Home আরোও বিভাগ টিভি গাইড একজন অভিনয়শিল্পীর জন্য অভিনয়টাই প্রধান

একজন অভিনয়শিল্পীর জন্য অভিনয়টাই প্রধান

SHARE
Amin-Khan

দর্শকপ্রিয় অভিনেতা আমিন খান। অভিনয়ের পাশাপাশি একটি করপোরেট প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করছেন। অভিনয় ও সমসাময়িক নানা বিষয়ে কথা হলো তার সঙ্গে-
আনন্দ আলো: বর্তমানে কী কাজ করছেন?
আমিন খান: ছোটপর্দায় বিশেষ দিবসের নাটক-টেলিছবিতে অভিনয় করতে ভালো লাগে। কারণ বিশেষ দিবসগুলোর প্রতি দর্শকদের আগ্রহ অনেক বেশি থাকে। তাই আসছে ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে একটি খণ্ড নাটকের কাজ শেষ করেছি। এর শিরোনাম ‘তোমার আমার গল্প’। এখানে আমার বিপরীতে অভিনয় করেছে টয়া।
আনন্দ আলো: আর বড়পর্দায় কী কাজ করছেন?
আমিন খান: ‘দুদু মিয়া’ ছবির শুটিং করছি। ফরায়েজি আন্দোলনের অন্যতম নেতা এবং ভারতবর্ষে ইংরেজ শাসনের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামের ওপর ভিত্তি করে চলচ্চিত্রটির পটভূমি গড়ে উঠেছে। এই ছবিটির এখনো ৮/১০ দিনের কাজ বাকি আছে। এটি পরিচালনা করছেন ডায়েল রহমান।
আনন্দ আলো: ছোটপর্দা বনাম বড়পর্দা…
আমিন খান: আমি দুই পর্দাতেই অভিনয় করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। কারণ আমি মনে করি, একজন অভিনয়শিল্পীর জন্য অভিনয়টাই প্রধান। সেটি যেকোনো পর্দাতেই হতে পারে। এক কথায় বলতে গেলে আমি পর্দা বিভাজনে বিশ্বাসী নই। এছাড়া আমাদের প্রতিবেশী দেশ ভারতে অনেক বড়মাপের তারকারা ছোট পর্দায় বিভিন্ন পণ্যের মডেল হচ্ছেন কিংবা অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করছেন।
আনন্দ আলো: আপনি তো একটি কোম্পানির শুভেচ্ছা দূত হয়েছেন…
আমিন খান: হ্যাঁ। আমি ওয়ালটন গ্রুপ প্রতিষ্ঠানের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করছি। দেশীয় পণ্যের এই প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন প্রচারণায় অংশ নিতে পেরে আমি আনন্দিত। অভিনয়ের পাশাপাশি এর যাবতীয় কার্যক্রম নিয়েই আমি ব্যস্ত থাকি।
আনন্দ আলো: বর্তমানে দেশের চলচ্চিত্রের পরিবেশ কেমন মনে হয়?
আমিন খান: আমাদের চলচ্চিত্র নির্মাণের সংখ্যা কমে গেছে। যে ছবিগুলো নির্মাণ হচ্ছে তার মধ্যে অনেক ত্রুটি-বিচ্যুতি দেখা যাচ্ছে। ডিজিটাল চলচ্চিত্রের নামে যেমন-তেমন কিছু একটা নির্মাণ করলে দর্শক কখনো সেটি গ্রহণ করবে না। দর্শক নতুনত্ব চায়। কিন্তু নির্মাণশৈলীতে ও উপস্থাপনায় নতুনত্ব না থাকলে সেই চলচ্চিত্র নির্মাণের মধ্যেই সীমাবদ্ধ থাকবে। তবে আগের চেয়ে চলচ্চিত্র জগতের অবস্থা কিছুটা আশাব্যঞ্জক।

মোস্তফা কামালের ‘নীল জোছনা’ জমে উঠেছে

‘নীল জোছনা’ একটি ধারাবাহিক নাটকের নাম। বাংলাদেশ টেলিভিশন অর্থাৎ বিটিভিতে প্রতি শনিবার সন্ধ্যে ৭টায় নাটকটি প্রচার হচ্ছে। বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক, সাংবাদিক ও নাট্যকার মোস্তফা কামালের লেখা বিটিভির এই নতুন ধারাবাহিকটি ইতোমধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। দর্শকের কাছে জমে উঠেছে নাটকটি। নাটকটির গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছেন ওয়াহিদা মল্লিক জলি, ফজলুর রহমান বাবু, আফরোজা বানু, মাজনুন মিজান, দীপা খন্দকার, ফারজানা ছবি, হুমায়রা হিমু, আরমান পারভেজ মুরাদসহ নবীন প্রবীণ একঝাঁক তারকাশিল্পী। নাটকটি প্রযোজনা করছেন কামাল উদ্দিন আহমেদ। নাট্যকার হিসেবে মোস্তফা কামালের ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। তার আলোচিত একক নাটকের মধ্যে রয়েছে- বিটিভির ‘নীল জোছনা’ তার প্রথম ধারাবাহিক নাটক। তার উল্লেখযোগ্য নাটকের মধ্যে রয়েছে প্রতীক্ষার শেষ প্রহর, পোড়ামাটির ঘর, অনিতা, আমি কি তোমার নই?, বাড়ি নাম্বার ৩০৩, আমাদের এই নগরে, একজন রাগিব আলী, হ্যালো ব্যাচেলর।
মোস্তফা কামাল এই সময়ের একজন জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক। এবারের একুশে বইমেলায় তার ৪টি বই প্রকাশিত হবে। বইগুলো হলো- ইতিহাসভিত্তিক উপন্যাস অগ্নিকন্যা। বইটি প্রকাশ করবে পার্ল পাবলিকেশন্স। রম্য গ্রন্থ কিছু হাসি কিছু রম্য। প্রকাশ করবে অনন্যা। গোয়েন্দা উপন্যাস প্রিন্স উইলিয়ামের আন্টির খোঁজে। প্রকাশ করবে অনন্যা। প্রেমের উপন্যাস ‘রূপবতী’। প্রকাশ করবে অন্যপ্রকাশ।
এক সংক্ষিপ্ত সাক্ষাৎকারে মোস্তফা কামাল বলেন, বিটিভিতে ‘নীল জোছনা’ ধারাবাহিকটি নিয়ে আমি বেশ আশাবাদী। দর্শক বেশ পছন্দ করেছে নাটকটি। লেখালেখি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এবারে একুশে বইমেলায় আমার ৪টি বই বেরুবে। বইগুলো খুব যত্ন করে লিখেছি। বিশেষ করে ‘অগ্নিকন্যা’ লিখতে পুরো একটা বছর লেগেছে। আমার রম্য কলামের বই ‘কিছু হাসি কিছু রম্য’ নতুন আঙ্গিকে প্রকাশিত হবে। অন্যপ্রকাশ থেকে প্রেমের উপন্যাস ‘রূপবতী’ প্রকাশ হবে। এই উপন্যাসটি আমার অনেক প্রিয়। উল্লেখ্য মোস্তফা কামাল পেশাগত জীবনে কালের কণ্ঠের নির্বাহী সম্পাদক।

নতুন ধারাবাহিকে তারিন

নতুন একটি ধারাবাহিক নাটকে অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী তারিন। নাটকের নাম ‘হাটখোলা’। বৃন্দাবন দাসের রচনায় এটি পরিচালনা করেছেন সাগর জাহান। এবারই প্রথম তারিনের সঙ্গে এই ধারাবাহিকটিতে অভিনয় করেছেন আ খ ম হাসান ও সাজু খাদেম। এতে মেহেরজান চরিত্রে অভিনয় করেছেন তারিন। এরই মধ্যে রাজধানীর অদূরে পূবাইলে ধারাবাহিক নাটকটির দুটি লটের শুটিং শেষ হয়েছে। গল্পে দেখা যাবে মেহেরজান গ্রামেরই মেয়ে। শহরে একটি মেডিক্যাল কলেজে পড়াশোনা করে। ছুটিতে গ্রামে বেড়াতে আসে। বেড়াতে আসার পরই ঘটতে থাকে মজার মজার ঘটনা। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে তারিন বলেন, ‘আমার সঙ্গে এই ধারাবাহিকে শাহনাজ খুশী, আ খ ম হাসান, সাজু খাদেম, রুনা খান অভিনয় করেছেন। নাট্যকার কিংবা পরিচালক সাগর জাহানের ভাবনার জায়গাটা আমার পরিচিত। তার পরিচালনায় নতুন ধারাবাহিকটিতে কাজ করাটা দারুণভাবে উপভোগ করছি।’ পরিচালক সাগর জাহান জানান শিগগিরই ধারাবাহিকটি বৈশাখী টিভিতে প্রচার শুরু হবে।