে নিতে চাইবেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: জীবনকে। যে জীবনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত শুধু প্রত্যাশা আর প্রত্যাশা।

আনন্দ আলো: আপনার অভিনয় দেখে অনেকে বিনোদিত হন। আপনার নিজের বিনোদন কীসে?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: স্ত্রী, সন্তান এবং মানুষকে ভালোবাসাই হচ্ছে আমার বিনোদন।

আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্ত্রীর কাছে বলেন না?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: এমন কোনো গোপন কথা নেই যে স্ত্রী জানেন না। আমার সব কথাই প্রকাশিত। অপ্রকাশিত কিছু নেই।

আনন্দ আলো: যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত।

হাফিজুর রহমান সুরুজ: ভাই। ইদানিং আপনাকে নাটকে অভিনয় করতে দেখি না। যারা বলে আমি তাদেরকে বলি আসলে আপনারা জীবন নিয়ে এতো ব্যস্ত থাকেন যে টিভি দেখার সুযোগই পান না। বিটিভি এবং এটিএন বাংলায় আমার অভিনীত দুটি ধারাবাহিক নাটক চলছে। একটু দেখে নিবেন, প্লিজ…

আনন্দ আলো: মিডিয়ার যে ব্যাপারটা ভালো লাগে না।

হাফিজুর রহমান সুরুজ: সময় এবং নিয়মশৃঙ্খলা অনেকেই মানেন না। এ ব্যাপারটা আমার কাছে ভালো লাগে না।

আনন্দ আলো: যে কাজ করতে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে…

হাফিজুর রহমান সুরুজ: অভিনয় ও নির্দেশনা দিতে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে।

আনন্দ আলো: নাটকের কোন সংলাপটি এখনো হৃদয়ে গেথে আছে?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: রেজাউর রহমান এজাজের লেখা, ফখরুল আবেদীন দুলালের প্রযোজনায় বিটিভির চেনাচেনা মুখ নাটকের ‘ওস্তাদ তুই না আমি’ সংলাপটি এখনো আমার হৃদয়ে নাড়া দেয়।

আনন্দ আলো: শোনা কথা আপনি নাকি স্ত্রীকে ভয় পান?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: ভয় পাই না। স্ত্রীকে প্রচন্ড ভালোবাসি, সম্মান করি।

আনন্দ আলো: ঢাকা শহর আছে, খোলা শহর নেই কেন?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: শহরের নাম যদি ঢাকা হয় তাহলে খোলা থাকবে কী করে?

আনন্দ আলো: প্রেমের নাম বেদনা। ভালোবাসার নাম কী?

হাফিজুর রহমান সুরুজ: ভালোবাসার নাম সুখ।