আনোয়ার সিমেন্ট চ্যানেল আই বিজয়মেলা লাল সবুজের আনন্দ উৎসব

আনোয়ার সিমেন্ট চ্যানেল আই বিজয়মেলা লাল সবুজের আনন্দ উৎসব

708
SHARE
Bijoy-mela

মহান বিজয় দিবস পালন উপলক্ষে চ্যানেল আই প্রতিবারের মতো এবারও নিজস্ব প্রাঙ্গণে আয়োজন করেছিল আনোয়ার সিমেন্ট-চ্যানেল আই বিজয় মেলা ২০১৬। বিজয়ের ৪৫ বছরকে স্মরণীয় করে রাখতে এই বিজয় মেলাকে ঘিরে নেয়া হয়েছিল বিশেষ পরিকল্পনাও। এ মেলায় মিলিত হয়েছিলেন সব শ্রেণি- পেশার মানুষের পাশাপাশি যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধারও। বিজয় মেলায় এসে বীর মুক্তিযোদ্ধারা বলেছেন, চ্যানেল আই-এর এ দিনটির জন্যই তারা অপেক্ষা করেন একটি বছর। এ মেলায় খুঁজে পান হারানো স্মৃতি।

এ দিন সকাল ১০-৩০ মিনিটে যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পী, স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সদস্য ও চ্যানেল আই পরিচালনা পর্ষদ সদস্য ও বিভিন্ন সেক্টরের বিশিষ্টজনদের সঙ্গে নিয়ে লাল সবুজ রংয়ের বেলুন আকাশে উড়িয়ে আনন্দ মুখর পরিবেশে মেলার উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, পরিচালক ও বার্তা প্রধান শাইখ সিরাজ, পরিচালক জহির উদ্দিন মাহমুদ মামুন, আব্দুর রশীদ মজুমদার, মুকিত মজুমদার বাবু, আনোয়ার সিমেন্ট গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোয়ার হোসেন, ওয়েল ফুড লিমিটেডের সিইও সৈয়দ নূরুল ইসলাম, তানভীর মাজহার তান্না ও সাইদুর রহমান প্যাটেলের নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের সদস্যরা, মেজর (অব:) কামরুল হাসান ভুইয়ার নেতৃত্বে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধারা, তপন মাহমুদের নেতৃত্বে স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের শিল্পীবৃন্দ। আরো উপস্থিত ছিলেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব, গণমাধ্যমের সম্পাদকবৃন্দ। ‘এক সাগর রক্তের বিনিময়ে’ গানটির সঙ্গে দলীয় নৃত্য পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বিজয়মেলার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শুরু হয়। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন তপন মাহমুদ, আব্দুল জব্বার, এম.এ মান্না, ইন্দ্রমোহন রাজবংশী, শাহনাজ বেলী, রুখসানা সাবা। অনুষ্ঠানে আরো ছিল বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী ফেরদৌস আরার নেতৃত্বে সুর সপ্তকের পরিবেশনা ও সহশিল্পীদের সঙ্গে নিয়ে বাসুদেবের সঙ্গীত পরিবেশনা। এছাড়া সঙ্গীত পরিবেশন করেছে সেরাকণ্ঠ, ক্ষুদে গানরাজ ও বাংলার গানের শিল্পীরা।

লাল সবুজে বর্ণিল মঞ্চ, তোরণ ও ফেস্টুনে সুসজ্জিত ছিল মেলা প্রাঙ্গণ। মেলায় ছিল সাত বীর শ্রেষ্ঠের নামে সাতটি স্মারক স্তম্ভ। মেলার স্টলগুলোতে সজ্জিত ছিল মহান মুক্তিযুদ্ধের নানা দলিল, মুক্তিযুদ্ধের গ্রন্থমালা, মুক্তিযুদ্ধের আলোকচিত্র, মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র, মুক্তিযোদ্ধাদের ডায়েরির প্রদর্শনী, গ্রাম বাংলার এতিহ্যবাহী ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের সামগ্রী ইত্যাদি। মেলায় চিত্র শিল্পী আব্দুল মান্নানের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের ওপর চিত্রাংকন করেছে শিশু শিল্পীরা। মেলা অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেছেন মৌসুমী বড় য়া, অপু মাহফুজ ও দিলরুবা সাথী। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেছেন আমীরুল ইসলাম। দুপুর ১টা পর্যন্ত একটানা মেলা সরাসরি সম্প্রচার করেছে চ্যানেল আই।