প্রজাপতি প্রজাপতি কোথায় পেলে ভাই এমন রঙিন পাখা

প্রজাপতি প্রজাপতি কোথায় পেলে ভাই এমন রঙিন পাখা

658
0
SHARE

আলী ইমাম: এখন বইমেলায় এসে এর বিশাল সম্প্রসারন দেখে একেবারে অভিভূত হয়ে যাই। ঝলমলে প্রচ্ছদের নতুন বইয়ের সম্ভার নিয়ে কত যে দোকান। সারি বেধে জনস্রোত আসছে বইমেলায়। স্টলে স্টলে উপচে পড়ছে মানুষের ভিড়। আগ্রহী পাঠকেরা তাদের পছন্দের বইগুলো কিনে নিচ্ছে। শিশু কিশোরেরাও ভীষণ উৎসাহ নিয়ে বইয়ের জগতে হারিয়ে যাচ্ছে। সবটা মিলিয়ে স্বপ্ন জাগানিয়া এক ব্যাপার। এই বইমেলায় সুইডেন থেকে এসেছেন সেখানের একজন প্রখ্যাত কবি এবং তাদের বইমেলার একজন সংগঠক। আমাদের বইমেলা দেখে বেশ উচ্ছসিত হয়ে বললেন, বইয়ের প্রতি এত মানুষের ভালোবাসা তারা আর পৃথিবীতে কোথাও দেখেন নি। এই বইমেলা এখন হয়ে গেছে বাঙ্গালীর সব চাইতে বড় প্রাণের উৎসব। বারমাসে তের পাবন এর দেশে একুশে গ্রন্থমেলা এক নতুন মাত্রা সংযোজন করেছে, মনন চর্চার পাশাপাশি এখানে ছড়িয়ে পড়েছে স্বপ্নের ছোঁয়া। বর্তমানের এই বইমেলার বিশালত্ব দেখে আমার মনে পড়ছে তার উৎসের কথা। যেখানে আঠারো বছরের আমি সম্পৃক্ত হয়েছিলাম। সে উনিষশো আটষট্টি সালের কথা। জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্র এক বই প্রদর্শনীর আয়োজন করেছিল ঢাকার চারু ও কারু মহাবিদ্যালয়ে। গ্রন্থকেন্দ্রের তৎকালীন পরিচালক প্রখ্যাত কথাসাহিত্যিক সরদার জয়েন উদ্দিনের এ বিষয়ে প্রবল উৎসাহ ছিল। আর ছিল প্রদর্শনী ঘিরে গ্রন্থকেন্দ্রের তখনকার উর্দ্ধতন কর্মকর্তা রশীদ হায়দারের নান্দনিক পরিকল্পনা। তিনি প্রদর্শনীর সজ্জার কাজে আমাকে জড়িয়ে ফেললেন। সিদ্ধান্ত হল আর্ট কলেজের প্রধান মিলনায়তনটির দেয়ালে দেয়ালে বিভিন্ন বইয়ের প্রচ্ছদ লাগিয়ে সজ্জিত করা হবে। যোগাড় করা হল প্রচুর বইয়ের প্রচ্ছদ। রশীদ হায়দার বললেন কাইয়ূম চৌধুরির প্রচ্ছদগুলোকে গুরুত্ব দিয়ে সাজাতে। তখন প্রকাশনার জগতে প্রচ্ছদ শিল্পে এখনকার মত এত বর্ণবিভা ছিল না। কিন্তু কাইয়ূম চৌধুরি অসাধারণভাবে বইয়ের প্রচ্ছদে চিত্রকলার সূষমাকে প্রকাশ করেছিলেন। মনে আছে, প্রদর্শনী উদ্বোধনের আগের রাতে সারারাত জেগে রশীদ হায়দার ভাই আর আমি কাজ করেছিলাম। আমরা এ ধরনের একটি নান্দনিক কাজ করতে পেরে ভীষণ আনন্দ পেয়েছিলাম। আমাদের উদ্দেশ্য ছিল বইয়ের আকর্ষণীয় প্রচ্ছদকে মানুষের কাছে উপস্থাপিত করা। রাত জাগার সেই স্মৃতিকে আমি কখনও ভুলতে পারব না। আজ যখন বইমেলায় এসে চারদিকে থরে থরে প্রজাপতির রঙিন ডানার মত প্রচ্ছদ সংবলিত বইগুলোকে দেখি, তখন মনে পড়ে যায় শুঁয়োপোকার মতন প্রকাশনা শিল্পের সেই বইগুলোর কথা। যেগুলোকে সাজিয়েই আমরা প্রদর্শনীর আয়োজন করেছিলাম। আসলে শুঁয়োপোকা থেকেই তো জন্ম হয় প্রজাপতির, আমার তো বই মেলায় বর্ণাঢ্য ঝলমলে বইগুলোর দিকে তাকিয়ে বলতে ইচ্ছে করে, “প্রজাপতি প্রজাপতি, প্রজাপতি প্রজাপতি কোথায় পেলে ভাই এমন রঙিন পাখা”।