আবার বসছে বিপিএল উৎসব

আবার বসছে বিপিএল উৎসব

SHARE

চার ছক্কা হৈ হৈ বল গড়াইয়া গেল কই।  ক্রিকেট নিয়ে এই গানটি শুনলে সবার মনের মধ্যে কেমন যেন একটা জোশ চলে আসে।  আর ক’দিন পরেই সেই চার ছক্কার মারের জোশটা যেন আরো বেশি করে উপভোগ করবে এ দেশের ক্রিকেট প্রেমীরা।

২২ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার ক্রিকেট লীগ বিপিএল-এর তৃতীয় আসর।  ১৫ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে ফাইনাল।  ৬টি দল নিয়ে ২৪ দিন ব্যাপী এই উত্তেজনাময় টি২০ টুর্নামেন্ট তিন ভাগে অনুষ্ঠিত হবে ঢাকা ও চট্টগ্রামে।  প্রথম পর্ব ২২ থেকে ২৭ নভেম্বর ১২টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে ঢাকার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।  ৩০ নভেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর ২য় পর্বে ৮টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে চট্টগ্রামের এম এ আজিজ স্টেডিয়ামে।  ৬ ডিসেম্বর থেকে ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ ফাইনালসহ ১৪টি খেলা অনুষ্ঠিত হবে আবার ঢাকায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামে।

গত দুই আসরের চেয়ে এবারের আসর আরো জাঁকজমক ও জমকালো হবে বলে আয়োজকদের বিশ্বাস।  বিশ্বের নামীদামী টি২০ তারকা ক্রিকেটারদের প্রায় সবাই উপস্হিত থাকবেন এই আসরে।  সেই সঙ্গে থাকবে বাংলাদেশের জাতীয় দলের ক্রিকেটারসহ ক্লাব পর্যায়ের তরুণ তারকা ক্রিকেটাররা।  ২৪দিন ব্যাপী এই টুর্নামেন্টের সবগুলো খেলা সরাসরি সম্প্রচার হবে সারা বিশ্বের টিভি চ্যানেলে বাংলাদেশের নাইন চ্যানেলের মাধ্যমে।

সরাসরি সম্প্রচার: বিপিএল-এর ৩৪টি খেলা সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশের চ্যানেল নাইন।  বিপিএল তৃতীয় আসরের অফিসিয়াল টেলিকাস্ট পার্টনার তারা।  এছাড়াও চ্যানেল নাইন-এর কাছ থেকে সম্প্রচার সত্ত্ব কিনে খেলা দেখাবে পাকিস্তানের জিও সুপার, শ্রীলংকার এম টিভি স্পোর্টস, ভারতের স্টার ক্রিকেট, বৃটেনের চ্যানেল নাইন, ইউরোপ, ওয়েস্ট ইন্ডিজ, আমেরিকা ও আফ্রিকায় খেলা দেখাবে স্পোর্টস ম্যাক্স।

৬ দলে আইকনসহ যারা খেলবেন

ঢাকা ডাইনামাইটস

nasir-hossain Kumar_Sangakkara_আইকন খেলোয়াড় অলরাউন্ডার নাসির হোসেন, তিনি এই দলের ক্যাপ্টেন।  ঢাকা ডাইনামাইটস-এর মালিক বেক্সিমকো গ্রুপ।  এই দলের দেশি খেলোয়াড়: মো: মোস্তাফিজুর রহমান, মোশাররফ হোসেন রুবেল, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, শামসুর রহমান, মো: সৈকত শুক্কুর।  বিদেশি খেলোয়াড়: কুমার সাঙ্গাকারা (শ্রীলংকা), সোহাইল খান (পাকিস্তান), শাহজাইদ (পাকিস্তান), ডেভিড মালান (ইংল্যান্ড), রাইয়ান টেন ডোসাট (নেদারল্যান্ডস)।

চট্টগ্রাম ভাইকিংস

Tamim Amirআইকন খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন তামিম ইকবাল।  চট্টগ্রাম ভাইকিংস এর মালিক ডিবিএল গ্রুপ।  এই দলে দেশি খেলোয়াড়: নাফিস ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন আহমেদ, জিয়াউর রহমান, ইলিয়াস সানি, নাঈম ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, ইয়াসির আলী চৌধুরী, মো: শফিউল ইসলাম, আসিফ আহমেদ রাতুল।  বিদেশি খেলোয়াড়: জীবন মেন্ডিস (শ্রীলংকা), চামারা কাপুগেদারা (শ্রীলংকা), রবিন পিটারসেন (দক্ষিণ আফ্রিকা), এলটন চিগুম্বরা (জিম্বাবুয়ে), মোহাম্মদ আমির (পাকিস্তান), সাঈদ আজমল (পাকিস্তান), উমর আকমল (পাকিস্তান), কামরান আকমল (পাকিস্তান)।  এই দলের মিডিয়া পার্টনার চ্যানেল আই।

চ্যাম্পিয়নই আমাদের লক্ষ্য

Abdul-Wahad-chittago#CB0C3Bআব্দুল ওয়াহেদ, চেয়ারম্যান, ডিবিএল গ্রুপ, স্বত্বাধিকারী, চিটাগং ভাইকিংস

আনন্দ আলো: এবারের বিপিএল এর চিটাগং ভাইকিংসের কর্ণধার আপনি।  আপনার দল সম্পর্কে জানতে চাই।

আব্দুল ওয়াহেদ: আমাদের প্রত্যাশা মতোই দল হয়েছে বলে আমরা খুবই খুশি।  আমরা সব সময় তামিম ইকবালের মতো একজন আইকন চেয়েছিলাম, ওকেই পেয়েছি।  চাটগাঁর ক্রিকেট হিরো তামিমকে পেয়ে আমরা সবচেয়ে বেশি সন্তুষ্ট।  যেভাবে দল করতে চেয়েছিলাম, সেভাবেই হয়েছে।  আমরা এইবার দল গড়েছি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই।  আর তামিমকে পেয়ে সে আশা আরও উজ্জ্বল হয়েছে।

আনন্দ আলো: চার নম্বর ক্রমিকে আপনারা আইকন বাছার সুযোগ পেলেন।  তামিম ইকবালকে নিয়ে নাকি খুব টেনশনে ছিলেন?

আব্দুল ওয়াহেদ: তামিম ইকবালকে নিয়ে আমরা একটু টেনশনে ছিলাম, এটা সত্যি।  লটারিতে আমাদের সুযোগ আসে চার নম্বরে।  এর আগে বরিশাল বুলসের সুযোগ থাকা সত্ত্বেও তারা তামিমকে দলে নেয়নি।  তারা মাহমুদুল্লাহ রিয়াদকে ডেকেছেন।  তাদের টিমের জন্য রিয়াদ পছন্দের খেলোয়াড় ছিলেন।  পরের দলটাই ছিল আমাদের চিটাগং ভাইকিংস।  আমরা চাচ্ছিলাম তামিমকেই।  শেষ পর্যন্ত তাকে পেয়ে গেলাম।  আইকন ক্রিকেটারদের মধ্যে একমাত্র ভাগ্যবান তামিম ইকবাল যিনি নিজ বিভাগের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পেয়েছেন।

আনন্দ আলো: চিটাগং ভাইকিংস স্কোয়াডে কারা কারা খেলছেন?

আব্দুল ওয়াহেদ: তামিম ইকবাল, নাফিস ইকবাল, এনামুল হক বিজয়, তাসকিন আহমেদ, জিয়াউর রহমান, ইলিয়াস সানি, নাঈম ইসলাম, এনামুল হক জুনিয়র, ইয়াসির আলী চৌধুরী, শফিউল ইসলাম ও আসিফ আহমেদ রাতুল ।

আনন্দ আলো: আর বিদেশি খেলোয়াড়দের মধ্যে কাদের নিশ্চিত করেছেন?

আব্দুল ওয়াহেদ: শ্রীলংকার জীবন মেন্ডিস, চামারা কাপুগেদারা, সাউথ আফ্রিকার রবিন পিটারসেন, জিম্বাবুয়ের এলটন চিগুম্বুরা, পাকিস্তানের মোহাম্মদ আমির, উমর আকমল, সাঈদ আজমল, কামরান আকমল।  আমাদের দলে যেসব ক্রিকেটার নিয়েছি, তারা দলকে চ্যাম্পিয়ন করার ক্ষমতা রাখে।

আনন্দ আলো: চট্টগ্রাম দলটা বেশ স্হানীয় গন্ধটা রাখতে পেয়েছে স্কোয়াডে।  আইকন তামিম ইকবাল, নাফিস ইকবালের মতো খেলোয়াড় রয়েছেন।  এটাও মনে হয় স্বস্তির ব্যাপার।

আব্দুল ওয়াহেদ: চাটগাঁর ক্রিকেট হিরো তামিম ইকবালকে আমরা দলে নিয়েছি।  এই দলের টেকনিক্যাল এডভাইজার হিসেবে আছেন তামিমের চাচা বাংলাদেশ দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান।  তিনিও চট্টগ্রামের ছেলে।  এমন কী অন্যান্য বিষয়ে যারা আছেন তারাও চট্টগ্রামের সন্তান।

আনন্দ আলো: এবার বিপিএল এর খেলার ভেন্যু ঢাকাতে রয়েছে, চট্টগ্রামেও রয়েছে।  সেই ক্ষেত্রে দর্শকদের মধ্যেও একটা প্রতিযোগিতা থাকবে।  চিটাগং ভাইকিংস তারা তাদের হোম গ্রাউন্ডে খেলবে।  সমর্থকদের জন্য আপনাদের কোনো প্লান রয়েছে কী?

আব্দুল ওয়াহেদ: বিপিএল এর শুরুটা হবে ঢাকায়।  এরপর সেটি চলে আসবে চট্টগ্রামে।  সেখানে ৭টি ম্যাচ দেখতে পারবেন চট্টগ্রামের দর্শকরা।  হোম গ্রাউন্ডে আমরা চিটাগং ভাইকিংসের দর্শকদের অন্যদের চেয়ে আলাদাভাবে পাবো।  কারণ এটা আমাদের নিজেদের ভেন্যু।  নিজস্ব ভেন্যুতে খেলার মধ্যে একটা টেনশন কাজ করে।  অনেক সমর্থন থাকে।  মাঠের সাপোর্ট থাকে।  মাঠের বাইরেও অনেক সাপোর্ট পাওয়া যায়।  ক্রিকেটে এটা একটা বিশাল ব্যাপার।  আমরা আনন্দিত দেশের জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল, চ্যানেল আইকে মিডিয়া পার্টনার হিসেবে পেয়েছি।  এজন্য দলের মনোবল আরও সুদৃঢ় হয়েছে।

আনন্দ আলো: চিটাগং ভাইকিংস এর কোচের দায়িত্ব পালন করছেন কে?

আব্দুল ওয়াহেদ: চিটাগং ভাইকিংস এর কোচ হিসেবে দায়িত্ব দিয়েছি ভারতের রবিন সিংকে।  কারণ এক সময় ভারতীয় জাতীয় দলের ফিল্ডিং কোচ হিসেবে দুই বছর দায়িত্ব পালন করা এই কোচের আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কোচ হিসেবে কাজ করারও অভিজ্ঞতা রয়েছে।

রংপুর রাইডার্স

shakib-al-hasan TM-Dilshanআইকন খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।  রংপুর রাইডার্স-এর মালিক আই স্পোর্টস লিমিটেড।  এই দলের দেশি খেলোয়াড়: সৌম্য সরকার, আরাফাত সানি, মো: মিথুন, মোক্তার আলী, সাকলাইন সজিব, জহুরুল ইসলাম, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহি, মো: মুরাদ খান, রাসেল আল মামুন।  বিদেশি খেলোয়াড়: টিএম দিলশান (শ্রীলংকা), তিসারা পেরেরা (শ্রীলংকা), সুচিত্র সেনা নায়ক (শ্রীলংকা), ড্যারেন সামী (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), লেন্ডল সিমন্স (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), মোহাম্মদ নবী (আফগানিস্তান) ও ওয়াহাব রিয়াজ (পাকিস্তান)।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস

Sonil-Naraineএই দলের আইকন খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন মাশরাফি বিন মতর্ুজা।  কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস-এর মালিক রয়েল স্পোর্টিং লিমিটেড।  এই দলের দেশি খেলোয়াড়: লিটন কুমার দাস, ইমরুল কায়েস, অলোক কাপালী, শুভাগত হোম চৌধুরী, সানজামুল ইসলাম, কামরুল ইসলাম রাব্বি, আরিফুল হক, মাহমুদুল হাসান লিটন, মো: নাইম ইসলাম জুনিয়ার, আবু হায়দার রনি, ধীমান ঘোষ।  বিদেশি খেলোয়াড়: সুনীল নারিন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), মারলন স্যামুয়েলস (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), আন্দ্রে রাসেল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), ক্রীশমার সান্তুকী (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), শোয়েব মালিক (পাকিস্তান), আহমেদ শেহজাদ (পাকিস্তান)।

সিলেট সুপার স্টারস

MoshfiqShahid+Afridi+এই দলের আইকন খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন মুশফিকুর রহীম।  সিলেট সুপার স্টারস-এর মালিক আলীফ গ্রুপ। এই দলের দেশি খেলোয়াড়: রুবেল হোসেন, মুমিনুল হক, আব্দুর রাজ্জাক, কাজী নূরুল হাসান সোহান, মোহাম্মদ শহীদ, নাজমূল হোসাইন অপু, জুনাইদ সিদ্দিকী, নাজমুল হোসাইন মিলন, আবু সায়েম আলম চৌধুরী।  বিদেশি খেলোয়াড়: ব্রাডহগ (অস্ট্রেলিয়া), অজান্তা মেন্ডিজ (শ্রীলংকা), রবি বোপারা (ইংল্যান্ড), ক্রিস জর্ডান (ইংল্যান্ড), জোসুয়া সোব (ইংল্যান্ড), শহীদ আফ্রিদি (পাকিস্তান), সোহাইল তানভির (পাকিস্তান)।

বরিশাল বুলস

mahmudullah-ban chris-gail.এই দলের আইকন খেলোয়াড় ও ক্যাপ্টেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ।  বরিশাল বুলস-এর মালিক এক্সিম গ্রুপ।  এই দলে দেশি খেলোয়াড়: সাব্বির রহমান, আল আমীন হোসাইন, সোহাগ গাজী, তাইজুল ইসলাম, শাহরিয়ার নাফিস, মেহেদী মারুফ, নাদিফ চৌধুরী, রনি তালুকদার, মোহাম্মদ শরীফ উল্লাহ, সাজেদুল ইসলাম।  বিদেশি খেলোয়াড়: ক্রিস গেইল (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), ব্রেন্ডন টেইলর (জিম্বাবুয়ে), কেভিন কপার (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), এভিন লুইস (ওয়েস্ট ইন্ডিজ), সেক্কুজে প্রসন্ন (শ্রীলংকা), মোহাম্মদ সামি (পাকিস্তান), ইমাদ ওয়াসিম (পাকিস্তান)।

দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনায় যেতে চাই

shayan-f-rahman-dhak#CB0C52শায়ান এফ রহমান, স্বত্বাধিকারী ঢাকা ডাইনামাইটস

আমরা বিপিএল এর তৃতীয় আসরে চ্যাম্পিয়ন হতে চাই।  কারণ আমরা খুব ভালো একটা দল গড়েছি।  দলের দেশি ও বিদেশি ক্রিকেটাররা অনেক অভিজ্ঞ।  তারা জানেন কিভাবে জয় ছিনিয়ে আনতে হয়।  কথাগুলো এক নি:শ্বাসে বললেন ঢাকা ডাইনামাইটসের স্বত্বাধিকারী  শায়ান এফ রহমান।  তিনি বলেন, আমরা আইকন ক্রিকেটার হিসেবে চেয়েছিলাম সাকিব আল হাসানকে।  কারণ তিনি পৃথিবীর সেরা অল রাউন্ডার।  তার দলে থাকা মানে বিপক্ষ দলের ভিত নাড়িয়ে দেয়া।  তবে আমরা আইকন ক্রিকেটার হিসেবে অলরাউন্ডার নাসির হোসেনকে পেয়েও খুবই খুশি।  গত দুই বছর আমাদের জাতীয় দলে তিনি যে অলরাউন্ড পারফরমেন্স দেখিয়েছেন তাতে আমরা তাকে নিয়ে বড় স্বপ্ন দেখতেই পারি।  তবে বিপিএল নিয়ে শুধু এবার নয় দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা করছি আমরা।  আমরা এদেশের ক্রিকেট উন্নয়নে সবার সঙ্গে কাজ করতে চাই।

আমাদের আছে সাকিব আল হাসান

mustafa-rafiqul-isla#CB0C57মোস্তফা রফিকুল ইসলাম, স্বত্বাধিকারী, রংপুর রাইডার্স

গত দুইটি বিপিএল আসরে খেলা একমাত্র দল রংপুর রাইডার্স।  এবার তৃতীয় আসরে রংপুর রাইডার্স আরো শক্তিশালী।  তাদের এই শক্তির মূল চাবি বিশ্বের এক নাম্বার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান।  রংপুর রাইডার্সের স্বত্বাধিকারী মোস্তফা রফিকুল ইসলাম বলেন, সবারই আশা এই টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সেই রকম আশা আমাদেরও আছে।  তার চেয়ে বড় কথা হলো, আমরা ভালো ক্রিকেট খেলতে চাই।  মাঠে ও টিভি দর্শকদের আনন্দ দিতে চাই।  আমাদের দলের যে ক্ষমতা রয়েছে তাতে যে কোনো দলের সঙ্গে খেলে জয় ছিনিয়ে আনা সক্ষম।  কারণ আমাদের আছে সাকিব আল হাসান।  তিনি একাই খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারেন।  আমরা আরো একটি বিষয় অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে বলতে চাই তাহলো, এই টুর্নামেন্টের মাধ্যমে রংপুর বিভাগকে ব্যান্ডিং করতে চাই আমরা।

আমাদের একাধিক বিকল্প খেলোয়াড় আছে

azimul-islamআজিমুল ইসলাম, স্বত্বাধিকারী, সিলেট সুপার স্টারস

সিলেট সুপার স্টারস দলের আইকন ক্রিকেটার বাংলাদেশ জাতীয় টেস্ট ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের অলরাউন্ড পারফরমেন্স দেখতে চান স্বত্বাধিকারী আজিমুল ইসলাম।  তিনি বলেন, সিলেট সুপারস্টারস-এ দেশি-বিদেশি অনেক তারকা ক্রিকেটার আছে।  তার মধ্যে কয়েকজন ক্রিকেটারের উপর আমাদের বেশি আস্হা আছে তাদের মধ্যে অন্যতম একজন মুশফিকুর রহিম।  আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ প্রতিটি খেলায় জিততে চাই।

এবারের নিলামে খেলোয়াড় কেনার সময় সব ফ্র্যাঞ্চাইজি নামীদামী ব্যাটসমেনদের দলে নেয়ার চেষ্টা করেছেন। কিন্তু আমরা ভালো বোলার কেনায় আগ্রহী ছিলাম।  এর ব্যাখ্যা হলো, বোলাররা যদি দুর্দান্ত বল করে অল্প রানে বিপক্ষ দলকে বেধে ফেলতে পারে তবে জেতা খুব সহজ হয়ে যায়।  যেমন আফ্রিদির কথা বলি।  টি২০ ম্যাচে তিনি বিশ্বের অত্যন্ত একজন নামীদামী অলরাউন্ডার ক্রিকেটার।  তার কাছে চাইব একজন প্লেয়ার হিসেবে আমরা যে ব্র্যান্ড অব ক্রিকেট খেলি সেই ধরনের প্যাশন অব ক্রিকেট যেন তিনি প্রডিউস করতে পারেন।  শুধু তিনি নন দলের প্রতিটি ক্রিকেটারের কাছে চাই সম্মিলিত পারফরমেন্স।

আমরা এগ্রেসিভ ক্রিকেট খেলতে চাই

rizwan-bin-farouq-ba#CB0C4Aরিজওয়ান বিন ফারুক, স্বত্বাধিকারী, বরিশাল বুল্‌স

বুলস মানে মহিষ।  মহিষ খুব এগ্রেসিভ হয়।  তাছাড়া বরিশালে মহিষ খুব জনপ্রিয়।  বরিশাল বুলস-এর স্বত্বাধিকারী রিজওয়ান বিন ফারুক বলেন, আমরা এগ্রেসিভ ক্রিকেট খেলতে চাই।  এজন্য আমাদের দলে ক্রিস গেইলের মতো এগ্রেসিভ ক্রিকেটারও রয়েছে।

গত দুই সিজনের চেয়ে বিপিএল এর তৃতীয় আসর অনেক জাঁকজমকপূর্ণ হবে।  প্রতিটি খেলা দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে।  কারণ প্রতিটি দলে একাধিক ভালো খেলোয়াড় আছে এবার।  দেশি তরুণ তারকা ক্রিকেটারদের খেলা খুব উপভোগ্য হবে বলে আশা করি।  সেই সঙ্গে আছে বিদেশি নামীদামী এবং অভিজ্ঞ অনেক তারকা ক্রিকেটার।  এই দুইয়ের সমন্বয়ে প্রতিটি ম্যাচ হবে টান টান এবং উত্তেজনাময়।  আমাদের দলের আইকন ক্রিকেটার অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং আরো আছেন বিদেশি কয়েকজন অলরাউন্ডার ক্রিকেটার।  তাদের অলরাউন্ড পারফরমেন্সে প্রতি ম্যাচে আমরা ভালো ক্রিকেট উপহার দিতে চাই।

আমাদের টিম অনেক ব্যালেন্স

nafisa-kamal-comalli#CB0CB0নাফিসা কামাল, স্বত্বাধিকারী, কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস

আমার বাবা আ হ ম মোস্তফা কামাল পৃথিবীর বিভিন্ন ক্রিকেট টুর্নামেন্টে আমাকে নিয়ে যেতেন এবং এখনও নিয়ে যান খেলা দেখতে।  বাসায় বসেও পরিবারের সবাইকে নিয়ে ক্রিকেট খেলা দেখেন তিনি।  এভাবেই ক্রিকেট আমাদের পরিবারের একজন সদস্য হয়ে গেছে।  এবারই প্রথম কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস বিপিএল-এ ফ্রাঞ্জাজি হয়েছে।  প্রথমবার টিম গড়তে গিয়ে আমরা কোনো ধরনের সমস্যায় পড়িনি।  বরং দল গড়ে আমরা অত্যন্ত খুশি।  আমাদের দলের আইকন ক্রিকেটার মাশরাফি বিন মুর্তজাকে পেয়ে আমরা আরো বেশি খুশি।  তার মতো একজন ক্রিকেটার দলে থাকলে দলের অন্যান্য ক্রিকেটারও উজ্জীবিত থাকবে।  আমাদের দলে দেশি-বিদেশি অনেক তরুণ এবং অভিজ্ঞ ক্রিকেটার আছেন যাদের ক্রীড়া নৈপুণ্যে প্রতিটি ম্যাচ জিততে পারব আশা করি।