নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করব! -হিল্লোল

নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করব! -হিল্লোল

501
SHARE

মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: আপনি কী হিল্লোল?

হিল্লোল: হ্যাঁ। আমি আদনান ফারুক হিল্লোল

আনন্দ আলো: হিল্লোল নামের অর্থ কী?

হিল্লোল: হিল্লোল নামের অর্থ মৃদঙ্গ বাতাস

আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

হিল্লোল: ছোটবেলা থেকে অভিনয়ের প্রতি দুর্বলতা ছিল বলেই অভিনয়ে আসা।

আনন্দ আলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজটি অর্থাৎ কোন নাটকটি?

হিল্লোল: পান্থ শাহরিয়ারের রচনায়, অঞ্জন রেজা পরিচালিত ‘স্পর্শের বাইরে’ নাটকটি আমার অভিনয় জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়।

আনন্দ আলো: প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে মনে মনে কী বলেন?

হিল্লোল: মনে মনে বলি সারাদিন আমি যেন ভালো হয়ে চলি ।

আনন্দ আলো: অভিনয় ছাড়া আর যা ভালো করতে পারেন?

হিল্লোল: উপস্থাপনা করতে পারি। ব্যবসা কন্ট্রোল করতে পারি। এমন কি ভালো রান্নাও করতে পারি।

আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি আর নওশীন এক সঙ্গে শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনাদের সামনে একটা রয়েল বেঙ্গল টাইগার হাজির হয়ে গেল তখন আপনি কী করবেন?

হিল্লোল: বাঘ মামা, আমাগো স্বামী-স্ত্রীর ইন্টারভিউ নিতে আইছেন? প্লিজ বসেন শর্ট দিয়া লই। তারপর আপনার কাছে আমরা ইন্টারভিউ দিমু।

আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গল গ্রহে পাঠানো হলে কাকে সঙ্গে নিতে চাইবেন?

হিল্লোল: মঙ্গলগ্রহে বউকে ছাড়া অন্য কাউকে নেয়া যাবে না। কারণ বউ মাইন্ড করবে।

আনন্দ আলো: যে প্রশ্ন শুনতে শুনতে ক্লান্ত…

হিল্লোল: আপনি এখন নাটক কম করেন কেন?

আনন্দ আলো: আপনি নাকি জেগে জেগে স্বপ্ন দেখেন। ঘটনা কী?

হিল্লোল: ঘটনা সত্যি। জেগে জেগে স্বপ্ন দেখার মতো আনন্দ আর নাই। কারণ জেগে জেগে স্বপ্ন দেখতে কোনো ট্যাক্স লাগে না।

আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে প্রচন্ড হেসেছেন…

হিল্লোল: হুমায়ূন আহমেদের ‘বহুব্রিহী’ নাটকটি দেখে আমি প্রচন্ড হেসেছি।

আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে কেঁদেছেন…

হিল্লোল: হুমায়ূন আহমেদের ‘কোথাও কেউ নেই’ আমার খুবই পছন্দের নাটক। যতবার দেখেছি ততবারই মনে মনে কেঁদেছি।

আনন্দ আলো: যাকে অথবা যাদের দেখে এখনো অভিনয় শিখি…

হিল্লোল: সমস্ত ভালো অভিনেতারা অভিনয় দেখে এখনো অভিনয় শিখি।

আনন্দ আলো: শোনা কথা আপনি নাকি স্ত্রীকে ভয় পান?

Hillol-1হিল্লোল: ভীষণ ভয় পাই। সেটা প্রচন্ড ভালোবাসার কারণে হতে পারে। ভালোবাসার মানুষকে ভয় পাওয়া মন্দ কিছু নয়।

আনন্দ আলো: গোপন কোন কথাটি স্ত্রীকে বলেন না?

হিল্লোল: কোনো মেয়ের সঙ্গে আড্ডা দিয়ে আসলে সেই কথা গোপন রাখি।

আনন্দ আলো: সংসারে কে বেশি সেক্রিফাইস করে আপনার স্ত্রী নাকি আপনি?

হিল্লোল: সংসারে আমি আর নওশীন দুজনই সেক্রিফাইস করি।

আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দী করে রাখার মতো…

হিল্লোল: টেলিভিশনে প্রথম যখন নাটকে অভিনয় শুরু করি। অভিনেতা হিসেবে হিল্লোলকে মানুষ চিনতে শুরু করে। সেই সময়টা ফ্রেমে বন্দী রাখার মতো।

আনন্দ আলো: খুব রেগে যান যখন…

হিল্লোল: যখন দেখি নিয়মের মধ্যে কোনো কিছুই হচ্ছে না। চারদিকে অরাজকতা, কেউ কোনো কিছু না শিখে কাজ করতে আসে। তখন খুব রেগে যাই।

আনন্দ আলো: আপনার অভিনয় দেখে অনেকে বিনোদন পান। আপনার বিনোদন কিসে?

হিল্লোল: আমার বিনোদন অন্যের ভালো অভিনয় দেখে।

আনন্দ আলো: একদিন হঠাৎ দেখলেন আপনি ছেলে থেকে মেয়ে হয়ে গেলেন। তখন কী করবেন?

হিল্লোল: মেয়ে হয়ে গেলে কী আর করা নায়িকার চরিত্রে অভিনয় করবো।