আমরা সবাই সেরা!

আমরা সবাই সেরা!

SHARE
Khude-gaanraz

ফাতেমা রহমান, নুশিন আদিবা, আছিয়া ইসলাম দোলা, রাকিবা ইসলাম ঐশী, কানিজ খাদিজা তিন্নি, মৌমিতা বড়–য়া, আতিয়া আনিসা, মারোফা জান্নাত তৃষা, শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা, মনিরুল ইসলাম নান্নু, আল আমিন ইবনে কবির আপেল, তরিক মৃধা। এরা প্রত্যেকেই ফিজআপ চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ ২০১৭-এর প্রতিযোগিতায় সেরা ১২ প্রতিযোগী। নিজেদের প্রতিভার গুণে তারা আজ সেরা ১২- তে এসে দাঁড়িয়েছে। শীতের এক দুপুরে আনন্দ আলোর স্টুডিওতে তাদেরকে আমন্ত্রণ জানানো হয়। সংগীত নিয়ে তাদের ভাবনার কথাগুলা বলেন আনন্দ আলোর সঙ্গে। লিখেছেনÑ মোহাম্মদ তারেক

আনন্দ আলো: ফিজআপ চ্যানেল আই সেরা কণ্ঠ প্রতিযোগিতায় সেরা বারোতে আছেন, আপনাদের অনুভ‚তি কেমন?

নুশিন আদিবা: কখনো ভাবতে পারিনি সেরা বারতে নিজের স্থান করে নিতে পারব। অনেক ধাপ পেরিয়ে সেরা বারতে আছি। এটা আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া।

আল আমিন ইবনে কবির আপেল: ফিজআপ চ্যানেল আই সেরা কণ্ঠের সেরা ১২ তে আসতে পেরে নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে করছি। অনেক স্বপ্ন ছিল সেরা বারোতে আসার। স্বপ্নটা পূরণ হলো।

মৌমিতা বড়–য়া। অনুভ‚তি এককথায় অসাধারণ। সেরা বারোতে আছি ভাবতেই ভালো লাগছে। প্রত্যাশার সঙ্গে প্রাপ্তি মিলেছে তাই ভালো লাগছে।

আছিয়া ইসলাম দোলা: সেরা ১২- তে আসতে পেরে অনেক ভালো লাগছে। তবে সেরা ১২-এ এসে আনন্দের পাশাপাশি টেনশনও কাজ করছে। এখান থেকে নিজের একটি ভালো প্লাটফর্ম তৈরি করে নিতে চাই।

রাকিবা ইসলাম ঐশী: হাজার হাজার প্রতিযোগীর মধ্যে থেকে সেরা ১২ তে আসতে পারাটা সত্যিই স্বপ্নের মতো। আমি ভাবতে পারিনি এত তাড়াতাড়ি সেটা পূরণ হবে।

কানিজ খাদিজা তিন্নি: সেরা বারোতে স্থান করে নিয়েছি। এ অনুভ‚তি ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। খুবই ভালো লাগছে।

আতিয়া আনিসা: সেরা বারোতে নিজের স্থান করে নিতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। মহান আল্লাহ্র কাছে শোকর আদায় করছি।

তরিক মৃধা: সেরা ১২ হওয়ার অনুভ‚তি অনেক ভালো। কিন্তু টেনশন অনেক বেশি। কারণ এখন আরও অনেক পরিশ্রম করতে হবে।

শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা: অনেক ভালো লাগছে সেরা ১২- তে আসতে পেরে। সেরা ১২- তে আসতে না পারলে হয়তো অনেক কিছু থেকে বাদ পড়ে যেতাম।

মনিরুল ইসলাম নান্নু: সেরা ১২ তে আসার পর আমার মনে হলো আমি আমার স্বপ্নের এক ধাপ এগিয়ে গেলাম। মনের মধ্যে একটা আত্মবিশ্বাস জন্ম নিয়েছে।

ফাতেমা রহমান: ফিজআপ চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ ২০১৭ এর সেরা ১২ তে আসায় সর্বপ্রথমে আমি মহান আল্লাহর নিকট অশেষ কৃতজ্ঞতা জানাই। এই প্রতিযোগিতায় সেরা ১২- তে আসতে পারা আমার জন্য অনেক সৌভাগ্যের এবং আনন্দের।

মারোফা জান্নাত তৃষা: কোনো স্বপ্ন পূরণ করতে হলে অবশ্যই পরিশ্রম করতে হয়। আর সেই কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে যখন স্বপ্ন পূরণ হয় তখন অনুভ‚তিটা অবশ্যই সব আনন্দের চেয়ে বেশি।

আনন্দ আলো: আপনারা বিভিন্ন জেলা থেকে এসেছেন। ক্যাম্পে সবাই এক সঙ্গে আছেন। আপনাদের মাঝে বোঝাপড়া কেমন?

মৌমিতা বড়–য়া: বিভিন্ন জেলা থেকে এলেও ক্যাম্পে আমরা সবাই একই পরিবারের মতো মিলে মিশে আছি।

আছিয়া ইসলাম দোলা: আমরা সবাই খুবই ভালো বন্ধু। নিজেদের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা সবাই সবার সঙ্গে শেয়ার করি।

ফাতেমা রহমান: সবাই সবার প্রতি খুবই আন্তরিক। একজন আরেকজনকে সাহায্য-সহযোগিতা করার মাধ্যমে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে।

আতিয়া আনিসা: আমরা সবাই বিভিন্ন জেলা থেকে এলেও আমাদের মধ্যে আন্তরিকতা অনেক।

রাকিবা ইসলাম ঐশী: ক্যাম্পে সবার মধ্যে বোঝাপড়াটা এত ভালো যে অল্প কিছু দিনের মধ্যে আমরা সবাই অনেক আপন হয়ে গেছি।

শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা: এখানে সবাই বন্ধুর মতো। বোঝাপড়াটা খুবই ভালো। সবার মধ্যেই প্রতিভা আছে। প্রতিদিন কিছু না কিছু শিখছি।

মারোফা জান্নাত তৃষা: সবাই বিভিন্ন জেলা থেকে এলেও আমাদের মধ্যে বোঝাপড়াটা খুবই ভালো। আমরা সবাই সবাইকে সাহায্য করার চেষ্টা করি এবং অন্যের মতেরও গুরুত্ব দেই।

নুশিন আদিবা: এখানে সবাই এত ভালো যে বলার অপেক্ষা রাখে না। আমরা যে যে বিষয়ে পারদর্শী তার থেকে সেটা আয়ত্ত¡ করার চেষ্টা করি।

তরিক মৃধা: আমরা এখন চ্যানেল আই পরিবারের সদস্য। আমাদের মধ্যে সম্পর্কটা ভাই- বোনের মতো মধুর।

আল আমিন ইবনে কবির আপেল: বিভিন্ন জেলা থেকে এলেও আমাদের মধ্যে বোঝাপড়াটা বেশ ভালো। কারো মাঝে অহংকার নাই।

মনিরুল ইসলাম নান্নু: আমরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে এসেছি। আমাদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। সবার ভেতরে বোঝাপড়া খুবই ভালো।

কানিজ খাদিজা তিন্নি: আমরা সবাই খুবই ভালো বন্ধু। সবাই সবার সুবিধা-অসুবিধার দিকে খেয়াল রাখি। কোনো সমস্যা হলে সমাধানের চেষ্টা করি।

আনন্দ আলো: প্রতিযোগিতায় কাকে সেরা মনে করেন?

ফাতেমা রহমান: ফিজআপ-চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতায় সেরা ১২ তে যারা আছেন সবাই সেরা। তারপরও সেরা একজনই হবে। যা নির্ভর করছে শ্রদ্ধেয় বিচারক এবং দর্শকদের ওপর।

আতিয়া  আনিসা: সবাই যার যার সেরাটা প্রদর্শন করেই সেরা বারোতে স্থান করে নিয়েছে। সেরা ১২ প্রতিযোগীর যে কারোরই যোগ্যতা আছে সেরা হওয়ার।

কানিজ খাদিজা তিন্নি: আমরা প্রত্যেকেই সেরা। সবাই ভালো গান করি বলেই আজ সেরা ১২- তে আছি। নির্দিষ্ট করে কাউকে সেরা বলাটা খুব কঠিন।

আল আমিন ইবনে কবির আপেল: সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতায় সবাই সেরা হওয়ার যোগ্যতা রাখে। অতএব আমি মনে করি আমি নিজেই সেরা।

মৌমিতা বড়–য়া: সবাই এখানে সেরা হতে এসেছে। সবাই সবদিক থেকে চেষ্টা করছে কীভাবে সেরা হওয়া যায়। শেষ মুহূর্তের জন্য এখন আমরা সবাই পরিশ্রম করছি। গ্র্যান্ড ফিনালে খুঁজে পাওয়া যাবে সেরাকণ্ঠকে।

রাকিবা ইসলাম ঐশী: সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতায় সবাই সেরা হতেই এসেছে। সবাই সেরা হওয়ার যোগ্যতা রাখে। সবাই সবার নিজের জায়গা থেকে বেষ্ট।

আছিয়া ইসলাম দোলা: যেহেতু আমি সেরাকণ্ঠ হতে এসেছি সেহেতু আমি মনে করি নিজেই সেরা। তবে প্রত্যেকেই সেরা হওয়ার যোগ্যতা রাখে।

নুশিন আদিবা: আসলে এখানে সবাই সেরা। তা না হলে আমরা সেরা ১২ তে আসতে পারতাম না। সেরা কে সেটা বলা কঠিন। কারণ শেষ পর্যন্ত যে ভালো করবে সেই সেরা হবে।

মারোফা জান্নাত: কাউকে আলাদাভাবে সেরা বলাটা মুশকিল। কারণ প্রত্যেক প্রতিযোগী সেরাকণ্ঠ হওয়ার যোগ্যতা রাখে।

শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা: আমরা সবাই সেরা। কারণ প্রত্যেকের যোগ্যতা আছে বলেই সেরা ১২ তে স্থান করে নিয়েছে।

মনিরুল ইসলাম নান্নু: আমরা সবাই সবার সেরা প্রমাণ করছি বলে আজ টপটুয়েলভ-এ আসতে পেরেছি। এ ক্ষেত্রে আমাদের মাঝে কে সেরা হবে তা বলতে পারব না।

তরিক মৃধা: আমি মনে করি আমরা যারা এখন সেরা ১২ তে আছি তারা সবাই সেরা। কারণ সবাই ভালো গান করে বলেই এতদূর পর্যন্ত আসা।

আনন্দ আলো: আপনাদের কাছে গান কী?

ফাতেমা রহমান: আমার কাছে গান হচ্ছে প্রাণ এবং সাধনার বিষয়। সাধনা ছাড়া গানের জগতে টিকে থাকা সম্ভব নয়।

কানিজ খাদিজা তিন্নি: গান হচ্ছে কথা ও সুরের মিশ্রণ। গানেই সর্বশ্রেষ্ঠ বিদ্যা যা মানুষের মনের খোরাক মিটায়।

মৌমিতা বড়–য়া: আমার কাছে গান হচ্ছে ধ্যান, জ্ঞান, সাধনা। গান আমার জীবনের শিরা-উপশিরা সবটা জুড়েই আছে।

আছিয়া ইসলাম দোলা: গান আমার আত্মার সঙ্গে মিশে আছে। গানই আমার অক্সিজেন।

তরিক মৃধা: গানই আমার প্রার্থনা, গানই আমার স্বর্গ।

মনিরুল ইসলাম নান্নু: গানই আমার জীবন-মরণ, গানই আমার প্রাণ।

আতিয়া আনিসা: গান হচ্ছে গুরু মুখী বিদ্যা। যা দক্ষতা, প্রচেষ্টা এবং কৌশলের মাধ্যমে আয়ত্ব করতে হয়।

নুশিন আদিবা: গান আমার জীবন। জীবনের শেষ পর্যন্ত গানকে ধরে রাখতে চাই।

মারোফা জান্নাত: গান আমার জীবন-মরণ। গান ছাড়া বেঁচে থাকা অসম্ভব।

শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা: গান হচ্ছে কথা ও সুরের মিশ্রণ। গানেই সর্বশ্রেষ্ঠ বিদ্যা যা মানুষের মনের খোরাক মিটায়।

আল আমিন ইবনে কবির আপেল: গান হচ্ছে গুরু বিদ্যা ও সাধনার ব্যাপার। তাই খুব তাড়াতাড়ি শিল্পী হওয়া যায় না। আমার কাছে গান হচ্ছে আমাদের আত্মিক খোরাক মেটানোর প্রধান উপাদান।

রাকিবা ইসলাম ঐশী: আমি মনেকরি মানুষের মনের গভীর অনুভ‚তি প্রকাশ করার মাধ্যমই হচ্ছে গান। গান হচ্ছে আমার শ্বাস-প্রশ্বাস। গান ছাড়া বেঁচে থাকা অসম্ভব।

আনন্দ আলো: আপনাদের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

মারোফা জান্নাত তৃষা: ছোটবেলা থেকেই আমার ইচ্ছা ছিল একজন সংগীত শিল্প হওয়ার। আমি ফিজআপ চ্যানেল আই সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে আমার এ স্বপ্ন পূরণ করতে চাই।

আল আমিন ইবনে কবির আপেল: সবার আগে একজন ভালো মানুষ তারপর একজন প্রতিষ্ঠিত সংগীত শিল্পী হতে চাই।

তরিক মৃধা: আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা একজন ভালো শিল্পী হওয়া। শ্রোতাদের ভালো কিছুগান উপহার দিতে চাই।

নুশিন আদিবা: সুস্থ ধারার গান করা। আর বাংলা সংস্কৃতিকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরতে চাই।

ফাতেমা রহমান: আমি যেন একজন ভালো শিল্পী হতে পারি এটাই সৃষ্টিকর্তার কাছে আমার প্রার্থনা।

আতিয়া আনিসা: আমার পরিকল্পনা সেরাকণ্ঠ প্রতিযোগিতা থেকে বেশ ভালো কিছু শিখে যাওয়া। যা আমাকে ভবিষ্যতে একজন বড় শিল্পী হতে সাহায্য করবে। যা আমার জন্য অনেক বেশি প্রয়োজনীয়।

মৌমিতা বড়–য়া: ছোটবেলা থেকেই আমার ইচ্ছে ভালো একজন শিল্পী হওয়া। সেই লক্ষ্য নিয়ে সামনে এগোচ্ছি।

আছিয়া ইসলাম দোলা: আমার স্বপ্ন দেশের একজন প্রতিষ্ঠিত সংগীত শিল্পী হওয়া। আমি সেরাকণ্ঠের মধ্য দিয়ে আমার এ স্বপ্ন পূরণ করতে চাই।

কানিজ ফাতেমা তিন্নি: আমার ধ্যান জ্ঞান সব গান নিয়ে। গান শিখতে চাই, জানতে চাই এবং সুস্থ ধারার সংগীত চর্চা করতে চাই।

শেখ ফারজানা তাসনিম সুমনা: নিয়মিত চর্চার মাধ্যমে গানের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই।

মনিরুল ইসলাম নান্নু: একজন ভালো শিল্পী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই।

রাকিবা ইসলাম ঐশী: ভবিষ্যতে একজন সফল সংগীত শিল্পী হওয়ার ইচ্ছা। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন।