নাটকের মান আরও কমে যাবে

নাটকের মান আরও কমে যাবে

644
SHARE

এ সময়ের ব্যস্ত অভিনেতা মাজনুন মিজান। ছোটপর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায়ও অভিনয় করছেন তিনি। অভিনয় ও সমসাময়িক বিষয় নিয়ে কথা হলো- তার সঙ্গে।

আনন্দ আলো: এখনকার ব্যস্ততা কী নিয়ে?

মাজনুন মিজান: কিছু খণ্ড ও ধারাবাহিক নাটকের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত রয়েছি। প্রচার চলতি ধারাবাহিকের পাশাপাশি নতুন কিছু ধারাবাহিকেও কাজ করছি। একাধিক চ্যানেলে আমার অভিনীত বেশকিছু ধারাবাহিক নাটক নিয়মিত প্রচার হচ্ছে। এরমধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে- আরটিভিতে সাগর জাহান পরিচালিত ‘এ কূলে আমি ঐ কূলে তুমি’। এছাড়া বাংলাভিশনে অঞ্জন আইচের ‘মেঘের পরে মেঘ জমেছে’ ও ‘স্বর্ণলতা’ শিরোনামের একটি ধারাবাহিক প্রচার হচ্ছে।

আনন্দ আলো: চলচ্চিত্রের খবর কী?

মাজনুন মিজান: শামিম আহমেদ রনীর পরবর্তী ছবিতে কাজ করার কথা রয়েছে। অন্যদিকে আমার অভিনীত ‘ভুবন মাঝি’ ছবিটি আসছে ডিসেম্বরে মুক্তি পাবে। ছবিটিতে কলকাতার পরমব্রতও অভিনয় করেছেন। ছবিতে আমার আর পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের একটা জার্নি রয়েছে। পরমব্রতের বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে অনেক ভালো ধারণা আছে। আমরা ছবির শুটিংয়ের সময় অনেক গল্প করেছি। ছবিটি যারা দেখবেন তাদের ভালো লাগবে।

আনন্দ আলো: বর্তমানের নাটক নিয়ে আপনার মন্তব্য…

মাজনুন মিজান: আমাদের নাটকের বাজার খুব একটা ভালো না। যারা অভিনয় পারছে না তারাও করছে। আর যারা মেধাবী অভিনয়শিল্পী তারা লবিং এর কারণে পিছিয়ে যাচ্ছে। এর উপর এজেন্সির বাড়াবাড়ি তো রয়েছেই। এর কারণে গল্প অনুযায়ী শিল্পী নির্বাচন করা সম্ভব হয় না। টিভি চ্যানেলের কর্তৃপক্ষের এই বিষয়গুলোর প্রতি নজর দেয়া প্রয়োজন। তা না হলে দেশীয় নাটকের মান আরও কমে যাবে।

তাহাদের একদিন

সদ্য বিবাহিত দম্পতি তারা। বিয়ের পর কোথাও হানিমুনে যাওয়া হয়নি। নাঈমের ব্যবসায়িক ব্যস্ততার জন্যই কোথাও না যাওয়া। সে যাই হোক। বিয়ের পর দুজনেই আছে বেশ সুখে। অফিস শেষ করে সোজা নিসার কাছে চলে আসে নাঈম। কিন্তু আসেৱ আসেৱ সবকিছু বদলে যেতে থাকে। শেষমেশ দেখা দেয় অন্য ধরনের সমস্যা। পাঠক, এটা নাঈম-নিসার সত্য জীবনের ঘটনা নয়। ‘দুজনে’ শিরোনামের নাটকে তাদেরকে এমন চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে। জহির করিমের রচনা ও রাহাত মাহমুদের পরিচালনায় নাটকটির সম্প্রতি শুটিং শেষ হয়েছে। নাঈম বলেন, ‘বিয়ের পর স্বামী-স্ত্রীর মধ্যকার সম্পর্ক নাটকটিতে খুব সুন্দরভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। অনেক সময় অল্প কিছু বিষয় নিয়ে বিরাট ঘটনা যে ঘটে যায় তাও দেখানো হয়েছে ‘দুজনে’ নাটকটিতে। দর্শকরা নাটকটি দেখলেই বুঝতে পারবেন।’ নিসা বলেন, ‘নাটকের গল্পটা খুব সুন্দর। সংসার জীবনের নানান ঘটনা এতে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। নাঈম ভাইয়ের সঙ্গে কাজ করে বেশ ভালো লেগেছে। আশা করি দর্শকদেরও ভালো লাগবে।’ খুব শিগগিরই ‘দুজনে’ নাটকটি একটি বেসরকারি টিভি চ্যানেলে প্রচার হবে বলে জানান নির্মাতা।

আবার আসছে আলিফ লায়লা

আরব্য রজনীর গল্প অবলম্বনে নির্মিত তুমুল জনপ্রিয় ধারাবাহিক ‘আলিফ লায়লা’ আবারও দেখা যাবে দেশীয় টিভি পর্দায়। আরব রূপকথার এ প্রশংসিত সিরিজটি আনছে গাজী টেলিভিশন। আগামী মাস থেকে এটি প্রচার করবে বলে নিশ্চিত করেছে টেলিভিশনটির কর্তৃপক্ষ। তাই বিটিভি ও একুশে টেলিভিশনের পর দেশের তৃতীয় চ্যানেল হিসেবে এটি সম্প্রচার করতে যাচ্ছে জিটিভি। তারা জানায়, ভারতীয় প্রতিষ্ঠান সাগর ফিল্মস প্রাইভেট লিমিটেডের নির্মিত পুরনো সে সিরিজটিরই প্রচার করবে জিটিভি। সপ্তাহে একাধিক দিন এটি প্রচার হবে। আলিফ লায়লা ইসলামী সভ্যতার অন্যতম একটি সাহিত্য নিদর্শন। খলিফা হারুন আর রশীদের খিলাফতকালে রাজধানী বাগদাদের বিখ্যাত সাহিত্যিকরা লেখেন এই কাহিনি। যা পরবর্তীতে ‘আরব্য রজনী’ নামে সারাবিশ্বে খ্যাতি অর্জন করে। এই সিরিজের প্রধান গল্প ও চরিত্রগুলোর মধ্যে রয়েছে- আলাদিনের জাদুর চেরাগ, আলী বাবা ও চল্লিশ চোর, আল্লাহর উপর আস্থাবান সাহসী নাবিক সিন্দাবাদের যাত্রা, সাহসী যুবক জালাল তালেবর, অত্যাচারী ডাকাত কেহেরমান এবং মায়াময়ী জাদুকরী মালিকা হামিরার কাহিনি।