এটা সত্যি ভালোলাগার মতো খবর!

এটা সত্যি ভালোলাগার মতো খবর!

38
SHARE
Mehjabin

এবার ঈদে মেহজাবীন অভিনীত বেশ কয়েকটি নাটক প্রচার হয়। তবে বেশ আলোচনায় এসেছে ‘বড় ছেলে’ টেলিফিল্মটি। আরো ছিল ‘মেয়েটির হাতে যাদুর প্রদীপ’, ‘আমি তুমি এবং আমরা’, ‘ছেলেটি অবন্তীকে ভালোবেসেছিল’সহ আরো কিছু নাটক। কথা হলো মেহজাবীনের সঙ্গে-

আনন্দ আলো: ‘বড় ছেলে’ নাটকটি এত প্রশংসিত হবে, সেটা বুঝেছিলেন?

মেহজাবীন: স্ক্রিপ্ট পড়ে বুঝি নাই। তবে শুটিং স্পটে শুটি করার সময় বুঝেছিলাম নাটকটি দর্শক বেশ গ্রহণ করবে। কিন্তু এতটা হবে সেটা বুঝি নাই। কারণ আমাদের একটা ধারণা আছে যে, মানুষ এখন টিভি কম দেখে। কিন্তু ভালো কাজ হলে আসলেই মানুষ সেটা দেখে। এবার ঈদে বেশ কয়েকটি নাটকের প্রশংসা শুনেছি। এটা সত্যি ভালো লাগার মতো খবর।

আনন্দ আলো: ‘বড় ছেলে’ শুটিং করার সময় নাকি গিøসারিন ছাড়াই কেঁদে ছিলেন?

মেহজাবীন: এটা আসলেই সত্যি। বেশ কয়েকটি কান্নার দৃশ্য ছিল। প্রথম দিকে চোখে গিøসারিন নিয়ে কান্নার অভিনয় করেছি। শেষ দৃশ্যটি এত আবেগঘন ছিল যা সংলাপ বলতে বলতে গিøসারিন ছাড়া সত্যি সত্যিই কেঁদে ফেলেছিলাম। শুধু আমি না, আমার কো-আর্টিস্ট অপূর্বও গিøসারিন ছাড়া শেষ দৃশ্যে কেঁদে দেয়।

আনন্দ আলো: ঈদে আপনার অভিনীত অন্য কোনো নাটক নিয়ে বলবেন?

মেহজাবীন: হ্যাঁ। এই ঈদে আমার অভিনীত আরেকটি নাটক আমার জন্য বিশেষ ছিল। সেটি হচ্ছে ‘মেয়েটির হাতে যাদুর প্রদীপ’। বিশেষ এ জন্য বলছি যে এখানে কোনো নায়ক নেই। তাই চরিত্রটি আমার জন্য চ্যালেঞ্জিং ছিল। কাজটি করেও বেশ মজা পেয়েছি।

আনন্দ আলো: নতুন কোনো কাজ শুরু করেছেন?

মেহজাবীন: এখুনি শুরু করিনি। তবে বেশ কয়েকটি নাটক নিয়ে কথা হচ্ছে। খুব শিগগিরই কাজ শুরু করবো।

আনন্দ আলো: চলচ্চিত্রে কাজের বিষয়ে কিছু বলবেন-

মেহ্জাবীন: অবশ্যই চলচ্চিত্রে কাজ করতে চাই। কিন্তু প্রায়ই বাণিজ্যিক ছবিতে কাজের প্রস্তাব আসে। কিন্তু গল্প শুনতে বসলে মনে হয়, এ ধরনের গল্পের ছবি আগে দেখেছি। ফ্রেশ গল্প, ভালো পরিচালক, ভালো সহশিল্পী পেলে অবশ্যই কাজ করব। তবে আমি আসলে আরো সময় নিতে চাই।