তবুও যে মন ভরে না!

তবুও যে মন ভরে না!

558
SHARE

বাংলা একাডেমিতে একুশে বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, পৃথিবীতে আমাদের বইমেলাই একমাত্র বইমেলা যা দীর্ঘ এক মাস ধরে চলে। কিন্তু এক মাসেও যে মন ভরে না। বছরের সারাটা সময় জুড়ে এই মেলার জন্যই অপেক্ষায় থাকি। একুশে বইমেলা নিছক একটি মেলা নয় এটি জ্ঞানের মেলা, আমাদের প্রাণের মেলা।  প্রধানমন্ত্রীর কথার সূত্র ধরে বলতে হয়ণ্ড হ্যা, একুশে বইমেলার জন্য সারাদেশের গ্রন্থমনস্ক মানুষ অধীর অপেক্ষায় থাকেন। ঢাকার বাইরে বিভিন্ন এলাকার মানুষজন প্রতি বছর ফেব্র“য়ারি মাসে ঢাকায় আসার পরিকল্পনা করেন। কারণ একটাই বইমেলায় অংশ নেওয়া। এবার শুরুর দিন থেকেই এই চিত্র লক্ষ্য করা গেছে। ঢাকার বাইরে থেকে অনেকেই বইমেলায় এসেছেন। তাদেরই কয়েকজনের সাথে কথা হল গতকাল।  আফসার আহমেদ একজন তরুণ কবি। এসেছেন নেত্রকোনা থেকে। থাকবেন এক সপ্তাহ। প্রতিদিন বইমেলায় আসবেন। নেত্রকোনায় তার একটি বইয়ের লাইব্রেরি আছে। এই লাইব্রেরির জন্য বই কিনবেন।  মফিজুর রহমান এসেছেন গাইবান্ধা থেকে। মূলত জাতীয় কবিতা উৎসবে অংশ নিতেই তিনি ঢাকায় এসেছেন। কিন্তু বইমেলাও তার ঢাকায় আসার একটি উপলক্ষ। মফিজুর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন চলতি বছর বন্ধু, শুভাকাঙ্খীর জন্মদিনে প্রিয় কবি লেখকের নতুন বই উপহার দিবেন। বইমেলা থেকেই বইগুলো কিনবেন। প্রিয় পাঠক, আপনিও মফিজুরের সঙ্গী হতে পারেন। প্রিয়জনের জন্য এই বইমেলা থেকেই বই কিনে রাখুন। জানেন তো বইমেলায় শতকরা ২৫ ভাগ কমিশনে বই বিক্রি হয়।

 

বিকৃতভাবে বাংলা উচ্চারণ করবেন না

 হাসানুল হক ইনু, তথ্যমন্ত্রী

গতকাল বইমেলায় এসেছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। তিনি বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিরস্টল উদ্ভোধন করেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশে পাঁচটি দিবস সবচেয়ে বড় ও গুরুত্বপুর্ণ। তার মধ্যে ২৬মার্চ স্বাধীনতা দিবস, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস, পয়লা বৈশাখ বাংলা নবর্বষ, ২১ফেব্র“য়ারি শহীদ দিবস এবং বাংলা একাডেমির বইমেলা। বইমেলা হচ্ছে জ্ঞান আহরণের, জ্ঞান বিতরনের এবং শিক্ষার আলো ঘরে ঘরে পৌঁছানোর মেলা।  আজ এখানে এসে সবার প্রতি আমি একটি আকুল আহবান জানাই, আপনারা শুদ্ধ ভাষায় কথা বলুন, শুদ্ধভাষার চর্চা করুন। কিছু এফএম রেডিও ও টিভি চ্যানেলের প্রোগ্রামে অশুদ্ধ ও বিকৃত ভাবে বাংলা ভাষার উচ্চারণ করা হয় সেটা কোনো মতেই গ্রহণ যোগ্য নয়। আমি আঞ্চলিক ভাষার কথা বলছি না বলছি প্রমিত ভাষার শুদ্ধ উচ্চারনের কথা। এসময় পি আইবির মহাপরিচালক শাহ আলমগীর, বিএফইউজের মহাসচিব ওমর ফারুক, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি জামাল উদ্দিন, সাবেক সভাপতি শাহেদ চৌধুরি ও বর্তমান সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ বক্তব্য রাখেন।