জমজমাট বিপিএল চতুর্থ আসর চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস

জমজমাট বিপিএল চতুর্থ আসর চ্যাম্পিয়ন ঢাকা ডায়নামাইটস

482
0
SHARE
BPL-2016-FINAL

জাকীর হাসান: ক্রিকেটের এক দুর্দান্ত আসর শেষ করল বাংলাদেশ। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ বিপিএল-এর চতুর্থ আসর জমিয়ে তুলেছিল। একমাসব্যাপী এই আসর নানা ঘটনা রেকর্ডের মধ্যদিয়ে শেষ হয়েছে। সাতটি দলের জমজমাট লড়াইয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ঢাকা ডায়নামাইটস। রানার্সআপ হলেও বেশি উজ্জ্বল ও দারুণ ক্রিকেট খেলেছে রাজশাহী কিংস। পুরো টুর্নামেন্টে রাজশাহী কিংস ক্রিকেট দর্শকদের আনন্দ দিয়ে গেছে।

এবারের আসরে বিশ্বের নামকরা টি২০ ক্রিকেটার খেলেছেন তাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন ক্রিস গেইল, শহীদ আফ্রিদি, রবি বোপারা, স্যামুয়েল, শোয়েব মালিক, সাঙ্গাকারাসহ অনেকে কিন্তু এবার মাঠে তারা ছিলেন নিষ্প্রভ। আসরের প্রতিটি খেলায় বাংলাদেশি ক্রিকেটাররাই ছিলেন উজ্জ্বল ও সেরা। মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিক, সাব্বির, মাহমুদ উল্লাহ। বাংলাদেশি এই তারকা ক্রিকেটাররা মাঠে সেরা পারফর্ম করেছেন।

এবার বিপিএল আসরে বাংলাদেশি দুই তরুণ ক্রিকেটার ঢাকা ডায়নামাইটসের মেহেদী, মারুফ ও রাজশাহী কিংসের আফিফ নতুন তারকা হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন। মেহেদী মারুফ অলরাউন্ডার হিসেবে রান করেছেন ৩৪৭। এর মধ্যে সর্বাধিক ২০টি ছক্কা হাঁকিয়ে রেকর্ড করেছেন একজন নতুন খেলোয়াড় হিসেবে। আফিফ বিপিএল ইতিহাসে এক ম্যাচে ৫ উইকেট নিয়ে রেকর্ড করেছেন। এর আগে কোনো বোলার বিপিএল-এর এক ম্যাচে ৫ উইকেট নেয়ার কৃতিত্ব দেখাতে পারেনি। এবারের আসরে সাব্বির রহমান একমাত্র সেঞ্চুরি করেছেন। তার পারফরমেন্সে ধারাবাহিকতাও ছিল। প্রতিটি ম্যাচে তিনি রান পেয়েছেন। তবে বাংলাদেশি ক্রিকেট তারকাদের মধ্যে চিটাগাং ডাইকিংসের তামিম ইকবাল ও খুলনা টাইটানের মাহমুদ উল্লাহ ছিলেন সবচেয়ে বেশি উজ্জ্বল। তামিম আসরের সবচেয়ে বেশি রান করেছেন কিন্তু তার দল ফাইনাল খেলতে পারেনি। মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ বিপিএল-এর আরেক উজ্জ্বল তারকা। তিনি অলরাউন্ড পারফর্ম করে দলকে ফাইনাল পর্যন্ত নিয়ে গেছেন। চ্যাম্পিয়ন না হতে পারলেও তিনি এবার ম্যান অব দ্য সিরিজ হয়েছেন।

বিদেশি তারকা খেলোয়াড়দের মধ্যে একমাত্র উজ্জ্বলতর ছিলেন রাজশাহী কিংসের ড্যারেন সামি। তিনি টি২০ স্পেশাল। রাজশাহী কিংসে আহামরী খেলোয়াড় না থাকলেও সামির ক্যারিশমায় সেমিফাইনাল পর্যন্ত দলকে নিয়ে গেছেন তিনি। এ পর্যন্ত তার দেশ ওয়েস্ট ইন্ডিজকেও দুইবার বিশ্ব টি২০ চ্যাম্পিয়নশীপ উপহার দিয়েছেন এই অলরাউন্ডার।

বরিশাল বুলসের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম এবং শাহরিয়ার নাফিস এবারের আসরের সফল তারকা। নাফিস প্রথম পাঁচটি ম্যাচে দুর্দান্ত পারফর্ম করেন। মুশফিক ধারাবাহিকভাবে ভালো করলেও দলে উইনিং খেলোয়াড় ছিল না বলে ভালো করা সম্ভব হয়নি।

ইংল্যান্ডের সঙ্গে দুটি টেস্টে বিশ্বরেকর্ড করা রাজশাহী কিংসের মেহেদী মিরাজ ছিলেন নিষ্প্রভ। তার ঘূর্ণি বলের জাদু কোনো ম্যাচে দর্শকরা দেখেনি। ভালো দল না হওয়ায় এবারের আসরে সবচেয়ে হতাশ ছিলেন বাংলাদেশের গর্ব ওয়ানডে ক্রিকেটের অধিনায়ক মাশরাফি। তার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান জয় পায় ৫ ম্যাচ পর। ততদিনে তার দল আসরের তলানিতে গিয়ে পৌঁছায়। অথচ এই মাশরাফি ৪টি বিপিএল-এর তিনটি চ্যাম্পিয়ন ট্রফি জিতেছেন। প্রথম দুটি ঢাকার হয়ে তৃতীয়টি কুমিল্লার হয়ে।

এবারের বিপিএল-এ একটি বিষয় খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল তা হলো- দলের কম্বিনেশন ও ভালো অলরাউন্ডার খেলোয়াড়। টি২০ খেলায় শুধু ভালো বোলার বা শুধু ভালো ব্যাটসম্যান হলে চলে না দরকার অলরাউন্ডার। সেই অভাবটা ঢাকা, রাজশাহী, খুলনা ছাড়া সব দলে দেখা গেছে। তবে একথা সত্য যে বিপিএল আস্তে আস্তে বড় টুর্নামেন্টে পরিণত হচ্ছে। প্রথম আসরের চেয়ে দ্বিতীয়, দ্বিতীয় আসরের চেয়ে তৃতীয় এবং তৃতীয় আসরের চেয়ে চতুর্থ আসর আরো গোছানো জমজমাট এবং ভালো খেলোয়াড় অংশ নিয়েছে। আগামী পঞ্চম আসর এবারের চেয়ে অনেক ভালো হবে এটা আশা করা যায়।

বড় চ্যালেঞ্জের সিরিজ নিউজিল্যান্ড

ঘরোয়া টি২০ সবচেয়ে বড় আসর বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) শেষ হয়েছে। মাঝখানে আর কয়েকদিন বাকি, এরপরই শুরু হয়ে যাবে নিউজিল্যান্ড সিরিজ। একটি ভিন্ন কন্ডিশনে কিউইদের বিপক্ষে বাংলাদেশ কেমন করবে তা নিয়ে শুরু হয়ে গেছে জোর আলোচনা। বাংলাদেশ দলের সবচেয়ে বড় তারকা সাকিব আল হাসানও মনে করেন, নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ভালো কিছু করা মোটেও সহজ হবে না। বাংলাদেশের জন্য বড় একটি চ্যালেঞ্জ হবে আসন্ন এই সিরিজ।

২৬ ডিসেম্বর থেকে নিউজিল্যান্ড সিরিজ শুরু হবে ওয়ানডে দিয়ে। আসরের দ্বিতীয় ও তৃতীয় ওয়ানডে হবে ২৯ ও ৩১ ডিসেম্বর। তিনটি টি২০ খেলবে ৩, ৬ ও ৮ জানুয়ারি। আর দুটি টেস্ট হবে ১২ থেকে ১৬ এবং ২০ থেকে ২৪ জানুয়ারি।

সিরিজটা কঠিন হবে মনে করলেও সাফল্যে আশাবাদী সাকিব। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, আমাদের মনে রাখতে হবে একটা ভিন্ন কন্ডিশনে আমরা এই সিরিজ খেলতে যাচ্ছি। তাই নিউজিল্যান্ডে এই সিরিজ আমাদের জন্য বড় চ্যালেঞ্জ হবে। তাই বলে দল খারাপ করব তা আমি বলছি না। ভালো কিছু করার সামর্থ্য আমাদের আছে। চেষ্টা করলে ভালো কিছু করা সম্ভব হতেও পারে। তবে এর জন্য শুরুটা ভালো করতে হবে বলে মনে করে বিশ্বের অন্যতম সেরা এই অলরাউন্ডার। এই সিরিজে আমাদের যে কাজটি করতে হবে শুরুটা ভালো করতে হবে। শুরুটা ভালো হলে আমাদের আত্মবিশ্বাস বাড়বে। পরবর্তীতে ভালো করা সহজ হবে।

তাই সিডনিতে কন্ডিশনিং ক্যাম্পটা বেশ কাজে আসবে বলে বিশ্বাস সাকিবের। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে সিডনিতে আমাদের যে ক্যাম্প হবে, এটি আমাদের জন্য খুবই কাজে আসবে। কন্ডিশনের সঙ্গে অনেকটাই মানিয়ে নিতে পারব। কারণ অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনের সঙ্গে কিছুটা মিল রয়েছে।

এই সিরিজে অংশ নিতে দুই ভাগে দেশ ছাড়ছে বাংলাদেশ দল। দলে আছেন মাশরাফি বিন মর্তুজা, সাকিব আল হাসান, মুশফিক রহিম, তামিম ইকবাল, মাহমুদ উল্লাহ, ইমরুল কায়েস, রুবেল হোসেন, সৌম্য সরকার, শুভাগত হোম, তাইজুল ইসলাম, মোসৱাফিজুর রহমান, তাসকিন আহমেদ, কামরুল ইসলাম, শুভাশিস রায়, নাজমুল হোসেন, ইবাদত হোসেন, সাব্বির রহমান, মমিনুল হক, মোসাদ্দেক হোসেন, নূরুল হাসান, মেহেদী সিরাজ ও তানভির হায়দার। অস্ট্রেলিয়ায় হবে ৯ দিনের প্রস্তুতি ক্যাম্প। সেখানে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের।

সবচেয়ে বেশি ছক্কা মেহেদী মারুফ

এই বিপিএলে আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে সবার নজর কেড়েছেন মেহেদী মারুফ। টুর্নামেন্ট তিনি খুব বেশি বড় স্কোর গড়তে পারেননি। ফিফটি করেছেন দুটি। তবে ঢাকা ডায়নামাইটসকে প্রায় প্রতিটা ম্যাচেই এনে দিয়েছেন উড়ন্ত সূচনা। ১৪ ম্যাচে ২৬.৬৯ গড়ে তার ব্যাট থেকে এসেছে ৩৪৭ রান। টুর্নামেন্টে সর্বোচ্চ ২০টি ছক্কাও হাঁকিয়েছেন তিনিই। বিপিএলে পারফরম্যান্সের পুরস্কারও পেয়েছেন হাতেনাতে। ডাক পেয়েছেন নিউজিল্যান্ড সিরিজের জন্য অস্ট্রেলিয়ায় প্রস্তুতি ক্যাম্পের বাংলাদেশ দলে।