Home আরোও বিভাগ গানবাজনা গানবাজনা

গানবাজনা

SHARE
Prosun-Azad

বাপ্পার গানে মডেল প্রসূন

জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী ও কম্পোজার বাপ্পা মজুমদার খুব শিগগিরই নতুন একট গান নিয়ে হাজির হচ্ছেন। গানের নাম ‘জানালার গ্লাস’। গানটি খুব শিগগিরই প্রকাশ হবে ভিডিও আকারে। আর এ ভিডিওতে মডেল হিসেবে দেখা যাবে লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার প্রতিযোগিতা থেকে আসা প্রসূন আজাদকে। ছোটপর্দার পর বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্রেও কাজ করেছেন এ অভিনেত্রী। এবার বাপ্পা মজুমদারের গানে প্রথম বারের মতো মডেল হলেন তিনি। সম্প্রতি এ গানের মিউজিক ভিডিওর শুটিং হয়েছে মানিকগঞ্জের জমিদার বাড়িতে। গানটির ভিডিও পরিচালনা করেছেন ইমরান কবির হিমেল। খুব শিগগিরই গানটি ইউটিউব সহ বিভিন্ন টিভি চ্যানেল প্রচার হবে।

অবসর ছাড়া কোনো ব্যসত্মতা নেই -খুরশীদ আলম

সিনেমার গান মানেই খুরশিদ আলমের উজ্জ্বল উপস্থিতি। দেশবরেন্য কণ্ঠ শিল্পী অনেকদিন পর সিনেমার গানে কণ্ঠ দিলেন। তার মিনি সাক্ষাৎকার…

Khorshed-Alamআনন্দ আলো: দীর্ঘদিন পর সিনেমার গানে কণ্ঠ দিলেন। এ বিষয়ে বলুন।

খুরশীদ আলম: হ্যাঁ, অনেক দিন পর সিনেমায় গান করলাম। ‘মায়া ডোরে বাধা’ নামের এই ছবিতে আমি আর কনকচাঁপা দীর্ঘদিন পর আবার একসঙ্গে গাইলাম। দেশের কথার ওপর ভিত্তি করে লেখা গানটি সঙ্গীতায়োজন করেছেন বিলাস চৌধুরী।

আনন্দ আলো: এ ছাড়া আর কী নিয়ে ব্যসত্ম আছেন?

খুরশীদ আলম: এ বয়সে অবসর ছাড়া আর কোনো ব্যসত্মতা নেই। তবে বিশেষ কোনো দিবস এলে মাঝে মধ্যে চ্যানেল গুলো থেকে ডাক আসে। লাইভ অনুষ্ঠানে হাজির হয়ে দর্শকদের প্রিয় গানগুলো শুনিয়ে আসি। এছাড়াও বিভিন্ন রিয়েলিটি শো’র বিচারক হিসেবে যোগদান করে যতটা ব্যসত্ম থাকা যায় ততটাই থাকছি।

আনন্দ আলো: বাংলাগানের কালজয়ী শিল্পী আপনি। এখনকার সঙ্গীত নিয়ে আপনার মতামত কী?

খুরশীদ আলম: ভালোর সঙ্গে মন্দ সব সময়ই থাকে। এখন ভালো গান যেমন হচ্ছে, তেমন মন্দ গানও হচ্ছে। তবে মন্দ গানের সংখ্যাটা একটু বেশি। আমাদের সময় যেটা অনেক কম ছিল। এখনকার শিল্পীরা চতুর্মুখী প্রতিভা নিয়ে আসে। নিজেই গান লেখে নিজেই গায় এবং নিজেই সুর করে। এ যেন একাই সবকিছু করে ফেলার চেষ্টা। এতে গানের মান নষ্ট হওয়ার ভয় থাকে। তবে সবার ক্ষেত্রে এমনটি হয় না।

আনন্দ আলো: নিজের কোনো একক অ্যালবাম বের করার ইচ্ছে আছে কী?

খুরশীদ আলম: এ ধরনের ইচ্ছে আমার নেই। আমি তো সিনেমার গান গেয়েই এ পর্যনত্ম এসেছি। কোনো একক অ্যালবামে আমাকে কখনও দেখা যাবে না।

আনন্দ আলো: বর্তমানে অনেক রিয়েলিটি শো’র মাধ্যমে সঙ্গীত শিল্পীউঠে আসছে। আপনিও তো কতগুলো অনুষ্ঠানের বিচারকের দায়িত্ব পালন করেছেন। এ বিষয়ে আপনার দৃষ্টি ভঙ্গি কী?

খুরশীদ আলম: দৃষ্টিভঙ্গি ইতিবাচক বলেই তো বিচারকের দায়িত্ব পালন করছি। তবে এ থেকে প্রাপ্ত প্রতিভাকে আমরা ধরে রাখতে পারছি না। এটা আমাদের দূর্বলতা। আর তাদের দূর্বলতা হলো, তারা গানের ব্যাকরণ না শিখেই নিজেকে গানের পথে নামিয়ে দিচ্ছে। ফলে ভালো গাইলেও এখানে এসে নিজেকে বেশিদিন টিকিয়ে রাখতে পারছে না।

মেজবাহর তোমার জন্য

সম্প্রতি লেজার ভিশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী মেজবাহ’র নতুন একক অ্যালবাম ‘তোমার জন্য’। অ্যালবামে গান রয়েছে মোট আটটি। গানগুলো হলো- দিনে দিনে দিন, আমার মরণ জানি, তোমার জন্য একটা চিঠি, রাজা যায় রাজা আসে, বাবা বলতো, তুমি আসবে বলে, পরানের বন্ধু, ভালোবাসতে এমন আমার। সঙ্গীতের মূল ভাবনায় ছিলেন পার্থ বড় য়া। সঙ্গীতায়োজন করেছেন সোহেল রাজ ও সালমান আজামি। নতুন অ্যালবামটি প্রসঙ্গে মেজবাহ বলেন, অনেক দিন ধরে বেশ যত্ন নিয়ে গান গুলো করেছি। আশাকরি গানগুলো শ্রোতাদের কাছে ভালো লাগবে।

অর্থহীনের ক্যান্সারের নিশিকাব্য

কয়েক মাস আগে ক্যান্সারে আক্রানত্ম হয়েছিলেন দেশের অন্যতম রক মেটাল ব্যান্ড অর্থহীনের সুমন। সেই দিনগুলোর ছায়া নিয়ে এবার নতুন অ্যালবাম করছেন তিনি। আগামী জুনে ‘ক্যান্সারের নিশিকাব্য’ শিরোনামের এই অ্যালবামটি বাজারে আসবে বলে জানান তিনি। অ্যালবামে থাকছে ‘চাইতে পারো’ সিরিজের তৃতীয় গান। ২০০৩ সালে ‘ধ্রুবক’ এ প্রকাশিত হয় ‘চাইতে পারো’ গানটি। এর পাঁচ বছর পর আসে ‘চাইতে পারো-থ্রি। সুমন ছাড়াও এখন ব্যান্ডে আছেন মার্কডন ও শিশির। ১৯৯৯ সালে যাত্রা শুরু করা অর্থহীনের এখন পর্যনত্ম পাঁচটি অ্যালবাম প্রকাশিত হয়েছে। এগুলো হলো- ত্রিমাত্রিক, বিবর্তন, নতুন দিনের মিছিলে ধ্রুবক, অসমাপ্ত-১, অসমাপ্ত-২। এদিকে চলতি বছরে ক্যান্সারের নিশিকাব্য ছাড়াও দুটি অ্যালবাম বের করবেন বলে জানিয়েছেন সুমন। এর মধ্যে বেজ ইনস্ট্রুমেন্টাল অ্যালবাম ‘সৌল ফুড’ আসবে সেপ্টেম্বরে। আর আনিলাকে নিয়ে তার দ্বৈত অ্যালবাম সুমন অ্যান্ড আনিলা-টু বের হবে ডিসেম্বরে। এছাড়া আটটি মিউজিক ভিডিও আনবেন তিনি। আগামী বছরের ফেব্রুয়ারিতে প্রকাশ হবে ফাহিমের সঙ্গে সুমনের গিটার ও বেজ ইনস্ট্রুমেন্টাল অ্যালবাম ‘কফি ক্লাউডফ্রম বাংলাদেশ’।

আমার কোন টেনশন নাই -বিপ্লব

আট বছর পর নতুন একক অ্যালবাম নিয়ে আসছেন প্রমিথিউসের দলনেতা ও ভোকাল বিপ্লব। অ্যালবামের নাম ‘আমার কোনো টেনশন নাই’। এতে গান থাকবে মোট আটটি। সুর ও সঙ্গীত তার নিজেরই। ভবানী প্রসাদ মজুমদারের ছড়া ‘বাংলাটা ঠিক আসে না’কে গানে রূপানত্মর করেছেন বিপ্লব। এছাড়া গান লিখেছেন রেজাউদ্দিন স্টালিন, মোহাম্মদ হোসেন জেমী, বশির আহমেদ ও রাজু। ‘আমার কোনো টেনশন নাই’ অ্যালবামটি প্রকাশ করবে সাউন্ডটেক। প্রসঙ্গক্রমে বিপ্লব বলেন, আমার সর্বশেষ একক অ্যালবাম ‘পুরুষ মানে দেবদাস’ প্রকাশিত হয় ২০০৮ সালে। এরপর নানা কারণে আর অ্যালবাম করা হয়নি। এটি হয়েছে সাউন্ডটেকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সুলতান মাহমুদ বাবুল ভাইয়ের উদ্যোগে। কাজ শুরু করেছিলাম গত নভেম্বরে। অ্যালবামে মূলত মেলোডি গানই বেশি। গানে আমার নিজস্ব একটা স্টাইল আছে। সেটা বজায় রাখার চেষ্টা করেছি। তবে সঙ্গীতায়োজনে এ প্রজন্মের পছন্দকে গুরুত্ব দিয়েছি।

গান গাইলেন বিপ্লব সাহা

ফ্যাশন ডিজাইনার হিসেবে বিপ্লব সাহার পরিচিতি সর্বত্র। তবে এবার তিনি শ্রোতাদের সামনে হাজির হলেন ভিন্ন পরিচয়ে। সম্প্রতি তিনি কণ্ঠশিল্পী দিনাত জাহান মুন্নীর সঙ্গে পুরনো দিনের একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। ‘চিরদিনই তুমি যে আমার’ কালজয়ী গানটি নতুন করে সঙ্গীতায়োজন করেছেন জিয়াউল হাসান পিয়াল। এছাড়াও বিপ্লব সাহা কণ্ঠশিল্পী কণার সঙ্গে ‘আনচান আনচান করে মন’ শিরোনামের একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন। গানটি সুর ও সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন রাজন সাহা। বিপ্লব সাহা বলেন, ‘ছোটবেলা থেকেই আমি গানের প্রতি দূর্বল ছিলাম। কিন্তু পেইন্টিং ও ডিজাইনের কারণে গান গাওয়া হয়ে ওঠেনি। এবার শখের বশেই গান দু’টিতে কণ্ঠ দিলাম। দিনাত জাহান মুন্নি গানটি গাওয়ার জন্য আমাকে অনেক সহযোগিতা করেছেন। তার উৎসাহেই বলা যায় জনপ্রিয় গানটিতে কণ্ঠে তুলেছি। আর কণার সঙ্গে গানটি গাইতে পেরেও বেশ আনন্দ হচ্ছে। রাজন সাহার মৌলিক সুরে মুগ্ধ হয়ে গানটি গাইতে বাধ্য হয়েছি।’

শখের বসে বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করি-সামিনা চৌধুরী

Samina-Chowdhuryজনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী সামিনা চৌধুরী। দীর্ঘ ক্যারিয়ারে এ যাবাৎ অসংখ্য শ্রোতাপ্রিয় গান তিনি উপহার দিয়েছেন। পাশাপাশি দেশ-বিদেশে স্টেজ শো নিয়ে ব্যসত্ম সময় পার করছেন। এরই মধ্যে নতুন একক অ্যালবামের কাজ শেষ করেছেন তিনি। দ্বৈত অ্যালবামের ও কাজ করছেন। এ ছাড়া বেছে বেছে প্লেব্যাক করছেন। সম্প্রতিক সময়ে তার ব্যসত্মতার চুম্বক অংশ তুলে ধরা হলো আনন্দ আলোর পাঠকদের জন্য।

আনন্দ আলো: বর্তমানে আপনার ব্যসত্মতা কী নিয়ে?

সামিনা চৌধুরী: বর্তমানে আমার ব্যসত্মতা শুধু গান নিয়ে। অডিও অ্যালবামের কাজ করছি। দেশ-বিদেশে স্টেজ প্রোগ্রাম নিয়ে ব্যসত্ম আছি। পাশাপাশি চলচ্চিত্রে গান করছি।

আনন্দ আলো: আপনার একক অ্যালবামের কী খবর?

সামিনা চৌধুরী: ‘পুস্পবৃষ্টি’ নামক একটি একক অ্যালবামের কাজ অনেক আগেই শেষ হয়েছে। একটি ডুয়েট গান সহ অ্যালবামে গান রয়েছে মোট ১১টি। গান গুলো হলো- ‘লক্ষ তারার রাতের আকাশ’, ‘তোমার আকাশ থেকে’, ‘তুমি চোখ রেখেছ বলে’, ‘এ ফাগুন যদি চলে যায়’, ‘আমার হৃদয়বীনার তারে’, ‘মনে হয় চলে যাই দূরে কোথাও’ ইত্যাদি। লক্ষ তারার রাতের আকাশ গানটি বাপ্পার সঙ্গে ডুয়েট গেয়েছি। অ্যালবামের সব গুলো গানের কথা খুবই সুন্দর। আর সুরও অসাধারণ। একদম পুরনোদিনের গানের মতো। সুর করেছেন আব্দুল বারী ও বাপ্পা। ‘পুস্পবৃষ্টি’ অ্যালবামটি সঙ্গীত পরিচালনা করেছেন ইবরার টিপু ও বাপ্পা মজুমদার। খুব শিগগিরই অ্যালবামটি প্রকাশ পাবে। আশা করছি গান গুলো শ্রোতাদের কাছে ভালো লাগবে।

আনন্দ আলো: প্লেব্যাকের কী খবর?

সামিনা চৌধুরী: চলচ্চিত্রে আমি যে গান গুলো করেছি সে গুলো শ্রোতাপ্রিয় হয়েছে। তাই খুব বেছে বেছে কাজ করি প্লেব্যাকে। সম্প্রতি‘দলিল’ নামের নতুন একটি ছবিতে প্লেব্যাক করেছি। গানটি খুবই ভালো হয়েছে। এ ছাড়াও বেশ কয়েকটি ছবিতে প্লেব্যাক করার কথা হয়েছে আমার।

আনন্দ আলো: গানের বাইরে আপনাকে বিজ্ঞাপন ও নাটকে অভিনয় করতে দেখা যায়?

সামিনা চৌধুরী: একানত্ম শখের বসে আমি বিজ্ঞাপন ও নাটকে কাজ করি। আমি গানের মানুষ। গান নিয়ে থাকতে চাই