একজন শিল্পীর নিজের সব কাজই সমান প্রিয়

একজন শিল্পীর নিজের সব কাজই সমান প্রিয়

765
0
SHARE
Mousumi-Hamid

বড় ও ছোটপর্দার ব্যস্ত অভিনেত্রী মৌসুমী হামিদ। ঈদের কয়েকটি নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করে দৃষ্টি কেড়েছেন তিনি। নতুন কাজ নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন তিনি। কথা হলো তার সঙ্গে-

আনন্দ আলো: কী ব্যস্ত এখন?

মৌসুমী হামিদ: বাংলাভিশনের ধারাবাহিক ‘স্বর্ণলতা’র শুটিং শুরু করেছি ঈদের পর থেকেই। এছাড়া গোলাম সোহরাব দোদুলের ‘সংসার’(এনটিভি) ধারাবাহিকেরও শুটিং করছি। এখন আপাতত ধারাবাহিকগুলোর শুটিং নিয়েই ব্যস্ত রয়েছি। অন্যদিকে সুমন আনোয়ারের ‘সিনোমাওয়ালা’(এনটিভি) ও অরণ্য আনোয়ারের ‘বহুরূপী’(আরটিভি) নাটকগুলো প্রচার হচ্ছে। এছাড়াও আরেকটি নতুন ধারাবাহিকের  টিং  রু করার কথা রয়েছে।

আনন্দ আলো: ঈদের কাজের কেমন সাড়া পেলেন?

মৌসুমী হামিদ: ঈদে ৮-৯টি নাটক ও টেলিছবিতে অভিনয় করেছি। ভালো গল্প, চিত্রনাট্য, পরিচালক দেখেই এগুলো নির্বাচন করেছিলাম। একজন শিল্পীর নিজের সব কাজই সমান প্রিয়। এবার আমি গল্প দেখে নাটক বাছাই করেছি। তাই প্রতিটি কাজ করেই আমার ভালো লেগেছে। এগুলোর মধ্যে-সুমন আনোয়ারের ‘স্বপ্নকুহক’ ও ‘সংকট’, গৌতম কৈরীর ‘ফড়িং জীবন’-এর কথা বিশেষভাবে বলতেই হবে।

আনন্দ আলো: ঈদে অন্যদের কাজ দেখেছেন?

মৌসুমী হামিদ: আমি বরাবরই অন্যদের অভিনয় দেখার চেষ্টা করি। ইউটিউব নয়, টিভির সামনে বসে নাটক দেখতে পছন্দ করি। শিহাব শাহীন ভাইয়ের কয়েকটি কাজ দেখেছি। এছাড়াও গোলাম সোহরাব দোদুল ভাইয়ের ‘ডুয়েল পেহ্ম’ টেলিছবিটিও অসম্ভব ভালো লেগেছে।

আনন্দ আলো:বড়পর্দায় আবার ফিরবেন কবে?

মৌসুমী হামিদ: এ বছরই বড়পর্দায় কাজ  রু করবো। সুমন আনোয়ারের ‘কয়লা’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের জন্য প্রসৱাব পেয়েছি। এর কাজ ডিসেম্বর থেকে  রু হওয়ার কথা। আমার বিশ্বাস, ভালো একটি গল্পে কাজ করতে যাচ্ছি।

নতুন রূপে হুমায়ূন আহমেদের জুতার বাক্স

প্রায় ছয় বছর আগে কথাশিল্পী-নির্মাতা হুমায়ূন আহমেদ তার নিজের লেখা গল্প থেকে পরিচালনা করেছিলেন হাসির নাটক ‘জুতার বাক্স’। এতে অভিনয় করেছিলেন ফারুক আহমেদ, মাজনুন মিজান, শিমন, দিপালী। চ্যানেল আইয়ের জন্মদিন উপলক্ষে এটি নতুনভাবে তৈরি করেছেন মেহের আফরোজ শাওন। সম্প্রতি গাজীপুরের নুহাশ পল্লীতে এর দৃশ্যায়ন করা হয়। এ নাটকে প্রধান পাত্র-পাত্রী হিসেবে অভিনয় করেছেন অন্তু করিম ও হিমি। এছাড়াও অভিনয় করেছেন মুনিরা মিঠু, ঝুনা চৌধুরী প্রমুখ। ১ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭.৫০ মিনিটে চ্যানেল আইয়ের পর্দায় প্রচার হবে নতুন ‘জুতার বাক্স’। হুমায়ূন আহমেদের গল্প অবলম্বনে নির্মিত ‘চৌধুরী খালেকুজ্জামানের গুণের কোনো সীমা নাই’ নাটকে শানের পরিচালনায় অভিনয় করেছিলেন হিমি।

চমক দেখালো কণ্ঠশিল্পীদের অভিনয়!

শুভ্রদেব, আগুন, ডলি সায়ন্তনী, মেহরাব, সিঁথি সাহা ও পড়শী- এদেরকে সবাই সঙ্গীতশিল্পী হিসেবেই চিনেন। মজার বিষয় হচ্ছে গত ঈদে জনপ্রিয় এই সঙ্গীত তারকাদের নাটকে অভিনয় করতে দেখা গেছে। নতুন পরিচয়ে দর্শক সানন্দ্যে গ্রহণও করেছেন। ফারিয়া হোসেনের রচনা ও আরিফ খানের পরিচালনায় ‘শ্রাবণ এসেছিলো গান হয়ে’ টেলিছবিতে একসঙ্গে অভিনয় করেছেন লি সায়ন্তনী, মেহরাব, সিঁথি সাহা ও পড়শী। টেলিছবিটিতে শাহেদ চরিত্রে হাজির হয়েছেন আগুন। তার স্ত্রী পলি চরিত্রে অভিনয় করেছেন ডলি সায়ন্তনী, তার ছোট বোনের ভূমিকায় পড়শী। এছাড়া তিথি চরিত্রে সিঁথি, মিশুক চরিত্রে মেহরাব ও সীমান্ত চরিত্রে অভিনয় করেছেন শুভ্রদেব। ঈদ অনুষ্ঠানমালায় ভিন্নধর্মী টেলিছবিটি দর্শকদের অন্যরকমই লেগেছে। কারণ সচারচর যাদের গান গাইতে দেখা যায়, সেখানে তাদেরকে অভিনয় দেখা যাওয়া ভিন্ন আমেজই বটে।