কখনো কখনো মিথ্যা কথাও বলি!-শাহাদাৎ

কখনো কখনো মিথ্যা কথাও বলি!-শাহাদাৎ

89
SHARE
SHahadath

মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: আপনি কী শাহাদাৎ?

শাহাদাৎ: হ্যাঁ। আমি শাহাদাৎ হোসেন।

আনন্দ আলো: শাহাদাৎ নামের অর্থ কী?

শাহাদাৎ: শাহাদাৎ নামের অর্থ সত্যের সাক্ষী।

আনন্দ আলো: এত কাজ থাকতে অভিনয়ে এলেন কেন?

শাহাদাৎ: ছোটবেলা থেকে অভিনয়ের প্রতি দুর্বলতা ছিল বলেই অভিনয়ে আসা।

আনন্দ অলো: জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় যে কাজ অর্থাৎ নাটকটি…

শাহাদাৎ: মঞ্চের ‘বেহুলা সুন্দরী’ নাটকটি আমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয় বলতে পারেন।

আনন্দ আলো: প্রতিদিন ঘুম থেকে উঠে মনে মনে কী বলেন?

শাহাদাৎ: মনে মনে বলি দিনটা যেন আমার ভালো যায়।

আনন্দ আলো: কোনো গ্রামে আপনি শুটিং করতে গেলেন। ক্যামেরা, লাইট, অ্যাকশন বলার সঙ্গে সঙ্গে আপনার সামনে একটা হালুম হাজির হয়ে গেল তখন আপনি কী করবেন?

শাহাদাৎ: হা হা হা! হালুমকে দেখলেই আমি বাহাদুর হয়ে যাই। সুতরাং বাহাদুর যেরকম করে হালুমকে স্বাগতম জানায়। ঠিক সেইভাবে তাকে স্বাগতম জানাব শুটিং দেখার জন্য।

আনন্দ আলো: আপনাকে একদিনের জন্য মঙ্গলগ্রহে পাঠানো হলে কাকে সঙ্গে নিতে চাইবেন?

শাহাদাৎ: মঙ্গলগ্রহে যাওয়ার সময় মোবাইল সঙ্গে নিয়ে যাব। কারণ সেলফি তোলাটা মিস করা যাবে না।

আনন্দ আলো: যে নাটক দেখে কেঁদেছেন…

শাহাদাৎ: অনেক নাটক দেখে আমি কেঁদেছি। তবে আদনান আল রাজীবের ‘বিকেল বেলার পাখি’ নাটকটি দেখে আমি প্রচন্ড কেঁদেছি।

আনন্দ আলো: যাকে অথবা যাদের দেখে এখনো অভিনয় শিখি…

Shahadath-Cartoonশাহাদাৎ: তারিক আনাম খান, ফজলুর রহমান বাবু, সুবর্ণা মুস্তাফার অভিনয় দেখে এখনো অভিনয় শিখি।

আনন্দ আলো: শোনা কথা আপনি নাকি স্ত্রীকে ভয় পান?

শাহাদাৎ: ভাইরে স্ত্রীকে ভয় পায় না এমন বীর পুরুষ আছে নাকি?

আনন্দ আলো: জীবনের যে সময়টা ফ্রেমে বন্দী করে রাখার মতো…

শাহাদাৎ: আমার সন্তানদের হাসি। যখন ওরা আমাকে ঘিরে হাসে, খেলে, সেই সময়টা ফ্রেমে বন্দী রাখার মতো।

আনন্দ আলো: কখন নিজের ওপর রাগ হয়?

শাহাদাৎ: না বুঝে যখন কোনো খারাপ কাজ করি তখন খুব নিজের ওপর রাগ হয়।

আনন্দ আলো: একদিন হঠাৎ দেখলেন আপনি ছেলে থেকে মেয়ে হয়ে গেলেন। তখন কী করবেন?

শাহাদাৎ: একজন অভিনেতা হিসেবে যে চরিত্রগুলোতে অভিনয় করতে পারি নাই তখন সেই চরিত্রগুলো করব।

আনন্দ আলো: মিডিয়ায় যে ব্যাপারটা ভালো লাগে না?

শাহাদাৎ: ‘অপাত্রে কন্যা দান’ এ ব্যাপারটা ভালো লাগে না।

আনন্দ আলো: আপনি নাকি জেগে জেগে স্বপ্ন দেখেন! ঘটনা কী?

শাহাদাৎ: স্বপ্ন তো জেগে জেগেই দেখি। কারণ ঘুমালে তো আর স্বপ্ন দেখা যাবে না। স্বপ্ন আমাকে ঘুমাতে দেয় না।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি ভালো গুণের কথা বলুন?

শাহাদাৎ: আমার পাঁচটি ভালো গুণ হচ্ছেÑ আমি বন্ধু হিসেবে খুব ভালো। পিতা হিসেবেও ভালো। স্ত্রী সন্তানকে প্রচÐ ভালোবাসি। স্ক্রিপ্ট না পড়ে আমি সেটে যাই না। আমি অভিনয়কে ভালোবাসি।

আনন্দ আলো: আপনার পাঁচটি খারাপ গুণের কথা বলুন।

শাহাদাৎ: আমার পাঁচটি খারাপ গুণ হচ্ছেÑ আমি সহজেই সবার সঙ্গে মিশতে পারি। মানুষের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করতে পারি না। অল্পতে রেগে যাই। সময় মতো খাওয়া দাওয়া করতে পারি না। কখনো কখনো মিথ্যা কথা বলি।

আনন্দ আলো: যে খাবার খেতে সবচেয়ে ভালো লাগে।

শাহাদাৎ: যে কোনো খাবারই খেতে ভালো লাগে। তবে বউ-এর হাতের পোলাউ খেতে সবচেয়ে বেশি ভালো লাগে।

আনন্দ আলো: আপনার প্রেমের কথা এক লাইনে বলুন?

শাহাদাৎ: তোমার ভালোতে বাস করি আমি।

আনন্দ আলো: ‘গহীন বালুচর’ ছবিতে আপনি অভিনয় করেছেন। বালুচরে কী খুঁজে পেয়েছেন?

শাহাদাৎ: রোমিও জুলিয়েট-এর প্রেমের গল্পের রসটা খুঁজে পেয়েছি।