Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড তিন মাধ্যমের চুমকি!

তিন মাধ্যমের চুমকি!

SHARE
Chumki

অভিনেত্রী-নির্মাতা নাজনিন হাসান চুমকি। ক্যারিয়ারের শুরু থেকে মঞ্চ, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। মঞ্চের একাধিক সাড়া জাগানো নাটকে অভিনয় করেছেন। এমনকি নিজের একক অভিনীত মঞ্চ নাটকের নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। আর ‘ঘানি’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে পেয়েছেন সেরা অভিনেত্রীর জাতীয় পুরস্কার। কথা হলো তার সঙ্গে-

আনন্দ আলো: সম্প্রতি কী কাজ করলেন?

চুমকি: সম্প্রতি সিলেটে ‘সীতার অগ্নিপরীক্ষা’র শো করেছি। সিলেটের নামকরা নাট্যদল মণিপুরী থিয়েটার তিন দিনব্যাপী একক নাটকের উৎসব করেছিল। অদ্বিতীয়া শিরোনামের এ নাট্যোৎসবে দেশের ছয়টি একক নাটক প্রদর্শিত হয়েছে। উৎসবের সমাপনী দিনে আমার একক অভিনীত সীতার অগ্নিপরীক্ষা নাটকটির ৪৫তম মঞ্চায়ন করেছি। আমি এই শোটি নিয়ে খুবই উত্তেজিত ছিলাম। যেহেতু আমাকে একাই অভিনয় করতে হয়, তাই বেশ কদিন শুটিং না করে এই নাটকের মহড়া করেছি। অবশেষে আমার কষ্ট সার্থক হয়েছে। ঢাকার মতো সিলেটের দর্শকও নাটকটি দারুণ পছন্দ করেছেন।

আনন্দ আলো: টিভি নাটকের কী খবর?

চুমকি: বর্তমানে আমার অভিনীত দুটি ধারাবাহিক নাটক প্রচার হচ্ছে। আরটিভিতে প্রচার হচ্ছে ‘বন্ধু বটে’ ও  বিটিভিতে প্রচার হচ্ছে ‘জেনারেশন’ নাটকটি। দুটি ধারাবাহিকে আমি দুটি ভিন্নধর্মী চরিত্রে অভিনয় করেছি।

আনন্দ আলো: চলচ্চিত্রেও নাকি অভিনয় করছেন?

চুমকি: স¤প্রতি নতুন একটি চলচ্চিত্রের শুটিংয়ে অংশ নিয়েছি। ধ্রæব হাসান পরিচালিত চলচ্চিত্রটির নাম ‘দাহকাল’। সম্পূর্ণ মৌলিক গল্পের একটি ছবি এটি। আমি একজন বড়লোক ব্যবসায়ীর বউয়ের চরিত্রে অভিনয় করেছি। আমার স্বামীর চরিত্রে রয়েছেন শতাব্দী ওয়াদুদ। এছাড়া আছেন ফারিন, শাকিল, তারিক আনাম খান প্রমুখ। আমরা পাবনায় শুটিং করেছি। এরপর সুনামগঞ্জ ও ফেনীতে ছবিটির শুটিং হবে।

আনন্দ আলো: পরিচালনার কী খবর?

চুমকি: সর্বশেষ আমি ২৬ পর্বের ধারাবাহিক নাটক ‘তিলোত্তমা’ নির্মাণ করেছি। কয়েকজন নারীর গল্প এটি। অভিনয় করেছেন তৌকীর আহমেদ, রওনক হাসান, হৃদি হক, সোহানা সাবা, তানজিকা, নাদিয়া মিম, তৌসিফ মাহবুব প্রমুখ। এটি বাংলা টিভিতে প্রচার হয়েছে। এখন নতুন নাটক রচনা ও পরিচালনার কথা ভাবছি। দেখা যাক কী হয়।

 

তরুণদের জন্য হ্যালো চেক!

তরুণদের জন্য এটিএন বাংলায় স¤প্রচার শুরু হয়েছে নতুন টিভি অনুষ্ঠান ‘হ্যালো চেক!’। প্রতি শনিবার রাত ৯ টায় প্রচার হচ্ছে এবং পুনঃপ্রচারিত হচ্ছে রবিবার সকাল ৮.৪৫ মিনিটে। অনুষ্ঠানের লক্ষ্য তরুণদের জন্য এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা যেখানে দেশের সব প্রান্তের তরুণরা তাদের চিন্তাভাবনা শেয়ার করার সুযোগ পাচ্ছে।

‘হ্যালো চেক!’ এর বিভিন্ন পর্বে মূলত তরুণদের আশা-আকাক্সক্ষা, ভয়, হতাশা ও স্বপ্নের বিষয়গুলো উঠে এসেছে। তরুণদের এই গল্পগুলো উঠিয়ে আনতে ‘হ্যালো চেক!’ এর চার তরুণ প্রেজেন্টার অতসী, বাসমা, আবির ও ফারহান ঘুরে বেরিয়েছে দেশের নানা প্রান্তে। কখনও ফরিদপুরের ফটোস্টুডিও চালানো নারী উদ্যোক্তার কথা আবার কখনও মহাকাশে ন্যানো স্যাটেলাইট পাঠানো তরুণদের স্বপ্নজয়ের গল্প বলছে ‘হ্যালো চেক!’। সেই সাথে সমাজের প্রচলিত নানা ধারণাকে চ্যালেঞ্জ করা মজার মজার সব সোশ্যাল এক্সপেরিমেন্ট। ‘হ্যালো চেক!’ এর স¤প্রচার উপলক্ষে সম্প্রতি বিএফডিসি’র ৮ নম্বর ফ্লোরে সংবাদ সম্মেলন ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এটিএন বাংলা ও এটিএন নিউজের চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তর আইইএম ইউনিটের উপ-পরিচালক (পিএম) জাকিয়া আক্তার। রক্তব্য রাখেন এটিএন বাংলার অনুষ্ঠান বিভাগের উপদেষ্টা নওয়াজীশ আলী খান এবং বিবিসি মিডিয়া এ্যাকশন-এর কান্ট্রি ডিরেক্টর রিচার্ড লেইস। বিবিসি মিডিয়া এ্যাকশন আয়োজিত এই অনুষ্ঠানটি নির্মাণ করা হয়েছে রুটগার্স এবং আইকিয়া ফাউন্ডেশনের সহায়তায়।

 

ডিটেকটিভ লাভলু মিয়া

রহস্য উন্মোচন ও সত্য উদঘাটনে ছুটে বেড়াচ্ছেন গোয়েন্দা লাভলু মিয়া। এবার তাকে অদৃশ্য শত্রæদের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে রহস্যঘেরা একটি জমিদার বাড়ি। যে বাড়িটির শেষ বংশধর সুদীপ্ত রায় চৌধুরী। মৌলিক গোয়েন্দা গল্পের ওয়েব সিরিজ ‘ডিটেকটিভ লাভলু মিয়া’র এই গল্পের নাম ‘জমিদার বাড়ি’। সেখানে সুদীপ্ত রায় চৌধুরীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন অভিনেতা নিলয়। বাংলাঢোল প্রযোজিত সাকিব রায়হানের লেখা ও পরিচালনায় চলমান ওয়েব সিরিজে এবার অপেক্ষা করছে জমজমাট গল্প। এই সিরিজে ডিটেকটিভ লাভলু মিয়ার চরিত্রে অভিনয় করছেন বরেণ্য অভিনেতা আজাদ আবুল কালাম। প্রথমবারের মতো গোয়েন্দা ওয়েব সিরিজে অভিনয় প্রসঙ্গে নিলয় বলেন, ‘সাকিব ভাইয়ের সঙ্গে আগেও কাজ করেছি। ওয়েব সিরিজটির রহস্য গল্প আমার বেশ পছন্দ হয়েছে। কাজ করে স্বস্তিবোধ করেছি। আমার মনে হয় আমাদের দর্শক টেলিভিশনের পাশাপাশি বিভিন্ন ভিডিও স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম ও ইউটিউবের প্রতিও ঝুঁকছেন। সব মাধ্যমের দর্শকের কথা ভেবেই অভিনয় করেছি। আশা করছি দর্শক সুদীপ্ত রায় চৌধুরীর অভিনয় উপভোগ করবেন।’