আবারও শুরু হলো ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে-২০১৫

আবারও শুরু হলো ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে-২০১৫

1033
SHARE

মোহাম্মদ তারেক: শত বছরের পুরানো আদি, অকৃত্রিম নৃত্যকলাই ছিল একসময় আনন্দ-বিনোদনের একমাত্র অবলম্বন। আধুনিক বিশ্বে সাংস্কৃতিক অন্যান্য মাধ্যমের চেয়ে এখনো আলাদাভাবে সমাদৃত নৃত্য। নৃত্য এমন এক সাংস্কৃতিক বহিঃপ্রকাশ যা শারীরিক ভাষার মাধ্যমে সৃজনশীলতাকে মেলে ধরে। অন্যায়-অবিচার, হাসি-খুশি, আনন্দ-বেদনা প্রকাশ করে সুচিন্তিতভাবে। এক সময় শুধু এদেশে নয় নৃত্যই ছিল আমাদের উপমহাদেশের সংস্কৃতির প্রধান অনুষঙ্গ। কালক্রমে এই ধারা কিছুটা নিরুৎসাহিত হলেও সাম্প্রতিক সময়ে আবার জেগে উঠেছে এর নিয়মিত চর্চায়। আরো স্পষ্ট করে বলা যায়- একটা সময় চলচ্চিত্র, মঞ্চ, টিভি নাটকের দাপটে নৃত্যচর্চা বা নৃত্যভাবনা মানুষের কাছ থেকে অনেক দূরে চলে গিয়েছিল। আধুনিকতার ছোঁয়ায় নৃত্য এখন সবচেয়ে আকষর্ণীয় এক সাংস্কৃতিক মাধ্যম। নৃত্যকলা নিয়ে চর্চা, গবেষণা টিভি ও মঞ্চে যেমন নিয়মিত হচ্ছে তেমনি রিয়েলিটি শোও হচ্ছে। ২০১২ সালে নৃত্য নিয়ে দেশের প্রথম স্যাটেলাইট ডিজিটাল টিভি চ্যানেল আই রিয়েলিটি শো শুরু করে। অনুষ্ঠানের শিরোনাম ছিল ‘নাবিলা চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে’। এই রিয়েলিটি শো শুরু হওয়ার পর অনেকেই ভেবেছিলেন নাচ নিয়ে রিয়েলিটি শো কী সাধারণ দর্শককে আকৃষ্ট করতে পারবে?  কিন্তু প্রথম আসরেই চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে পুরোদেশে আলোড়ন সৃষ্টি করে।

সেরা নাচিয়ে নামটি শুনলেই ভালোলাগা ও বিশ্বাসে মন ভরে ওঠে। কারণ নৃত্যে তারুণ্যের প্রতিভা বিকাশের একটি বড় প্লাটফর্ম হয়ে উঠেছে এই প্রতিযোগিতাটি। এই প্রতিযোগিতার আবহে গ্রামের প্রত্যন্ত অঞ্চলেও এখন নৃত্যের চর্চা হচ্ছে। সেরা নাচিয়ে হবার স্বপ্ন দেখছে দেশের তরুণ তরুণীরা। প্রথম ও দ্বিতীয় আসরে ব্যাপক সাড়া জাগানো ও দর্শকপ্রিয়তার পর তৃতীয়বারের মতো শুরু হলো শুধুমাত্র নৃত্য নিয়ে রিয়েলিটি শো ‘ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে-২০১৫’। এবারের আসরে প্রধান তিন বিচারক হলেন- নৃত্য শিল্পী মুনমুন আহমেদ, চিত্রনায়ক ফেরদৌস ও অভিনেত্রী নির্মাতা মেহের আফরোজ শাওন। গত দুই আসরের সফলতায় ধারাবাহিকতায় এবারও বিচারকের আসনে তারা তিনজন।

এ প্রতিযোগিতার প্রাথমিক বাছাই পর্বের পর মূল পর্বের শুটিং শুরু হয়েছে। এরই মধ্যে দেশের সাতটি বিভাগে ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে-২০১৫ প্রতিযোগিতার প্রাথমিক অডিশন শেষ হয়েছে। এবারের প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য সারাদেশ থেকে রেজিস্ট্রেশন করেছে ৩৩ হাজার প্রতিযোগী। প্রাথমিক যাচাই বাছাই শেষে সেখান থেকে নির্বাচন করা হয়েছে ২০০ জন প্রতিযোগী। তাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত হয় ওয়ার্কশপ পর্ব। ওয়ার্কশপে প্রশিক্ষক হিসেবে ছিলেন স্বনামধন্য ৩০ জন প্রশিক্ষক। মোট ৬০ জন প্রতিযোগীকে নিয়ে অনুষ্ঠিত হবে গ্র্যান্ড অডিশন। এপর্বে বিচারকের আসনে বসবেন প্রধান তিন বিচারক। এরপর ২৪ জন প্রতিযোগীকে নিয়ে শুরু হবে মূলপর্ব।

ম্যাঙ্গোলি-চ্যানেল আই সেরা নাচিয়ে- ২০১৫ প্রতিযোগিতার পরিকল্পনা ও পরিচালনা করছেন ইজাজ খান স্বপন। তিনি প্রত্যাশা করছেন এবারও বেশ কিছু প্রতিভাবান নৃত্যশিল্পী খুঁজে পাবেন এ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে। উপস্থাপনা করেছেন মীম চৌধুরী। এ রিয়েলিটি শো টি প্রচার হচ্ছে চ্যানেল আইতে প্রতি মঙ্গল ও শুক্রবার রাত ৭-৫০ মিনিটে।