গানবাজনা

গানবাজনা

476
SHARE
Anushah-Anadil

নতুন অ্যালবাম নিয়ে আনুশেহ

ভিন্ন ধারার গান নিয়ে শ্রোতামহলে পরিচিতি পেয়েছে আনুশেহ আনদিল। বর্তমানে নতুন অ্যালবামের গান নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন তিনি। বরাবরের মতো লোক গানকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন এক্ষেত্রে। এই অ্যালবামে থাকবে রবীন্দ্রসঙ্গীত ও লালনের কয়েকটি গান। এছাড়াও আনুশেহ নিজেও এ অ্যালবামের জন্য গান লিখছেন ও সুর করেছেন। এবারের অ্যালবামের বিশেষত্ব হলোণ্ড পুরোপুরি অ্যাকুষ্টিক যন্ত্রের মাধ্যমে গানগুলো রেকর্ড করা হচ্ছে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে এই অ্যালবামটি প্রকাশ খুব শিগগিরই করবেন তিনি। এ বিষয়ে আনুশেহ বলেন, মাটির গান নিয়ে এবারও কাজ করছি। রবীন্দ্রসঙ্গীত ও লালনের কিছু গান করছি। পাশাপাশি নিজের লেখা ও সুর করা গান থাকবে। এবার অ্যাকুষ্টিক যন্ত্রকে আরও বেশি প্রাধান্য দিচ্ছি। এরই মধ্যে কয়েকটি গানের কাজ শেষ করেছি। আশা করছি গানগুলো শ্রোতাদের ভালো লাগবে।

মা-মেয়ের নতুন অ্যালবাম

এবার নতুন গান নিয়ে শ্রোতাদের সামনে হাজির হলেন বরেণ্য সঙ্গীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন। তবে তিনি একা নন, সঙ্গে গেয়েছেন তার কন্যা বাঁধনও। সম্প্রতি প্রকাশ হয়েছে মা-মেয়ের নতুন অ্যালবাম ‘আবার দুজনে’। এটি অনলাইনে প্রকাশ করেছে মন মিউজিক স্টেশন। এ অ্যালবামে গান রয়েছে মোট ১০টি। এতে সাবিনা ইয়াসমিন ও বাঁধন দ্বৈতভাবে কণ্ঠ দিয়েছেন তিনটি গানে। এর মধ্যে মা-মেয়ে দুজন মিলে ‘অনুরাগ’ চলচ্চিত্রের ‘কত ভালোলাগে এই দিন’ গানটি নতুন করে কণ্ঠে তুলেছেন। বাকি দুটি গানের শিরোনাম হলো ‘ইচ্ছে করে ছোটবেলায় আবার ফিরে যাই’ ও এক চোখে সুর তোমার, অন্য চোখে কথা। গানগুলো সুর-সঙ্গীত করেছেন মাকসুদ জামিল মিন্টু, রাজেশ ঘোষ, ও মন। গানের কথা লিখেছেন প্রদীপ সাহা, জাহিদ আকবরসহ অনেকে। অ্যালবামে থাকা বাকি গানগুলোর শিরোনাম। হলো ‘দক্ষিণা হাওয়া’, ‘কাটলো কত রাত’, ‘কিছু কিছু ভুল’, ‘তুমি ছাড়া’, ‘পাকা কথা’, ‘যে কথা’ ও ‘হারিয়ে গেছে মন’।

অ্যালবামটি প্রসঙ্গে বাঁধন বলেন, ২০০৬ সালে মায়ের সঙ্গে ‘প্রতিচ্ছবি’  অ্যালবামে চারটি গান গেয়েছিলাম। ওটা ছিল আমার প্রথম একক। দীর্ঘ সময় পর আবারও মাকে সঙ্গে নিয়ে অ্যালবাম প্রকাশ করলাম। আমার বিশ্বাস গানগুলো শ্রোতাদের পছন্দ হবে। এদিকে অডিও প্রকাশের পাশাপাশি ‘আবার দুজনে’ অ্যালবামের ‘দক্ষিণা হাওয়া’ গানটির মিউজিক ভিডিও প্রকাশ করেছেন বাঁধন। ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন সৈকত রেজা।

মিউজিক ভিডিও নিয়ে প্রত্যয়

Pottoy-Khanচলতি সময়ের শিল্পী ও সঙ্গীত পরিচালক প্রত্যয় খান বর্তমানে বেশ ব্যস্ত সময় পার করছে নতুন গান নিয়ে। পাশাপাশি সম্প্রতি একটি মিউজিক ভিডিওর কাজ শেষ করেছেন তিনি। গানের শিরোনাম ‘মাঝে মাঝে’ এগানটি থ্রি জি অ্যালবামে ঠাঁই পেয়েছিল। এটি ছিল প্রীতম হাসান ও প্রত্যয় খানের দ্বৈত অ্যালবাম। অ্যালবামটি ঈগল মিউজিকের ব্যানারে প্রকাশিত হয়। জিয়াউদ্দিন আলমের কথায় ‘মাঝে মাঝে’ গানটির সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন প্রত্যয় খান। সম্প্রতি এ গানটির ভিডিওতে অংশ নিয়েছেন এ শিল্পী। মিউজিক ভিডিওটি নির্মাণ করেছেন সৌমিত্র ঘোষ ইমন। ভিডিওতে প্রত্যয় খানের সঙ্গে মডেল হিসেবে দেখা যাবে লিয়ানা লিয়াকে। আসছে ১৪ই ফেব্রুয়ারি বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে মিউজিক ভিডিওটি প্রকাশিত হবে ঈগল মিউজিকের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেলে। মিউজিক ভিডিও সম্পর্কে প্রত্যয় খান বলেন, গানটির অডিও গত বছরই প্রকাশ হয়েছিল। তখনই গানটির ভালো সাড়া পেয়েছিলাম। এবার তারই ধারাবাহিকতায় গানটির ভিডিও তৈরি হলো। আমার বিশ্বাস ভিডিওটিও সবার ভালো লাগবে।

আইয়ুব বাচ্চুর চমক

AIUB-BACCHU,ব্যান্ড লিজেন্ড আইয়ুব বাচ্চুকে দর্শক স্টেজে সাধারণত তার ব্যান্ড এলআরবি নিয়ে গান পরিবেশ করতে দেখেছেন। এবার তাকে স্টেজে শুধু গিটারের সুরের ঝংকার দেখবেন তারা। আগামী মার্চ মাস থেকে সিলেট, চট্টগ্রাম, ঢাকা, বগুড়া, রাজশাহী ও খুলনা শহরে ধারাবাহিক ভাবে গিটার উৎসব উদযাপন করবেন আইয়ুব বাচ্চু। এই উৎসবের নাম দিয়েছেন ‘এবি উইথ সাউন্ড অব সাইলেন্স’। এরই মধ্যে উৎসবের পরিকল্পনা প্রায় চূড়ান্ত। শুধু গিটার বাদনে এমন উৎসব প্রসঙ্গে আইয়ুব বাচ্চু বলেন, সব সময়ই তো মঞ্চে গান পরিবেশন করি। তাছাড়া ভেবে দেখলাম আল্লাহ যদি বাঁচিয়ে রাখেন তাহলে ভবিষ্যতেও গান গাওয়ার অনেক সুযোগ আছে। কিন্তু এখনই গিটার বাদনের উৎসবটা করা প্রয়োজন। কারণ বিভিন্ন সময়ে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন স্থানে আমি এমন অনেক ভক্ত পেয়েছি যারা শুধু আমার গিটারের সুরেলা শব্দই শুনতে চেয়েছেন। সেসব পাগল ভক্তদের জন্যই দেশের ছয়টি জেলা শহরে আমার এই আয়োজন থাকছে। গিটারের কিছু নিজস্ব মিউজিক আছে। সেসব মিউজিক ভক্তরা শুনবেন। পাশাপাশি আমার কিছু জনপ্রিয় গান, চেনা জানা অন্য গানও গিটারের সুরে বেজে উঠবে। মূল কথা যারা এই উৎসবে উপস্থিত থাকবেন তাদের সঙ্গে আমার আবেগকে ভাগাভাগি করে নেয়ার চূড়ান্ত চেষ্টা থাকবে। আমি সত্যিই খুব আশাবাদী এই গিটারের প্রাণের ছোঁয়ার আয়োজন নিয়ে।

গানের ফেরিওয়ালা

Ganer-Feriwalaজমকালো আয়োজনের মধ্যদিয়ে লেজার ভিশনের ব্যানারে প্রকাশিত হয়েছে সঙ্গীত শিল্পী তানভীর শাহীনের একক অ্যালবাম ‘গানের ফেরিওয়ালা’। সম্প্রতি রাজধানীর একটি রেস্টুরেন্টে অ্যালবামটির মোড়ক উম্মোচন ও প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে শিল্পীকে শুভাশিস জানিয়ে অ্যালবামটির মোড়ক উম্মোচন করেন সঙ্গীত ব্যক্তিত্ব লাকী আখন্দ, তপন চৌধুরী, মাকসুদুল হক, ফুয়াদ নাসের বাবু, মানাম আহমেদ, দিলরুবা খান, জানে আলম, লাবু রহমান, ফিডব্যাক ব্যান্ডের ভোকালিস্ট রুমেল, সরগম সম্পাদক কাজী রওনক হোসেন, ক্রীড়া সংগঠক এম এ আউয়াল চৌধুরী ভুলুসহ অনেকে। অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন লেজার ভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাজহারুল ইসলাম। সাংস্কৃতিক জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিও বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন লেজার ভিশনের চেয়ারম্যান এ কে এম আরিফুর রহমান। অনুষ্ঠানের শুরুতেই অ্যালবামের ‘নীল নীল শাড়ি পরে’ শিরোনামের গানটির মিউজিক ভিডিও প্রকাশিত হয়। দেশের কয়েকজন কিংবদন্তি কণ্ঠ শিল্পী গীতিকার ও সুরকারের জনপ্রিয় কয়েকটি গান এবং একটি মৌলিক গান নিয়ে অ্যালবামটি সাজানা হয়েছে। অ্যালবামটি প্রসঙ্গে তানভীর শাহীন বলেন, এই স্মরণীয় গান গুলো নতুন করে সুর তাল সবকিছু ঠিক রেখে আমি আশাকরি এই জনপ্রিয় গানগুলো শ্রোতাদের হৃদয়ে ছুঁয়ে যাবে।

সবাই অনলাইনের দিকে ঝুকছেন-বিপ্লব

ব্যান্ড তারকা বিপ্লব। তার অসংখ্য গান বেশ জনপ্রিয়। বর্তামানে ব্যস্ত সময় পার করছেন নতুন গান নিয়ে। তার ব্যস্ততার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো আনন্দ আলোর পাঠকদের জন্য।

আনন্দ আলো: আপনার ‘অফ ট্র্র্যাক লাইভ মিউজিক ক্যাফে রেস্টুরেন্ট’-এর খবর কী?

Biplob: এটা ইনফো ওয়ার্ল্ডের একটি সিস্টার কনসার্ন। আমি এই প্রতিষ্ঠানের সিইও। এখন পর্যন্ত অফ ট্র্যাকের তিনটি শাখা রয়েছে বনানী, সাভার ও ওয়ারীতে। অফ ট্র্যাকের বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এখানে প্রতি রাতেই গানের আয়োজন করা হয়। অতিথিরাও আমাদের সঙ্গে অংশ নেন। কেউ আমাদের সঙ্গে পারফর্ম করলে মজা করে তার টেবিলে আমরা একটা ডিসকাউন্ট দেই। বিভিন্ন কুইজ এবং ফান শো’র আয়োজন করি। প্রতি সপ্তাহে আমার দাওয়াতে আসেন বিভিন্ন সেক্টরের একজন করে সেলিব্রিটি। তাদের সঙ্গে অতিথিরা আড্ডাদেন।

আনন্দ আলো: ব্যান্ড ‘প্রমিথিউস’-এর কার্যক্রম কেমন চলছে?

বিপ্লব: আগের মতোই চলছে। নিয়মিত বিভিন্ন টিভি চ্যানেলে লাইভ কনসার্ট করছি। ব্যান্ডের সর্বশেষ অ্যালবাম। ‘মেডইন আওয়ার প্রাইড বাংলাদেশ’ ২০১৪ সালে অনলাইনে রিলিজ করেছিলাম। ব্যান্ডের জনপ্রিয় কিছু গান রিমেক করার পরিকল্পনা আছে। নতুন গান ও তৈরি করব।

আনন্দ আলো: অনলাইন নিয়ে আপনারও একটা প্রচেষ্টা ছিল…

বিপ্লব: অনলাইনে যে সব বিষয় আছে তার সবই আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য ভালো। আমরা সবাই মিলে যদি একটু গোছানোভাবে চিন্তা করতাম তাহলে অডিও ইন্ডাস্ট্রি ভালো থাকত, শিল্পীরাও ভালো থাকতেন। এই প্রয়াস থেকেই আমি ২০১০ সালে অনলাইনে গান প্রকাশের কিছু পলিসি তুলে ধরি। নিজেও একটা প্লাটফর্ম করি। এখন কিন্তু ঠিকই সবাই অনলাইনের দিকে মনোযোগী হচ্ছেন।

আনন্দ আলো: বিশেষ দিনগুলো নিয়ে আপনি গান করে থাকেন। এটা কোন ভাবনা থেকে করেন?

বিপ্লব: নিজস্ব তাগিদ থেকেই। মা দিবস, বাবা দিবস, ভ্যালেন্টাইনস ডে স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস উপলক্ষে নিজের ভেতর অন্যরকম অনুভূতি কাজ করে। গানের মানুষ হিসেবে দিনটাকে উদযাপনের জন্য গানকেই বেছে নেয়া। এ ধরনের কাজে শ্রোতা এবং পরিচিতজনদের কাছ থেকেও ভালো সাপোর্ট পাই।

আনন্দ আলো: ঘর-সংসার কেমন চলছে?

বিপ্লব: এক কথায় খুব সুখে আছি। সংসার সামলানোর পাশাপাশি আমার স্ত্রী আইলিন বিভিন্ন কাজে অনুপ্রেরণা ও পরামর্শ দিয়ে আমাকে সাহায্য করেন। আমার দুই ছেলে ও এক মেয়ে। মেয়ে তটনী এবং ছেলে আদিব পিঠাপিঠি। তারা দুজনই ক্লাশে সেভেনে পড়াশোনা করছে। ছোট ছেলে অ্যালনের বয়স তিন বছর।