Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড দু’মাধ্যমেই টিকে থাকতে চাই

দু’মাধ্যমেই টিকে থাকতে চাই

SHARE
Mousumi-Hamid

ছোট ও বড়পর্দায় সমানতালে অভিনয় করছেন মৌসুমী হামিদ। নতুন চলচ্চিত্রে যুক্তও হয়ছেন তিনি। অভিনয় ও সমসাময়িক ব্যসত্মতা নিয়ে কথা বলেছেন মৌসুমী হামিদ-

আনন্দ আলো: বর্তমানে কী নিয়ে ব্যসত্ম?

মৌসুমী হামিদ: সম্প্রতি আমি ফিরোজ খান প্রিন্সের ‘শোধ প্রতিশোধ’ ছবির কাজ শেষ করলাম। এতে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছেন কাজী মারুফ। এ ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন মৌমিতা মৌ, সাদিয়া আফরিন, কাবিলা, ইলিয়াস কোবরা, হারুন কিসিঞ্জার, মর্জিনা ও মিজু আহমেদ। এখানে আমার চরিত্রটি বেশ চ্যালেঞ্জিং। ছবিটির গল্প অনেক ভালো। সামাজিক ও অ্যাকশনধর্মী এ ছবিতে মোট পাঁচটি গান রয়েছে।

আনন্দ আলো: আর অন্য ছবিগুলোর কী খবর?

মৌসুমী হামিদ: কিছুদিন আগে আমার অভিনীত ‘ব্ল্যাকমানি’ ছবিটি মুক্তি পায়। বর্তমানে আমার হাতে চারটি ছবি রয়েছে। এগুলো হচ্ছে ‘শোধ প্রতিশোধ’, সাফি উদ্দিন সাফির ‘পূর্ণ্যদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী ২’, প্রশানত্ম অধিকারীর ‘হাডসনের বন্দুক’ ও সুমন আনোয়ারের ‘কয়লা’। এর মধ্যে ‘পূর্ণ্যদৈর্ঘ্য প্রেম কাহিনী ২’ খুব শিগগিরই মুক্তি পাবে।

আনন্দ আলো: আর ছোটপর্দায় ব্যসত্মতা…

মৌসুমী হামিদ: বর্তমানে আমার অভিনীত বেশ ক’টি ধারাবাহিক নাটক বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। এগুলো হচ্ছে আল হাজেনের ‘অলসপুর’, কমল সরকারের ‘বাই ফোকাল’, রায়হান খানের ‘অর্কিড’, আফসানা মিমির ‘সাতটি তারার তিমির’, বাশার জর্জিশের ‘উজান গাঙ্গের নাইয়া’ ও অরণ্য আনোয়ারের ‘বহুরূপী’।

আনন্দ আলো: নাটক নাকি চলচ্চিত্র- কোন মাধ্যমে স্থায়ী হতে চান?

মৌসুমী হামিদ: আমি আসলে দু’টো মাধ্যমের কোনটাকে ছোট কিংবা কোনটাকে বড় করে দেখি না। আমি যেহেতু একজন অভিনেত্রী তাই অভিনয়টাকে ভালোবাসি। আরেকটা বিষয় হচ্ছে -চলচ্চিত্র অভিনয়ের সবচেয়ে বড় মাধ্যম এটা মানছি। তবে আমি প্রথমে নাটকের মাধ্যমে অভিনয় শিখেছি, পরে চলচ্চিত্রে তা শতভাগ কাজে লাগানোর চেষ্টা করছি। কারণ প্রত্যেক শিল্পীর স্বপ্ন হচ্ছে চলচ্চিত্র। তাই সবার মতো আমারও স্বপ্ন চলচ্চিত্রে নিয়মিত অভিনয় করা। তাই বলে নাটককে বাদ দিয়ে নয়। আমি দু’মাধ্যমেই কাজ করতে চাই।

নববর্ষে সজল-মমর বিয়ে!

পাঠক, শিরোনামটি দেখে চমকে উঠবেন না। এটা সজল-মম’র বাসত্মব জীবনের গল্প নয়। নাটকে সজল বিয়ে করছেন জাকিয়া বারী মমকে। নাটকের গল্পে দেখা যাবে দীর্ঘদিনের জানাশোনা, বন্ধুত্ব, অতঃপর প্রেম ও সবশেষে বিয়ের সিদ্ধানত্ম। সবকিছু এতোদিন খুব কৌশলে আড়াল করে রেখেছিলেন দু’জন। গুজব ছিলো, এলাকার যুবক কল্যাণের সঙ্গে মমর প্রেম। তেমনটিই জানতেন অনেকে। কল্যাণই প্রকাশ্যে বলেছিলেন, মমকে ভালোবাসার কথা। কিন্তু সব সমীকরণ পাল্টে নতুন খবর এলো- বাংলা নতুন বছরেই বিয়ে করতে যাচ্ছেন মম-সজল। নববর্ষের জন্য নির্মাণাধীন টেলিছবি ‘তুমিময়’-এর গল্প এমনই। জাফরীন সাদিয়ার গল্প থেকে এটি লিখেছেন রুম্মান রশীদ খান। নুজহাত আলভী আহমেদের পরিচালনায় এতে আরও অভিনয় করেছেন মাহাদী হাসান পিয়াল। সম্প্রতি নগরীর বিভিন্ন স্থানে নাটকটির শুটিং শেষ হয়। নির্মাতা জানান, আসছে পহেলা বৈশাখে একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচার হবে ‘তুমিময়’।

৫০০ পর্বে সিনেটিউন

৫০০ পর্বের মাইলফলক স্পর্শ করছে চলচ্চিত্রের গানের অনুষ্ঠান ‘ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী সিনেটিউন’। সোম থেকে বৃহস্পতিবার প্রতিদিন দুপুর ২ টা ৩০ মিনিটে মাছরাঙা টেলিভিশনে প্রচার হচ্ছে অনুষ্ঠানটি। গত ৭ মার্চ প্রচার হওয়া ৫০০তম পর্বে বিশেষভাবে সাজানো ছিলো সময়ের জনপ্রিয় কয়েকটি চলচ্চিত্রের গান নিয়ে। অনুষ্ঠানটি প্রযোজনা করেছেন রনি বিকাশ বড়ুয়া।

বিজ্ঞাপনে মডেল হলেন শামীম

Shamimতিনি মূলত কর্পোরেট জগতের মানুষ। তবে শখের বসে অনেক সময় তাকে মডেলিং-এও দেখা যায়। বেশকিছু বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন কর্পোরেট জগতের বাসিন্দা শামীম আহমেদ। তারই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি ফ্রেশ ই-স্টোরের একটি বিজ্ঞাপনে মডেল হয়েছেন। ফ্রেশ কোম্পানির অনলাইন শপিং-এর এই বিজ্ঞাপনটি নির্দেশনা দিয়েছেন অঙ্কুর। নগরীর কোক স্টুডিওতে এর শুটিং সম্পন্ন হয়ে বর্তমানে বিজ্ঞাপনটি বিভিন্ন চ্যানেলে প্রচার হচ্ছে। শামীম বলেন, ‘বিজ্ঞাপনে মডলিং না করলেও আমার কাজ কিন্তু বেশি বিজ্ঞাপন নিয়েই। বিজ্ঞাপন নির্মাণ এবং সেগুলো প্রচারের দায়িত্ব পালন করে আসছি অনেক বছর ধরেই। তবে মাঝেমধ্যে কিছু চরিত্রে পারফর্ম করার ইচ্ছা জাগে। তাই তেমন চরিত্র পেলেই সেসব বিজ্ঞাপনে কাজ করি। ঠিক তেমনি একটি বিজ্ঞাপন ফ্রেশ ই-স্টোরের বিজ্ঞাপন।’ এই বিজ্ঞাপনটি ছাড়াও শামীম আহমেদ এর আগে ফ্রেশ মিল্কসহ আরো কিছু বিজ্ঞাপনে মডেল হন। তিনি সূচনা অ্যাডভার্টাইজিং এর সিইও।