প্রতি বছর দেশে এসে নিয়মিত কাজ করতে চাই

প্রতি বছর দেশে এসে নিয়মিত কাজ করতে চাই

1792
SHARE

২০০৮ সালে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হওয়ার পর বেশকিছু জনপ্রিয় নাটক-টেলিফিল্ম এবং বিজ্ঞাপনে কাজ করতে দেখা যায় সৈয়দা তাজ্জিকে। মাঝে কয়েকবছর অভিনয় থেকে দূরে থাকতে হয়েছিল তাকে। অস্ট্রেলিয়ায় সংসার এবং কিছু কালচারাল প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যস্ত থাকতে হয় তাজ্জিকে। তবে সম্প্রতি তিনি দেশে এসে বেশকিছু বিজ্ঞাপনে কাজ করে শোবিজে আবারো আলোচনায় আসেন তিনি। অস্ট্রেলিয়া যাওয়ার আগে কথা হলো-তাজ্জির সঙ্গে-

আনন্দ আলো: কত বছর পর কাজ শুরু করলেন?

তাজ্জি: প্রায় পাঁচ বছর পর কাজ করলাম। একটি ভ্রবন বিষয়ক অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করি এবং অস্ট্রেলিয়াতে আশিকুর রহমান-এর পরিচালনায় গত ঈদে ‘প্রিন্সেস’ নামে একটি টেলিফিল্মে অভিনয় করি। আর সম্প্রতি দেশে এসে আরএফএল ডোর ও রিগ্যাল-এর টিভিসি করি।

আনন্দ আলো: এখন থেকে কী নিয়মিত দেশে আসা হবে?

তাজ্জি: হ্যাঁ। প্রতিবছরই আমি দেশে আসবো এবং নিয়মিত কাজ করবো। এবার আসলে অল্প দিনের ছুটিতে আসার পর সময় ঐভাবে বের করতে পারিনি। কয়েকটি নাটকে অভিনয়ের প্রসৱাব পাওয়ার পরও সেগুলোতে অভিনয় করতে পারিনি। তাই সামনের বছর মানসম্মত কিছু নাটকে অভিনয় করতে চাই।

আনন্দ আলো: এখন তো দেশের বাইরেও অনেক নাটকের শুটিং হয়ে থাকে। তাই অস্ট্রেলিয়াতে যদি কোনো নাটক কিংবা কালচারাল প্রোগ্রাম হয়, আপনাকে কী পাওয়া যাবে?

তাজ্জি: গত ঈদে পরিচালক আশিকুর রহমান ‘প্রিন্সেস’ টেলিফিল্মের শুটিং কিন্তু অস্ট্রেলিয়াতেই করেছেন। দেশ থেকে যদি কোনো নাটকের টিম কিংবা কালচারাল প্রোগ্রামের টিম যায় সেখানে যদি আমার কাজের সুযোগ থাকে অবশ্যই থাকবো।

আনন্দ আলো: আপনার উল্লেখযোগ্য কাজগুলোর কথা বলবেন-

তাজ্জি: ২০০৮ সালে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতায় প্রথম রানার আপ হওয়ার পর আমার প্রথম টিভিসি ছিল জনপ্রিয় নির্মাতা অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় আরএকে সিরামিকসের। এরপর একে একে মজো, লাক্স, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়নসহ বেশকিছু বিজ্ঞাপনে কাজ করি। পাশাপাশি চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেছিলাম। আমার অভিনীত প্রথম নাটক ছিল হুমায়ূন আহমেদ স্যারের একটি নাটক।

আনন্দ আলো: অস্ট্রেলিয়াতে কী কাজে ব্যস্ত থাকতে হয়?

তাজ্জি: অস্ট্রেলিয়াতে বাসভূমি প্রোডাকশন হাউজের সঙ্গে কাজ করছি। এই প্রযোজনা হাউজের চ্যানেলের প্রোগ্রাম ইনচার্জ হিসেবে দায়িত্ব পালন করছি।

শুরু হয়েছে লাক ভেলকি লাখ

চ্যানেল আই সবসময় ভিন্নধর্মী আইডিয়া নিয়ে কাজ করে থাকে। সেই ধারাবাহিকতায় এ চ্যানেলটিতে  শোটি উপস্থাপনা করছেন চিত্রনায়ক রিয়াজ ও অভিনেত্রী সোহানা সাবা। এ গেম শোর প্রযোজক আ কা রেজা গাালিব ও নির্বাহী প্রযোজক ইসমত আরা ইতি। অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে ইসমত আরা ইতি বলেন, ‘লাক ভেলকি লাখ’ ব্যতিক্রমী গেম শো। নামের মধ্যেই একটা অন্যরকম ব্যাপার আছে। এই গেম শোতে যাঁরা অংশগ্রহণ করছেন তাঁরা প্রথমদিনেই এক লাখ টাকা করে জিততে পারবেন। আমরা মূলত সাধারণ মানুষকেই আমন্ত্রণ জানাচ্ছি। ইতোমধ্যে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। ২৬ পর্বের এই গেম শোটি চ্যানেল আইতে প্রচার হচ্ছে প্রতি বুধ, বৃহস্পতি ও শুক্রবার রাত ৭.৫০ মিনিটে। টাইটেল স্পন্সর করেছে কোকোমো বিস্কুট। কোকোমো বিস্কুটকে বাংলাদেশের গণ্ডি পেরিয়ে বহিঃবিশ্বে ছড়িয়ে দেয়ার লক্ষ্যে কোম্পানিটি নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। সে লক্ষ্যেই প্রতিষ্ঠানটি চ্যানেল আই-এর নতুন অনুষ্ঠান ‘লাক ভেলকি লাখ’ এ সম্পৃক্ত হয়েছে।

অস্কারে যাচ্ছে ‘অজ্ঞাতনামা’

অস্কারের ৮৯তম আসরের বিদেশি ভাষার ছবির বিভাগে বাংলাদেশ থেকে প্রতিযোগিতা করবে তৌকীর আহমেদ পরিচালিত ইমপ্রেস টেলিফিল্ম-এর ‘অজ্ঞাতনামা’। সম্প্রতি নগরীর একটি রেসেৱারাঁয় অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন অস্কার বাংলাদেশ কমিটির চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান খান। বাংলাদেশ ফেডারেশন ফিল্ম সোসাইটিজ-এর আয়োজনে এ সংবাদ সম্মেলনের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আবু মুসা দেবু, পরিচালক দেলোয়ার জাহান ঝন্টু, চলচ্চিত্র নির্মাতা শামীম আকতার। প্রতিবছরের মতো এবারও অস্কারের বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগে অংশগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ ফেডারেশন অব ফিল্ম সোসাইটিজ ৯ সদস্যের একটি জুরি বোর্ড গঠন করে। এ বছর বাংলাদেশ ফেডারেশন ফিল্ম সোসাইটিজের উদ্যোগে গঠিত চলচ্চিত্র বাছাই প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করে মোট চারটি ছবি। এগুলো ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড প্রযোজিত তৌকীর আহমেদের ‘অজ্ঞাতনামা’, মেহের আফরোজ শাওনের ‘কৃষ্ণপক্ষ’, সুমন ধরের ‘দর্পণে বিসর্জন’ এবং খনা টকিজ প্রযোজিত রুবাইয়াত হোসেনের ‘আন্ডার কনস্ট্রাকশন’। সমকালীন বিশ্বে অভিবাসী সংকট, ছবির নির্মাণ শৈলী ও গল্পকে প্রধান্য দিয়েই ‘অজ্ঞাতনামা’ ছবিটিকে  মনোনীত করা হয়েছে বলে জানান অস্কার বাংলাদেশ কমিটির চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান খান।  ৮৯তম অস্কার বাংলাদেশ কমিটির মিডিয়া সমন্বয়ক রবিন শামস জানান, ৯ সদস্যের বাছাই কমিটি চলচ্চিত্র চারটি প্রদর্শনের পর আগামী অস্কারের বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র বিভাগে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করতে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড প্রযোজিত ‘অজ্ঞাতনামা’কে মনোনীত করে। ‘অজ্ঞাতনামা’ ছবিতে অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম, ফজলুর রহমান বাবু, শহীদুজ্জামান সেলিম, নিপুন, শতাব্দী ওয়াদুদ, শাহেদ আলী, মোমেনা চৌধুরী, আবুল হায়াত, শাহেদ শরীফ খান, জুঁই করিম, সুজাত শিমুল, নাজমুল হুদা বাচ্চু, শিশুশিল্পী আপন, সায়েমসহ আরো অনেকে।